১১ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ২৮শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ২৮শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি

অক্সিজেন অভাবে ভারতে ২৫ জনের মৃত্যু

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : ভারতের রাজধানী দিল্লির একটি হাসপাতালে অক্সিজেনের অভাবে শ্বাসকষ্টে ২৫ করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) রাতে দিল্লির জয়পুর গোল্ডেন হাসপাতালে ঘটেছে এই মর্মান্তিক ঘটনা।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভিকে জয়পুর গোল্ডেন হাসপাতালের চিকিৎসা বিভাগের পরিচালক ডা. ডি কে বালুজা বলেন, ‘সরকারের তরফ থেকে আমাদের হাসপাতালকে ৩ দশমিক ৫ মেট্রিক টন অক্সিজেন বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার বিকেল ৫ টা নাগাদ বরাদ্দের সেই চালান আসার কথা ছিল, কিন্তু সেটি এসেছে প্রায় মাঝরাতে। এর মধ্যেই অক্সিজেনের অভাবে শ্বাসকষ্টজনিত কারণে মারা গেছেন এই ২৫ রোগী।’

করোনায় সবচেয়ে বিপর্যস্ত অবস্থায় থাকা ভারতের রাজ্যগুলোর মধ্যে দিল্লি অন্যতম। অতিরিক্ত সংখ্যক করোনা রোগীর চাপ থাকার কারণে বর্তমানে দিল্লির কোনো হাসপাতালে নতুন রোগী ভর্তি করার মতো অবস্থা নেই।

এরমধ্যে হাসপাতালগুলোতে দেখা দিয়েছে করোনা চিকিৎসার ওষুধ ও অক্সিজেনের সংকট। শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) সকালে জরুরিভিত্তিতে অক্সিজেন সরবরাহ চেয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল ও দিল্লির লেফটেন্যান্ট গভর্নর অনিল বাইজালের কাছে এসওএস বার্তা (জরুরি সাহায্য বার্তা) পাঠিয়েছিল জয়পুর গোল্ডেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

শুক্রবার ((২৩ এপ্রিল) জয়পুর গোল্ডেন হাসপাতালের পাশাপাশি মূলচান্দ হাসপাতাল নামে দিল্লির আরেকটি হাসপাতপাল প্রধানমন্ত্রী, মুখ্যমন্ত্রী ও ল্যাফটেন্যান্ট বরাবর এসওএস পাঠিয়েছিল।
মূলচান্দ হাসপাতালের চিকিৎসা বিভাগের পরিচালক ডা. মাধু হান্দা এনডিটিভিকে বলেন, ‘এসওএস বার্তা পাঠানোর পর যখন অক্সিজেনের চালান এলো, তখন আমাদের হাসপাতালে মাত্র আর ৩০ মিনিট চলার মতো অক্সিজেন অবশিষ্ট ছিল।’

‘বর্তমানে এই হাসপাতালে ১৩৫ জন করোনা রোগী ভর্তি আছেন। যদি চালান আসতে আর একটু দেরি হতো তাহলে কী ভয়াবহ অবস্থা হতো ভাবতে এখনো আমরা শিউরে উঠছি।’

তিনি আরো জানান, দিল্লির বেশিরভাগ হাসপাতালের অক্সিজেনের মজুত শেষ হয়ে আসছে। যে পরিস্থিতিতে জয়পুর গোল্ডেন ও মুলচান্দ হাসপাতাল পড়েছে, দ্রুত অক্সিজেন সরবরাহে বিলম্ব ঘটলে ক’দিন পর অন্যান্য হাসপাতালেও একই চিত্র দেখা যাবে।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২১ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com