৩০শে অক্টোবর, ২০২০ ইং , ১৪ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ১২ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২ হিজরী

তাড়িয়ে দিও না | মুহাম্মাদ আইয়ুব

তাড়িয়ে দিও না | মুহাম্মাদ আইয়ুব

ওয়েলকাম টু আওর হোম, ওয়েলকাম টু আওর হোম
– তিতলি দেখ তো গেইটে কে আসছে
– জ্বে ম্যাডাম
– মা কইডা ভিক্ষা দেও
– ম্যাডাম ফহির আইছে
– চলে যেতে বল ভিক্ষা নাই।
– তিতলি এদিকে এসো।
– জ্বে স্যার
– এই টাকাটা তাকে দাও
– তোমার মাথা খারাপ হইছে, দশ টাকার একটা নোট দিলেই তো পারতে, পাঁচশো টাকার নোট দিলে কেন, আলিবাবার সম্পত্তি পেয়ে গেছ তাইনা?
– দশ টাকায় আজকাল কি হয়? করোনা ভাইরাসের সঙ্কট মাথার উপর। যে টাকায় এক বোতল পানিও মিলে না ঐ টাকা দেওয়ার চেয়ে না দেওয়াই ভাল। দেশের কি ভয়াবহ পরিস্থিতি হচ্ছে দিন দিন। কেউ তো আর সাধে ভিক্ষা করতে পথে নামেনা।আমরা তো কত ভাল আছি উপরওয়ালার দয়ায়।কারো কাছে হাত পাততে হচ্ছেনা। আর টেলিভিশনে দেখ, এক প্যাকেট ত্রাণ নেওয়ার জন্য রোদে পুড়ে লাইনে দাঁড়াও, ছবির জন্য পোজ দাও আরো কত কি! আমাদের তো আর রাস্তায় নামা লাগছেনা।
– রাস্তায় নেমে হাত পাততে আর কতদিন! যেভাবে দান সদকা করা শুরু করছ তাতে পথে নামতে বেশিদিন লাগবেনা।
– ওভাবে বলছ কেন শায়লা? আমি তো মনে করি এই ফকির মিসকিনদের দোয়াতেই আমি ভাল বেতনে নাম করা এক কোম্পানিতে জব পেয়েছি, আব্বা আম্মাকে হজ্ব করিয়ে নিয়ে আসলাম, কত অল্প সময়ে পাগলায় জায়গা জমি কিনেছি। সাত রাজার ধন নিয়ে তো আর দুনিয়া তে আসিনি যে, এসব রাতারাতি হয়ে গেছে! সব ওদের দোয়া।
– হয়েছে হয়েছে আর বলতে হবে না। এখন যেভাবে ভিক্ষুকদের বিলাচ্ছ তাতে মনে হয় তুমি সাতরাজার ধনই পেয়েছ।
– তোমাকে মজার একটা কথা বলি শায়লা? আমি তোমাকে প্রচন্ডরকমের ভালবাসি বলেই দান সদকা করি।
– ইয়ার্কি করার সময় পেলে না?
– ইয়ার্কি না সিরিয়াস। তুমি কি একটা বিষয় খেয়াল করেছ, তুমি বড় বড় বিপদে পড়তে যেয়েও পড়না! মনে পড়ে সেদিন রান্নাঘরের ঘটনা? একটুর জন্য শেখ হাসিনা বার্ণ ইন্সটিটিউটে যাওয়া লাগেনি! গত অগাস্টে উপর থেকে ফ্যান খুলে পড়ে গেল তার দশ সেকেন্ড আগে তুমি ফ্যানের নিচ থেকে উঠে গেলে? আমাদের সোনামণি মিতু কি মারাত্মকভাবে খাট থেকে পড়ে গিয়েও অলৌকিক ভাবে বেঁচে গেল! এসব বিষয় তুমি কি ভাবে নাও জানিনা বাকি আমি উপলব্ধি করি যে, এগুলো হচ্ছে আমাদের দান সদকার সুফল। আমাদের মহানবী সাঃ বলেছেন, ‘দান সদকা বিপদাপদ প্রতিহত করে এবং আল্লাহর রাগ গোস্বা ঠান্ডা করে’। সুতরাং গেইটে বা রাস্তায় কোনখানেই ভিক্ষুক তুচ্ছতাচ্ছিল্য ভরে দেখতে নেই,তাড়িয়ে দিতে নেই! আজ আমিও তার জায়গায় থাকতে পারতেম তুমিও পারতে কিন্তু না,আল্লাহ আমাদের কত ভাল অবস্থানে রেখেছেন!
আমাদের মহানবীকে আল্লাহ পাক শক্তভাবে বলেছেন যে ‘ভিক্ষুককে তাড়িয়ে দিওনা।’ সুতরাং আমাদের কি উচিত হবে এ জঘন্য কাজ করা?
শায়লা!
– বল
– তুমি আজ সামাজিকভাবে একটা নিন্দনীয় কাজ করলে।
– ও মা! আমি আবার কি করলাম?
– এক মেহমানকে ঘরে আসার জন্য সুস্বাগতম জানালে আবার তাকেই ঘরে ঢোকার আগেই ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বের করতে চাইলে, এটা কি ভাল হয়েছে বল?
– কখন মেহমান আসল আর আমি বের করতে চাইলাম?
– এই যে, ভিক্ষুক!
– ও আমাদের মেহমান?
– মেহমান না হলে কেন বললে ওয়েলকাম টু আওর হোম! হা হা হা …

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com