বৃহস্পতিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৮:৩১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
ভারতে আবারও ধর্ষণের শিকার নারীর শরীরে অগ্নিসংযোগ শিশুকে শিক্ষার সাথে দীক্ষাও দেই | রেক্স সালমান দুর্নীতি বিরুদ্ধে অভিযান চলমান থাকবে : সেতুমন্ত্রী নৈতিকতা বিবর্জিত শিক্ষার কারণেই মানুষ চরিত্রহীন হচ্ছে : চরমোনাই পীর মাওলানা আজিজুল হক হুজি প্রতিষ্ঠাতা উল্লেখ করে সংবাদ; ক্ষমা চাইলো যমুনা কানাকে কানা আর খোঁড়াকে খোঁড়া বলো না : প্রধানমন্ত্রী ইমাম হয়ে কাতার যেতে প্রধানমন্ত্রীর সহাযোগিতা চায় ‘হাফেজ কল্যাণ ফাউন্ডেশন’ তালেবানের সঙ্গে আলোচনায় বসতে চায় যুক্তরাষ্ট্র ওয়াকফ দেওবন্দের সাবেক প্রধান মুফতির ইন্তেকাল ৮ মাস প্রধান শিক্ষক গোপন রেখেছেন ছাত্রের বৃত্তি পাওয়ার খবর

এতিমের অর্থ আত্মসাতের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি কাম্য

এতিমের অর্থ আত্মসাতের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি কাম্য

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : সরকারি চাকুরি পাওয়ার আগে চাকুরি নিয়ে কত কথা। সরকার কাজ দিচ্ছে না। বেকার ফেলে রাখছে লাখো যুবক-তরুণ-তরুণী। কিন্তু আফসোসের বিষয় হলো, কিছু অসাধু ব্যক্তিরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সরকারের মাথার উপর বসেই নিচে থেকে কেটে দিচ্ছে। অসহায় সাধারণ মানুষদের পাশে দাঁড়ানো তো দূরে থাক, এরা এতিমের টাকা পর্যন্ত আত্মসাৎ করছে। সরকারের বিভিন্ন জায়গায় অনেক ক্ষেত্রে পুরো অর্থটাই জলে যায়।

তাই সরকারি কর্মকর্তারা যাতে সৎ থাকেন সে জন্য সম্প্রতি তাঁদের বেতন-ভাতা ও সুযোগ-সুবিধা কয়েক গুণ বাড়ানো হয়েছে; কিন্তু তাতে লাভ হয়েছে কী? দুর্জনেরা বলে, সরকারি কর্মকর্তাদের লোভ আরো বেড়ে গেছে। আগে বরাদ্দের অংশবিশেষ খেতেন, এখন পুরোটাই খেয়ে ফেলার চেষ্টা করেন। গণমাধ্যমে প্রকাশিত ‘এতিমদের হকে দুর্নীতির থাবা’ শিরোনামে একটি খবর প্রকাশিত হয়েছে।

ফেনীর সোনাগাজী উপজেলায় একটি এতিমখানার জন্য ১০০ খাট, ২৫টি হুইলচেয়ার থেকে শুরু করে হাঁড়ি-পাতিল-তাওয়া-কড়াই-বঁটিসহ অনেক কিছুই কেনা হবে। এ জন্য যে দর প্রস্তাব করা হয়েছে, তা দেখে অনেকেরই মাথা ঘুরে যাবে। আইটেমভেদে দুই গুণ থেকে ছয় গুণ বা তারও বেশি দাম ধরা হয়েছে। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের দায়িত্বে আছে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় ও সমাজসেবা অধিদপ্তর। সমাজের কল্যাণ ও সেবায় নিষ্ঠার উদাহরণ এরচেয়ে আর জঘন্য কী হতে পারে?

আমরা গভীর উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছি যে, শুধু সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় বা সমাজসেবা অধিদপ্তরই নয়, প্রায় সব মন্ত্রণালয় বা অধিদপ্তরেই চলছে বর্ধিত বেতন-ভাতা, সুযোগ-সুবিধা পাওয়া কর্মকর্তাদের এমন বর্ধিত লুটপাট। হাওরাঞ্চলে এক কোদাল মাটি না ফেলেও কোটি টাকার বাঁধ প্রকল্প বাস্তবায়নের অভিযোগ আছে। রডের বদলে বাঁশ দিয়ে ভবন তৈরির খবরও পত্রিকায় আসে।

দেশের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের জন্য বালিশ কেনার খবরে জাতি হাস্যরসে সিক্ত হয়। নীতিনির্ধারকদের বিবেচনা করা প্রয়োজন, বেতন-ভাতা, সুযোগ-সুবিধা আর কত বাড়ালে তাঁরা সৎ হবেন, নাকি তাঁদের সৎ করার জন্য অন্য কোনো উপায় অবলম্বন করতে হবে? একটি আটতলা ভবনসহ সোনাগাজীর এতিমখানা ও প্রবীণনিবাসের পুরো প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ২৪ কোটি ৬৮ লাখ টাকা। একটি বেসরকারি ও নিরপেক্ষ বিশেষজ্ঞ কমিটির মাধ্যমে পুরো প্রকল্পের ব্যয় পর্যালোচনা করা প্রয়োজন। দুর্নীতি দমন কমিশনও (দুদক) বিষয়টি পর্যালোচনা করে দেখতে পারে।

এই দেশ সাধারণ মানুষের ঘামের উপর দিয়ে চলে। রাষ্ট্রের কোষাগারের টাকা, সবধরনের বরাদ্দের টাকা- সবই আসে দরিদ্র ও খেটে খাওয়া মানুষের রক্ত ও ঘামের বিনিময়ে। যারা এসব আত্মসাৎ করেন তারা মানুষের কাতারে পড়েন না। তারা ক্ষমা পেতে পারে না। এদেরকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া উচতি বলে আমি মনে করি।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com