২রা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং , ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ১৬ই রবিউস-সানি, ১৪৪২ হিজরী

অতিমানবীয় ফুটবল দেখল বিশ্ব, চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ আটে বার্সা

খেলা প্রতিবেদক  ● চ্যাম্পিয়নস লিগে বুধবার রাতে সবাই দেখল এক অতিমানবীয় ফুটবল ম্যাচ। যেখানে প্যারিস সেইন্ট জার্মেইনকে (পিএসজি) ৬-১ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের লড়াইয়ে টিকে থাকল লুইস এনরিকের শিষ্যরা। সেই সঙ্গে গড়ে ফেলল চ্যাম্পিয়ন্স লিগের অনন্য এক রেকর্ড। প্রথম লেগে ৪-০ গোলে পিছিয়ে থেকে প্রথম কোন দল হিসেবে চ্যাম্পিয়নস লিগের পরবর্তী রাউন্ড নিশ্চিত করল বার্সেলোনা।

বুধবার সবাই যেন অপেক্ষা করে ছিল বার্সেলোনার হার দেখার জন্য। কেননা হিসেবটা ছিল বেশ সহজ। জয়ের জন্য বার্সেলোনাকে করতে হবে ৫ গোল। অন্যদিকে পিএসজির জয়ের জন্য দরকার বার্সেলোনাকে ৪টির কম গোল করতে দেয়া। বার্সা পাঁচ গোল করলেও তার পরিবর্তে মাত্র একটি গোলে জয় নিশ্চিত হয়ে যেত পিএসজির। কিন্তু এই সহজ সমীকরণ যে কাতালানদের মাঠে খাটে না, তা আরো একবার প্রমাণ করে দিল বার্সেলোনা। তাই ম্যাচের শেষ সময়ে নেইমারের গোলে বার্সেলোনা যখন ৫-১ গোলে এগিয়ে আছে, তখনো হতাশা ছিল দর্শকদের মধ্যে। কিন্তু অতিরিক্ত ৫ মিনিটে রবার্তো কার্নিসারের গোলে সৃষ্টি হল নতুন এক ইতিহাস। প্রথম লেগে ৪-০ গোলে পিছিয়ে থেকেও কোন দল চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করে নতুন রেকর্ড গড়ল।

এই জয়ের কৃতিত্ব অবশ্য কোন নির্দিষ্ট ব্যক্তির কাছে যাচ্ছে না। বরং বলতে হবে দলীয়ভাবে চমৎকার কম্বিনেশনের মাধ্যমে দুর্দান্ত জয়টি অর্জন করে নিয়েছে লা লিগার দলটি। ম্যাচ শুরুর পর ৩ মিনিটের মাথায় প্রথম গোলটি করেন সুয়ারেজ। ডি বক্সে ভিতরে ক্রস থেকে পাওয়া বল থেকে প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডারদের বোকা বানিয়ে গোলটি করেন এই উরুগুয়ের ফরোয়ার্ড। এরপর বার্সেলোনাকে একটি আত্মঘাতী গোল উপহার দেন ডিফেন্ডার লেভিন কুর জাওয়া। ফলে ২-০ গোলে শেষ হয় প্রথমার্ধ। এটি মোটেও আশাব্যঞ্জক কিছু ছিল না বার্সা সমর্থকদের জন্য।
দ্বিতীয়ার্ধে ৫০ মিনিটে দলের পক্ষে তৃতীয় গোলটি করেন বার্সেলোনার তারকা মিডফিল্ডার লিওনেল মেসি। নেইমারকে ফাউল করলে পেনাল্টি সুযোগ পায় বার্সা। আর সেই সুযোগ ঠাণ্ডা মাথায় কাজে লাগান লিওনেল মেসি।

কিন্তু তার কিছু সময় পরেই গোল পায় পিএসজি। ভেঙ্গে যায় বার্সা সমর্থকদের মন। কেননা এবার তাদের ম্যাচে টিকে থাকতে হলে দরকার আরো ৩ গোল যা অসম্ভব ছিল। কিন্তু সেই অসম্ভবকে সম্ভব করে তোলেন নেইমার ও সার্জিও রবার্তো। ম্যাচের ৮৮ মিনিটে একটি এবং এরপর ইনজুরি টাইমে একটি গোল করে বার্সেলোনাকে সমতায় ফেরান এই ব্রাজিলিয়ান তারকা স্ট্রাইকার। এবারো গোলের নায়ক নেইমার। তার সহায়তায় পাওয়া বলে গোলপোস্টে খুব কাছ থেকে দুর্দান্ত গোলটি করে রবার্তো। ফলে ৬-১ ব্যবধানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বার্সেলোনা।

patheo24/mr

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com