৪ঠা মার্চ, ২০২১ ইং , ১৯শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ২০শে রজব, ১৪৪২ হিজরী

কুষ্টিয়ার এসপিকেই প্রিজাইডিং অফিসারের নিরাপত্তা নিশ্চিতের নির্দেশ

কুষ্টিয়ার এসপিকেই প্রিজাইডিং অফিসারের নিরাপত্তা নিশ্চিতের নির্দেশ

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা পৌরসভা নির্বাচনে চলাকালে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. মহসিন হাসানের সঙ্গে স্থানীয় এসপির দুর্ব্যবহারের সাক্ষী প্রিজাইডিং অফিসার মো. শাহজাহান আলী ও তার পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ঘটনার মূল হোতা এসপি এসএম তানভীর আরাফাতকেই নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

তলবাদেশে হাজির হয়ে এসপির নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনার পর গতকাল সোমবার বিচারপতি মামনুন রহমান ও বিচারপতি খিজির হায়াতের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে এসপির পক্ষে শুনানিতে ছিলেন সিনিয়র আইনজীবী মনসুরুল হক চৌধুরী ও আহমেদ ইশতিয়াক। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাহেরুল ইসলাম। প্রিজাইডিং অফিসারের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন ব্যারিস্টার অনিক আর হক, অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান ও জামিউল হক ফয়সাল।

এর আগে এক আবেদনের মাধ্যমে এস এম তানভীর আরাফাত ক্ষমা প্রার্থনা করে আদালতকে জানান, তিনি ম্যাজিস্ট্রেটকে চিনতে পারেননি। তাই এমন অনিচ্ছাকৃত ভুল হয়েছে। ভবিষ্যতে তিনি দায়িত্ব পালনে আরও সতর্ক হবেন। ভবিষ্যতে এ ধরনের ভুল আর কখনও হবে না।

এসপির তার আবেদনে আরও বলেন, ‘বিচার বিভাগের জন্য আমার মনে সর্বোচ্চ সম্মান রয়েছে। কোনও অবস্থাতেই বিন্দুমাত্র অসম্মান দেখানোর কথা দূরে থাক, বরং বিচার বিভাগের দেওয়া কাজে নিয়োজিত হতে পারলে নিজেকে সম্মানিত বোধ করি। এ ঘটনায় আমি মনের গভীর থেকে অনুতপ্ত। আদালতের কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করছি।’

এরপর আদালত ক্ষমার আবেদনের ওপর আদেশের জন্য আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি দিন নির্ধারণের আদেশ দেন। একইসঙ্গে আদালত এসপিকে বলেছেন, বিচার বিভাগের প্রতি আপনাদের মনোভাব আগামী দিনের কর্মকা-ে কতটা প্রতিফলিত হয়েছে, সেটা দেখতে চাই। পরে আদালত তাকে ব্যক্তিগত হাজিরা থেকে সাময়িক অব্যাহতি প্রদান করেন।

এদিকে আদালত এসপিকে তলবের পরপরই ভেড়ামারা পৌরসভা নির্বাচনের প্রিজাইডিং অফিসার ও উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মো. শাহজাহান আলী হাইকোর্টের কাছে জীবনের নিরাপত্তা চান। তিনি বলেন, পুলিশ থানায় নিয়ে তাকে ভয়ভীতি দেখিয়েছে। বিভিন্ন ধরনের কাগজে স্বাক্ষর নিয়েছে এবং তার বাড়িতে দুই জন গোয়েন্দা পুলিশ সব সময় অবস্থান করছে। এই অবস্থায় শাহজাহান আলী ও তার পরিবারের সদস্যরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। পরে ২১ জানুয়ারি বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ শাহজাহান আলী ও তার পরিবারকে নিরাপত্তা দিতে পুলিশ মহাপরিদর্শককে নির্দেশ দেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২১ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com