২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং , ৭ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ৪ঠা সফর, ১৪৪২ হিজরী

উপকূলে পানিতে ভাসমান দুর্গতদের পাশে দাঁড়ান

উপকূলে পানিতে ভাসমান দুর্গতদের পাশে দাঁড়ান

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম :  জলবায়ু সমস্যা কারণেই সাগরে ঘনঘন লঘুচাপ দেখা দিচ্ছে। উত্তাল সাগরের তীরবর্তী এলাকাা বারবারই তলিয়ে যাচ্ছে। জোয়ারের ক্রমবর্ধমান এই উচ্চতা বৃদ্ধির কারণ কী? তা-ও খোঁজে বার করতে হবে। অমাবস্যার প্রভাব, সাগরে সুস্পষ্ট লঘুচাপ ও সক্রিয় মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে কয়েক দিন ধরে সারা দেশে ঝরছে বৃষ্টি। টানা বর্ষণে উপকূলজুড়ে দেখা দিয়েছে অধিক উচ্চতার জোয়ার।

ভাদ্রের এই সময়ে এর আগে কখনো এমন উচ্চতায় জোয়ারের পানি দেখেনি উপকূলের মানুষ। এ প্রেক্ষাপটে উপকূলেও হানা দিয়েছে বন্যা। তিন মাস আগে আঘাত হানা ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের তোড়ে সুন্দরবনসংলগ্ন জনপদের বিশাল এলাকার নদীর বাঁধ স্থানে স্থানে ভেঙে গিয়েছিল। ভাঙা বাঁধের স্থানে জোয়ারের পানি আটকাতে স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে রিংবাঁধ দেওয়া হয়েছিল। কয়েক দিনের টানা বর্ষণে জোয়ারের তোড়ে শনিবার অনেক জায়গায় ভেঙে গেছে এসব রিংবাঁধ। সাতক্ষীরার কয়রা, শ্যামনগর ও আশাশুনির একাধিক জায়গায় বাঁধের ভাঙা স্থান দিয়ে পানি ঢুকে ফের এলাকা ডুবেছে। সাতক্ষীরায় ৬০ গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দী। বঙ্গোপসাগরে গত ১০ দিনে পরপর দুটি সুস্পষ্ট লঘুচাপ তৈরি হওয়ায় উপকূলীয় ১০টি জেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত।

ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের চেয়েও উঁচু জোয়ারে ভাসছে দেশের উপকূলের বেশির ভাগ জেলা। বাড়িতে জোয়ারের পানি ওঠায় কয়েক লাখ মানুষ উঁচু স্থানে আশ্রয় নিয়েছে। পূর্বপ্রস্তুতি না থাকায় হঠাৎ এ বন্যায় ভোগান্তিতে পড়েছে মানুষ। জোয়ারে বেশির ভাগ আউশ-আমন বীজতলা, রোপা আউশ, পানের বরজ, শাকসবজিসহ ফসলের খেত পানিতে তলিয়ে গেছে। একই সঙ্গে ছোট ছোট খাল-বিলের পানি উপচে ভেসে গেছে কয়েক কোটি টাকার মাছ। এতে আর্থিক ক্ষতির মুখোমুখি কয়েক হাজার চাষি। করোনা মহামারীর পাশাপাশি দেশের ৩৬টি জেলায় বন্যার ছোবল মানুষের জীবনযাপন ব্যাহত করছে। বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের তথ্য বলছে, তাদের পর্যবেক্ষণে থাকা ১০১টি স্টেশনের মধ্যে পানি বেড়েছে ৫৬টির, কমেছে ৩১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ছয়টি নদ-নদীর পানি। বন্যাক্রান্ত এলাকায় প্রবীণদের পাশাপাশি নারী ও শিশুরাও ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। গবাদি পশুর জীবন বিপন্ন।

সুপেয় পানি, ওষুধ, শুকনো খাবারের চাহিদা বেড়েছে। সরকারের এ মুহূর্তের সবচেয়ে বড় কাজ জরুরি ভিত্তিতে ত্রাণ তৎপরতা শুরু ও দুর্গত মানুষের পুনর্বাসন। যত তাড়াতাড়ি তাদের পাশে দাঁড়ানো হবে ততই ভালো।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com