৭ই জুলাই, ২০২০ ইং , ২৩শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ১৫ই জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী

আমরা এতিম হয়ে যাচ্ছি না তো!

আমরা এতিম হয়ে যাচ্ছি না তো!

মুহাম্মাদ আইয়ুব :: বাবা মৃত্যুতে সন্তান যেমন এতিম হয়ে যায়, ঠিক তেমনি উলামায়ে কেরামের মৃত্যুতে উম্মত এতিম হয়ে যায়। মহানবী যেদিন দুনিয়া থেকে বিদায় নিলেন সেদিন থেকেই উম্মতের কপালে চিন্তার বিরাট রেখা পড়ে গেল, মহা শূন্যতা তৈরি হলো।

আজ অবধি সে শূন্যতা পূরণ তো দূরের কথা
মহানবীর পথে হেঁটে তাঁর ওয়ারিশ উলামায়ে কেরামের একে একে পরপারে প্রস্থান করে সে শূন্যতায় আরো শূন্যতা তৈরি করেছেন। এভাবে কিছুদিন লাগাতার চলতে থাকলে আমরা তো জনমের মতো এতিম হয়ে পড়ব!

সবাইকে শোক দরিয়ায় ডুবিয়ে রমজানের শেষ দশকে মহান মালিকের কাছে চলে গেলেন দারুল উলুম দেওবন্দের শায়খুল হাদিস, জগদ্বিখ্যাত আলেমে দ্বীন শায়খ সাঈদ আহমাদ পালনপুরি রহ.। তারপর গেলেন চট্টগ্রামের বিখ্যাত মাদ্রাসা পটিয়ার মুহতামিম আল্লামা শাহ তৈয়্যব রহ.। তারপর চট্রগ্রামের আরেক প্রশিদ্ধ মাদ্রাসা জিরির  মুহতামিম রহ.। এ না থামা মিছিলে তারও আগে চলে গেলেন বিশিষ্ট অভিধানবিদ সুলেখক ও গবেষক মাওলান আবু সুফিয়ান যাকি রহ.।

জাতীর কর্ণধার উলামায়ে কেরামদের হারিয়ে আমরা এতিম হয়ে যাচ্ছি না তো?!

ঈদের পর দিন ফজর পড়েই শুনতে পেলাম আরো একটি নক্ষত্র পতনের কথা। জামিয়াতুল আবরার আশুলিয়ার মুতাওয়াল্লি, প্রতিষ্ঠাতা ও মুহতামিম আমার সম্মানিত উস্তায আলহাজ্ব হযরত মাওলানা গোলামুর রহমান সাহেব। মাত্র কয়েকদিনের ব্যবধানে বড়দের এই যে চলে যাওয়ার মিছিল এতে আমি শঙ্কিত এবং  এই ভেবে খুব চিন্তিত যে, এরপর এই উম্মতের কি হবে?

বারবার মনের ভিতর একটি আশঙ্কা উঁকিঝুঁকি মারছে যে, জাতীর কর্ণধার উলামায়ে কেরামদের হারিয়ে আমরা এতিম হয়ে যাচ্ছি না তো?! হায় হায়! অভিভাবক ছাড়া আমরা চলব কিভাবে?

চিল, সাপ, বেঁজি আর গুইসাপ থেকে বাচ্চাগুলোকে বড় আদর আর মমতায় মা মুরগীই হেফাজত করে। এখন মা ই যদি হারিয়ে যায় তাহলে বাচ্চাদের রক্ষণাবেক্ষণ কে করবে? আফসোস! আজ তো আমরা মা ছাড়া বাচ্চাদের মতো হয়ে যাচ্ছি!

বাবার তিরোধানে শেয়ালরুপী বাবা তে ভরে গেছে দুনিয়া। ধর্মের নামে জামাত শিবির, আহলে হাদিস, কাদিয়ানী, বিদআতিতে ভরে গেছে দেশ। বাবা যখন পরপারে তখন এরাই এখন বাবার ভূমিকা পালন করতে বদ্ধপরিকর। অবুঝ বাচ্চারা চকলেট দেখে ওদের পিছু নিচ্ছে। কিন্তু এখন বাচ্চাদের কে বুঝাবে যে, এরা অভিভাবক নয় বরং অভিভাবকরুপী শেয়াল! যে সবসময় উঁৎপেতে আছে কখন অভিভাবক বিদায় হবে আর সে খপ করে বাচ্চাদের মুখে পুরবে! ইয়া মা’বুদ!!

তাই আজ আমাদের বড় দায়িত্ব কাঁধে এসে চেপেছে। বড় যাদেরকে আল্লাহ পাক নেয়ামত সরূপ এখনো আমাদের মাঝে রেখেছেন তাদের দারস্থ হওয়া। দেশ ও দশকে বাঁচাতে তাঁদের পরামর্শে মেনে সামনে এগোতে থাকা। বিভেদের সময় এখন না।এখন তো আমাদের ঘর গোছানোর সময়।

সুতরাং হে প্রিয়! দেশ ও জাতীর এ মহা সঙ্কটকালে তুচ্ছ ঘটনাকে একপাশে ফেলে আসুন আমরা ঐক্যবদ্ধ হই। উলামায়ে কেরামের নেতৃত্বে আমরা সম্মুখপানে এগিয়ে যাই।

লেখক: শিক্ষক ও প্রাবন্ধিক

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com