৩রা আগস্ট, ২০২০ ইং , ১৯শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ১৩ই জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী

করোনা; ভারতে মসজিদে নামায আদায় প্রসঙ্গে দেওবন্দের নির্দেশনা

করোনা; ভারতে মসজিদে নামায আদায় প্রসঙ্গে দেওবন্দের নির্দেশনা

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : চিনের উহান শহর থেকে বিশ্বব্যাপি ছড়িয়ে পড়া ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতি করেনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রেক্ষিতে ভারতবাসী বিশেষত দেশটির মুসলমানদের প্রতি সরকার কর্তৃক করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত দিক নির্দেশনা মেনে নিজেদেরকে ও দেশকে ভাইরাস সংক্রমণের হাত থেকে মুক্ত রেখতে সহযোগিতা করার বিশেষ আবেদন জানিয়েছে ভারতের ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দারুল উলূম দেওবন্দ।

সোমবার (২৩ মার্চ) দারুল উলূম দেওবন্দের মুহতামিম মুফতী আবুল কাসেম নোমানীর স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ কথা জানা গেছে।

ভারতজুড়ে জারি কারফিউয়ের এ সময়ে মসজিদে গিয়ে নামায আদায়ের ব্যপারে বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে দেশজুড়ে জারি কারফিউ ও জনসমাগমে আরোপিত নিষেধাজ্ঞার এ সময়ে মসজিদ আবাদ রাখতে যে সমস্ত এলাকায় ভাইরাস সংক্রমণের আশংকা বেশি সেখানে ইমাম মুয়াজ্জিন ও মসজিদের প্রতিবেশ ও আহলে মসজিদগণ জামাত করুন। তাতে সরকারের সংক্রমণ রোধে জারি কারফিউ বা ভিড় পরিহারও হবে আর মসজিদ আবাদ থাকবে।

আর যেখানে ভাইরাস সংক্রমণের আশংকা কম, সেখানে ঘর থেকে ওজু ও সুন্নাত আদায় করে মসজিদে গিয়ে ফরজ আদায় করুন। ফরজ শেষে বাকি সুন্নত ঘরে ফিরেই আদায় করুন।’

ঘরে ও মসজিদে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখার ব্যাপারে সকলের বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়েছে দারুল উলুম দেওবওন্দের এ সংবাদ বিবৃতিতে।

এছাড়াও মহামারি মানুষের কৃতকর্মের ফল উল্লেখ করে মুফতী আবুল কাসেম নোমানী বলেছেন, ‘প্রতিটি মুসলমানের জন্য এই আকিদা লালন করা আবশ্যকীয় যে, আল্লাহ তায়ালার হুকুম ব্যতিরেকে কোনধরণের রোগ বা মহামারিতে মানুষ আক্রান্তে হতে পারে না। মহামারি আল্লাহ তায়ালার পক্ষ থেকে মানুষের কৃতকর্মের ফল স্বরূপ এসে থাকে। তাই আমাদের সকলের উচিৎ ও কর্তব্য হলো নিজের দ্বীনি অবস্থানকে ঠিক করা। বেশী আমলের দিকে ধাবিত হওয়া। গোনাহের কর্মকান্ড পরিহার করে তওবা ইস্তেগফারের প্রতি পূর্ণ মনোনিবেশ করা। আল্লাহ তায়ালা আমাদের সকলকে তাওফিক দান ও হেফাজত করুন।’

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com