শুক্রবার, ২৩ অগাস্ট ২০১৯, ০৬:১১ পূর্বাহ্ন

কাশ্মীরে একজন বঙ্গবন্ধু নেই

কাশ্মীরে একজন বঙ্গবন্ধু নেই

সগীর আহমদ চৌধুরী : কাশ্মীরে একজন বঙ্গবন্ধু জন্ম নেবেন দূরে থাক, একজন মেজর জিয়ারও জন্ম হয়নি, যিনি কাশ্মীরে মোতায়েন সেনাদের মধ্যে বিদ্রোহ করে কাশ্মীরের স্বাধীনতা ঘোষণা করবেন।

পাকিস্তান আন্দোলনের একজন একনিষ্ঠ কর্মী হওয়া সত্ত্বেও ভারত ভাগের পর বঙ্গবন্ধুরা মুসলিম লীগের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করে নতুন দল গঠন করেছিলেন। পক্ষান্তরে কাশ্মীরের নেতারা আজীবন কংগ্রেসের গোলামি করেছেন। স্বাধীনতার জন্য স্বপ্নেও ভাবেননি তাঁরা, বরং কাশ্মীরকে ভারতের একটা খাঁটি অঙ্গ কিভাবে রাখা যায় সেই নিয়েই বিভোর ছিলেন।

অন্য দিকে বঙ্গবন্ধু? জনরাজনীতি করেছেন, জনগণকে সংগঠিত করেছেন, অধিকারের জন্য জনগণকে বিপ্লবী মন্ত্রে উজ্জীবিত করার প্রয়াস চালিয়েছেন। তিনি ডাক দিলে লাখে লাখে জনতা ময়দানে ঝাঁপিয়ে পড়ত, হুংকার দিলে জালিমের তখতে কম্পনের সৃষ্টি হয়। কাশ্মীরে কি এমন সংগঠিত শক্তি ও নেতৃত্বের জন্ম হয়েছে?

সংগঠিত রাজনৈতিক শক্তি লাগবে, কোনো বিচ্ছিন্নতাবাদ কিংবা আপোষকামীদের দ্বারা স্বাধীনতা আসবে না, একটি বিপ্লবকামী সংগঠিত রাজনৈতিক শক্তির ওপর জুলুম-নিপীড়নের পরিপ্রেক্ষিতেই সংগ্রামের আগুন দাউদাউ করে জ্বলে ওঠে।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় নেতারা ভারতে আশ্রয় নিয়ে বিপ্লবী সরকার গঠন করেছিলেন, কাশ্মীরের গৃহবন্দী নেতারা কি পাকিস্তানে আশ্রয় নিয়ে সেই কাজটি করবেন নাকি দখলদার ভারতের সাথে হাত মিলিয়ে জনগণকে ম্যানেজ করতেই তৎপর হবেন। বিশ্বাস করুন দ্বিতীয় পথটাই তাঁরা বেঁচে নেবেন।

লেখক : রাজনীতি বিশ্লেষক

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com