২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং , ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ১০ই সফর, ১৪৪২ হিজরী

অধিনয়াকের মুখে বিশ্ব জয়ের গল্প

অধিনয়াকের মুখে বিশ্ব জয়ের গল্প

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম :: বাংলাদেশ বিশ্ব জয় করেছে। শুনতেই অবাক হয়ে তাকিয়ে রয় যেনো সেই বিশ্বই। রোববার ভারতের ধারাভাষ্যকাররাও খুবই প্রশংসা করেছে অধিনায়ক আকবর আলীর। ফাইনালের দিনে তিনি অপরাজিত ইনিংস খেলে বাংলাদেশকে বিশ্বকাপের স্বাদ পাইয়ে দিয়েছেন। এটা কত বড় কাজ করেছেন হয়তো নিজেও জাননে না। কী বলতে চান আকবর আলী। কিন্তু কিভাবে এমন ঠান্ডা মাথায় পরিস্থিতি সামাল দেন আকবর? ভারতের বিপক্ষে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ার পর তার পরিকল্পনাই বা কী ছিল? যুব অধিনায়ক জানালেন কিভাবে এগিয়েছেন সফল রানতাড়ার পথে, দলকে এনে দিয়েছেন বিশ্বকাপের শিরোপা।

আকবর বলেন, ‘যখন আমি উইকেটে যাই, আমাদের জুটির দরকার ছিল। আমি সঙ্গীদের বলেছিলাম, উইকেট হারালে আমরা বিপদে পড়ব। সহজ পরিকল্পনা ছিল। আমরা জানতাম, ভারত সহজে ছাড় দেবে না। তারা চ্যালেঞ্জিং দল। আমরা জানতাম, রান তাড়া করা কঠিন হবে। তবে আমি এমন একজন মানুষ যে কি না সব কিছুকেই সহজভাবে দেখে। টুর্নামেন্টের প্রথম ভাগে আমি সেভাবে ব্যাটিং পাইনি। আজ সুযোগ পাওয়ার পর চেয়েছি কিছু একটা করতে।’

ভারতীয় ব্যাটিংয়ের সময় বাংলাদেশের বোলাররা খুব আগ্রাসী ছিল। ম্যাচের পরও ভারতীয়দের সঙ্গে কিছুটা ঝামেলায় জড়িয়ে পড়তে দেখা যায় জুনিয়র টাইগারদের।

আকবর আলী মনে করছেন, এটা ঠিক হয়নি। প্রতিপক্ষ দলকেও সম্মান জানিয়েছেন তিনি, ‘আমাদের কয়েকজন বোলার কিছুটা আবেগী হয়ে পড়েছিল। যা হয়েছে, এমনটা ঠিক হয়নি। আমি ভারতীয় দলকে অভিনন্দন জানাতে চাই। তারা পুরো টুর্নামেন্টেই দুর্দান্ত খেলেছে।’

নেতা হিসেবে তিনি একটু অন্যরকম, সেটা গত দুই বছরে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সাফল্যের দিকে তাকালেই পরিষ্কার হবে। গত দুই বছরে আকবরের নেতৃত্বে ৩৩ ওয়ানডে খেলে ১৮টিই জিতেছে বাংলাদেশ। বড় বড় দলকে হারিয়েছে হেসেখেলে।

আকবরের নেতৃত্বে একটা জিনিস আলাদা করেই চোখে পড়ে। তিনি উইকেটের পেছনে দাঁড়িয়ে এক পলকেই যেন দেখে ফেলেন পুরো মাঠটা, আক্রমণাত্মক ফিল্ডিং সাজাতে কার্পণ্য করেন না। আবার ব্যাটিংয়ে যখন নামেন, তখন ভীষণ ঠাণ্ঠা মাথার মানুষ আকবর। অনেকটা যেন ভারতের দুইবারের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির মতো।

ধোনির সাফল্যের নেপথ্যে ছিল তার ঠাণ্ডা মাথার নেতৃত্বই। এজন্য তাকে ‘ক্যাপ্টেন কুল’ নামে ডাকা হয়। আকবরও ধোনির মতো উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান, তার মতোই নেতৃত্ব দিতে পারেন স্নায়ুচাপ ধরে রেখে।

পচেফস্ট্রমে যুব বিশ্বকাপের ফাইনালে আরও একবার আকবর আলীর নেতৃত্বগুণ দেখলো ক্রিকেট বিশ্ব। বোলিং পরিবর্তন থেকে শুরু করে ফিল্ডিং সাজানো কিংবা দলের বিপর্যয়ের মুখে ব্যাটিং, সব কিছুতেই যেন ‘ক্যাপ্টেন কুল’ তিনি।

আকবরের ক্ষুরধার নেতৃত্ব আর বোলার-ফিল্ডারদের দুরন্ত পারফরম্যান্সে ফাইনালে ভারতকে ১৭৭ রানেই গুটিয়ে দেয় বাংলাদেশ। তবে ব্যাটিংয়ে নেমে মাত্র ১০২ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে ধুঁকছিল তারা। ১৭৮ রানের ছোট লক্ষ্যটাও মনে হচ্ছিলো দুরের বাতিঘর।

সেই বিপদের মুখে দাঁড়িয়ে ৪৩ রানের হার না মানা এক ইনিংস খেললেন আকবর। যে ইনিংসের সুবাদে ফাইনালে ম্যাচসেরার পুরস্কারটিও ওঠেছে বাংলাদেশ অধিনায়কের হাতে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com