১৪ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ৩রা জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

গরুর মাংস নিয়ে অভিনব প্রতিবাদ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: দল বেঁধে গরুর মাংস খেয়ে ভারতে বিজেপি সরকারকে ধিক্কার জানালেন মিজোরামের হাজার দুয়েক বাসিন্দা। তাঁদের দাবি, ভারতের সংবিধান মেনে প্রত্যেক মানুষের খাদ্যাভ্যাসের মৌলিক অধিকার খর্ব করা চলবে না।

গতকাল সোমবার উত্তর-পূর্ব ভারতের কংগ্রেস-শাসিত রাজ্য মিজোরামের রাজধানী আইজলে ইন্দো-মিয়ানমার সীমান্ত পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠক করতে এসেছিলেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। আইজলে রাজ্য বিধানসভায় বৈঠকস্থল থেকে মাত্র ২০০ মিটার দূরে ভানাপা পাহাড়ে সাধারণ মানুষ জড়ো হয়েছিলেন গরু বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারির এ প্রতিবাদ জানাতে।

মিজোরামের ৮৭ দশমিক ১৬ শতাংশ মানুষই খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের। মুসলিম রয়েছে ১ দশমিক ৩৫ শতাংশ। মাত্র ২ দশমিক ৭৫ শতাংশ হিন্দুর বাস মিজোরামে। এখানকার উপজাতিদের মধ্যেও গোমাংস বেশ জনপ্রিয়। তাই মিজোরামজুড়েই চলছে গরু-বিতর্ক। তার আঁচ পেলেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও।

মিজোরামের অরাজনৈতিক স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান জোলাইফ এই অভিনব আন্দোলনের ডাক দেয়। আন্দোলনে অংশ নিয়ে হাজার দুয়েক মিজো-জনতা এদিন গরুর মাংস সহকারে পিকনিক করলেন। শান্তিপূর্ণ এই পঙ্‌ক্তিভোজনে সমস্ত রাজনৈতিক দলের সমর্থকেরাই অংশ নেন।

জোলাইফের আহ্বায়ক রেমরুলা ভেরতে সাংবাদিকদের বলেন, ‘খাদ্যাভ্যাস মানুষের ব্যক্তিগত বিষয়। কোনো রাজনীতির বিষয় নয়। ভারতের সংবিধান সব ধর্মের মানুষের জন্যই প্রযোজ্য। সেখানে গরুর মাংস খাওয়া নিষিদ্ধ নয়। সেই অধিকার রক্ষার্থেই মিজোরামের বাসিন্দাদের এই অরাজনৈতিক প্রতিবাদ।’

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২১ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com