শুক্রবার, ২৩ অগাস্ট ২০১৯, ০৬:১৮ পূর্বাহ্ন

ঢালাওভাবে হিন্দু ও ভারতের বিরুদ্ধে কথা বলবেন না : বাংলাদেশী আলেমদের আব্দুল মতিন

বাংলাদেশী আলেমদের আব্দুল মতিন

ঢালাওভাবে হিন্দু ও ভারতের বিরুদ্ধে কথা বলবেন না

 

আমরা স্বেচ্ছায় ভারতে থাকছি

-পশ্চিম বঙ্গের মুসলিম নেতা মাওলানা আব্দুল মতিন

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বরাকাতুহ

হামদ ও সালাতের পর- আজকে যে বিষয় আলোচনা করবো, তা হলো, ভারতবর্ষের মাটির যেসব হিংসাত্মক ঘটনা চলছে, ঘটছে। এই সমস্ত হিংসাত্মক ঘটনাকে প্রতিবাদ জানিয়ে সারা পৃথিবী থেকে প্রতিবাদ করা হচ্ছে। আর সেই প্রতিবাদের অংশ হিসেবেই আমাদের প্রতিবেশী রাষ্ট্র নেপালেও প্রতিবাদ হয়েছে, পাকিস্তানেও হয়েছে, বাংলাদেশেও প্রতিবাদ হয়েছে, আরো অনেক দেশেও হয়েছে।

বাংলাদেশ যারা ভারতবর্ষের মুসলিমদের উপর নির্যাতনের জন্য প্রতিবাদ করছেন, সেই সমস্ত ভাইয়েরা ৩০ জুলাই মঙ্গলবার একটি বড় সমাবেশ ডেকেছেন যে, ‘ভারতীয় সংখ্যালঘু মুসলমানদের উপর বিভিন্ন মিথ্যা অজুহাতে ভারত সরকারের অব্যাহত জুলুম-নির্যাতন, খুন-ধর্ষণ ইত্যাদির প্রতিবাদে ভারতীয় দূতাবাস অভিমুখে গণমিছিল’।

এই সমাবেশটি সফলতার আহ্বান জানিয়েছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম। তাদের এই কর্মকাণ্ডকে আমরা সাধুবাদ জানিয়ে বলছি, ভারতবর্ষের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে বাংলাদেশ থেকে যেসমস্ত প্রতিবাদ হচ্ছে, সে সমস্ত প্রতিবাদের অনেক ভিডিও, অডিও, আর্টিক্যাল আমরা পেয়েছি। একটা জিনিস মাথায় রাখা উচিৎ। দেশ হিসেবে আপনার কাছে বাংলাদেশ যেভাবে প্রিয়, ঠিক এই ভাবে আমি হিন্দুস্তানের নাগরিক হিসেবে বলছি, হিন্দুস্তান আমার কাছে অত্যন্ত প্রিয়। এক কোটি টাকা দিয়ে যদি কেউ বলে, তুমি হিন্দুস্তান ছেড়ে দিয়ে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব গ্রহণ করো, তাহলে আমি কখনো রাজি হবো না।

কেউ যদি আমাকে পঞ্চাশ কোটি টাকা দিয়ে হিন্দুস্তানের নাগরিকত্ব ছেড়ে দিয়ে পাকিস্তানের নাগরিকত্ব গ্রহণ করার কথা বলে, আমি রাজি হবো না। তো আপনারা যেমন আপনাদের দেশকে ভালোবাসেন, আমিও আমার দেশকে ভালোবাসি। এখানে আমার জন্ম, আর মৃত্যুর পরেও আমি এই মাটিতে থাকতে চাই। আপনাদের প্রতিবাদকে সাধুবাদ জানিয়ে বলছি, আপনাদের প্রতিবাদের ভাষাটা একটু শালীন হলে আমার মনে হয় ভালো হয়। কখনো কখনো আপনার এ দেশে বৃহত্তর জনগোষ্ঠীর হিন্দু সম্প্রদায়টাকে আপনারা দোষারূপ করছেন। আমার মনে হয়েছে, এটা আপনারা ঠিক করেননি।

একটা হিসাব আমি আপনাদেরকে বলি, ভারতবর্ষের টোটাল জনসংখ্যার ১৪% মুসলিম, ২% খৃষ্টান, আরো ২% অন্যান্য ধর্ম। আর ৮২% মানুষ হিন্দু। যে সরকার আমাদের উপর জুলুম বা নির্যাতন চালাচ্ছেন, সেই সরকার যে ভোট দিয়েছে মাত্র ৩৪% মানুষ। তো ৮২% থেকে যদি ৩৪% হিন্দুকে আমরা বাদই দিয়ে দেই, তাহলে এখনও থেকে যায় ৪৮% হিন্দু মানুষ। যারা কিন্তু কখনোই, সন্ত্রাস, দাঙ্গা-হাঙ্গামা, মারামারি পছন্দ করেন না। তো আপনারা যদি বাংলাদেশ থেকে মনে করেন, হিন্দুস্তানে সব হিন্দুরা মুসলমানদের উপর জুলুম করছেন, তাহলে সেটা আপনাদের ভুল ধারণা।

আপনারা হয়তো জানেন না, আমাদের প্রতিবেশি প্রচুর পরিমাণ হিন্দু মানুষ আছে, তারা আমাদের পাশে দাঁড়াচ্ছে। বিভিন্ন ক্ষেত্রে তারা আমাদের কাজে সহযোগিতা করছে। আখলাক হত্যা বলুন, সানাউল্লাহ হত্যা বলুন, তাবরেজ হত্যা বলুন, এই হত্যার ব্যাপারে আমরা যেমন সরকারের বিরুদ্ধ প্রতিবাদ করছি, ঠিক এমনিভাবে এই দেশে যথেষ্ট পরিমাণ হিন্দু মানুষ আমাদের সহযোগিতা করছেন, সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছেন। তারা আর সহযোগিতা করবে না, প্রতিবাদ করবেন।

পাশাপাশি আমি আপনাদেরকে একটা দায়িত্ব দিতে পারি, একটু যদি উদার ও মুক্তমনা হয়ে ভাবেন, আমাদের দেশে আরএসএস, বিজেপি, বজরঙ্গ দল, হিন্দু সভা, হিন্দু পরিষদ, এই সমস্ত উগ্রপন্থী সংগঠনগুলো যারা, দেশের শান্তি-সৌহার্দ্য , শৃঙ্খলা নষ্ট করছে। আর বিভিন্ন রকমের উত্তজনামূলক ভিডিও তাদের ওয়েবসাইট, ফেসবুকে ছড়াচ্ছে। তাদের এই সমস্ত জায়গায় আমরা দেখছি, তারা এমন সব ভিডিও দিচ্ছে, যা দেখে বুঝা যায়, বাংলাদেশ মুসলমানরা হিন্দুদের উপর জুলুম-নির্যাতন করছে।

আপনারা এই সমস্ত ওয়েবসাইট একটু দেখুন। তাদের ভিডিওগুলোর সত্যতা যাচাই-বাছাই করুন। তারা মিথ্যা প্রচার করছে, না সত্য প্রচার করছে? যদি সত্যিই হিন্দুরা নির্যাতনের শিকার হয় তাহলে আপনি তাদের পাশে দাঁড়ান, সহযোগিতা করুন, যারা এসব করছে তাদের নিন্দা প্রকাশ করুন। আর আমি এমন অনেক ভিডিও দেখেছি, বাংলাদেশের মুসলমানরা হিন্দুদের সাহায্য-সহযোগিতা করছেন।

আমি তাদেরকে সাধুবাদ জানাই। আর যদি দেখেন, তারা তাদের ওয়েবসাইটে এসব মিথ্যা প্রচার করছে, তাহলে আপনারা সত্যটা প্রচার করুন। দুই দেশের মাঝে শান্তি, সম্প্রীতি, সৌহার্দ্য তৈরি করার চেষ্টা করুন। আতঙ্কবাদ, সন্ত্রাস, খুন-রাহাজানি ইসলাম কখনো পছন্দ করে না। ইসলাম বরদাস্তও করে না। আর কোন মুসলমানও এটা পছন্দ করতে পারে না, বরদাস্ত করতে পারে না। এটা আপনারা আমার থেকে ভালো জানেন।

আপনারা আপনাদের দেশের দিকে নজর রাখুন। কোথাও যেন কোন হিন্দু জুলুম-নির্যাতনের শিকার না হয়। নির্যাতনের শিকার হলে আপনারা প্রতিবাদ করুন। তাদের পাশে দাঁড়ান। তাদের নিরাপত্তার দায়িত্ব গ্রহণ করুন। আর ভারতে মুসলমানরা নির্যাতনের শিকার হলে আপনারা প্রতিবাদ করুন ভালো কথা। তবে সমস্ত হিন্দুদেরকে খারাপ বলবেন না, আমার দেশের দুর্নাম-বদনাম করবেন না।

ভারতবর্ষ নিয়ে কথা না বললে আপনাদেরকে ধন্যবাদ জানাবো। কারণ, আমার দেশকে কেউ গালিগালাজ করলে আমি লজ্জিত হই, আমি অপমানিত হই। নির্দিষ্ট ব্যক্তির দোষ প্রকাশ করে আপনারা তার বিরুদ্ধে হাজারও কথা বলুন। কিন্তু সবার বিরুদ্ধে বলবেন না, তারা দাঙ্গা-হাঙ্গামা পছন্দ করেন না, সব হিন্দু খারাপ না। এই ভাবে প্রতিবাদ করলে দেখবেন হিন্দুস্তানের ৪৮% হিন্দু আপনাদেরকে স্যালুট করবে।

সুতরাং আমি চাইবো, উভয় দেশে মানুষ যে যেখানে আছেন, শান্তি, সম্প্রীতি, সৌহার্দ্যের সাথে থাকুন। আপনাদের সমাবেশ সফল হউক আমি কামনা করি। তবে অনুরোধ করবো এটা, এই সমাবেশে যেন আমার দেশের বিরুদ্ধে কোন স্লোগান দেয়া না হয়। সব হিন্দুদের বিরুদ্ধে কোন স্লোগান না হোক। যারা আতঙ্কবাদ, সন্ত্রাসবাদ, মারামারি, হানাহানি দেশে ছড়িয়ে দিচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে স্লোগান হোক। তাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ হোক।

হিন্দুস্তান আমার জন্মভূমি। এটা আমার জন্মস্থান। আমি এটাকে অত্যন্ত ভালোবাসি। এই দেশের বিরুদ্ধে কোন স্লোগান হোক এটা আমি চাই না। আপনাদের কাছে আমি অত্যন্ত বিনয়ের সঙ্গে আরজ করছি, আপনারা দেশের বিরুদ্ধে স্লোগান দিবেন না। আমার দেশের দুর্নাম-বদনাম করবেন না। দুইটি দেশ প্রতিবেশি দেশ। একে অপরের শত্রু নয়, বন্ধু। মিলে মিশে উভয় দেশের নাগরিক শান্তি, সম্প্রীতি, সৌহার্দ্যের সাথে বসবাস করুন।

গ্রন্থনা : আদিল মাহমুদ

সূত্র : পশ্চিম বঙ্গের মুসলিম নেতা মাওলানা আব্দুল মতিন-এর সরাসরি ভিডিও বার্তা থেকে সংগৃহীত

মাওলানা আব্দুল মতিন, অল ইন্ডিয়া আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের সম্পাদক

সরাসরি মাওলানা আব্দুল মতিন-এর ভিডিওটা দেখুন

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com