২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং , ৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ৬ই সফর, ১৪৪২ হিজরী

তারাও মুসলিম, আমরাও মুসলিম

তারাও মুসলিম, আমরাও মুসলিম

মুহাম্মাদ আইয়ুব :: মাত্র ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইলের একটি দেশ তার ভিতর আছে হাজারো বাংলাদেশ! গনতন্ত্রের নামে আওয়ামীলীগ, বিএনপি, জাতীয়পার্টি, ইসলামী আন্দোলন, জাসদ, বাসদ, গণফোরাম, এলডিপি, জেপি, বাংলাদেশ সাম্যবাদি দল, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ, বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টি, গণতন্ত্রীপার্টি, ন্যাপ, জেএসডি, বিকল্পধারা বাংলাদেশ, ওয়কার্সপার্টি, সাম্যবাদিপার্টি, খেলাফত মজলিস, খেলাফত আন্দোলন, জমিয়তুল উলামা আরো অনেক অনেক!

একদলের নেতা কর্মীরা অন্য দলকে দেখতে পারেন না!! মারামারি-হানাহানি, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, হামলা-মামলা এখানে সবই চলে সমস্যা নাই। মজার ব্যাপার হলো, যার দল নাই তার ত্রাণ ও নাই।

এখানে ধর্মের নামে আছে শিয়া, বেদআতি, কওমি, আলিয়া, তাবলিগ, পিরালি, ওহাবি, আটরশি, মাইজভান্ডারি, চন্দ্রপুরী, এনায়েতপুরি, চরমোনাই, রাজারবাগি, দেওয়ানবাগি, কুতুববাগি, আহলে হাদিস, আহলে কুরআন, আহলে সুন্নাহ উল্লেখিত অধিকাংশরাই নিজেদের ব্যাপারে ধারণা রাখে যে, সহিহ ইসলামের উপর তারাই আছেন বাকিরা গুমরাহ! পথভ্রষ্ট!! জাহান্নামি!!!

ওয়াজের ময়দানেও মাশাআল্লাহ এক অভিন্ন চিত্র। আজহারি, নদভী, মাদানি, সাঈদি, কাসেমি, সিদ্দিকী, ফারুকি, কুরায়শি, এই গঞ্জি সেই গঞ্জি, অমুক পুরি তমুক পুরি! প্রত্যকেরই ভক্ত অনুরক্ত আলাদা আলাদা। বয়ানের মাঠেও নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী একে অপরকে ছাড় দিয়ে কথা বলতে নারাজ। টাউট বাটপার মুখে যা আসে তা-ই বলতে থাকেন কুরআন তাফসিরের মাহফিলে!

মানুষ মাত্রই দলমত, ব্যক্তি, পছন্দ-অপছন্দ থাকতেই পারে; কিন্তু এই পছন্দ-অপছন্দ আর মিল- অমিলই যখন সমাজ থেকে শান্তি উঠিয়ে দেয় তখন আমরা চিন্তিত হয়ে পড়ি আমরাই কি সেই মুসলমান! যাদের পূর্বসূরিদের ব্যাপারে মহান আল্লাহ পাক সুরা ফাতাহের ভিতর বলেছেন, ‘কাফেরদের ব্যাপারে তারা খুব কঠোর আর পরস্পরের মাঝে অত্যন্ত কোমল।’ অথচ আমাদের আজকের মুসলিম সমাজের সাথে উল্লেখিত আয়াত খাপ খায়না আফসোস! যে দেশের মুসলমানরা মসজিদে কতজন নামাজ পড়বে এটা নিয়ে ঝগড়া করে মানুষ খুন করে ফেলে, আধিপত্য বিস্তারের লড়াইয়ে জীবন্ত মানুষের পা কেটে বিজয়োল্লাস করে তারা তো বর্বরতায় জাহেলিয়াতকেও হার মানিয়েছে।

সুতরাং তারা আবার কোন যুক্তিতে বলে আমরা মুসলমান?! আমরা আল্লাহর রহমতের ভাগীদার?!! যা ভাবছ তা না মনা! আল্লাহর রহমত পেতে ঐক্য লাগে। যে কথা মহান মাওলা পবিত্র কুরআনে স্পষ্ট ভাষায় বলেছেন, ‘তোমরা আল্লাহর রজ্জুকে (তাঁর বিধান)শক্ত করে আঁকড়ে ধর এবং বিভক্ত হয়ে যেওনা না।’

আর ঐক্যবদ্ধ থাকার যে কি লাভ তা তিনি উল্লেখিত আয়াতের সামনের অংশ স্পষ্ট করে দিচ্ছেন যে, ‘এবং তোমাদের উপর আল্লাহর যে অনুগ্রহ রয়েছে তা স্মরণ কর, যখন তোমরা পরস্পর শত্রু ছিলে তখন তিনিই তোমাদের অন্তরে ভালবাসা স্থাপন করেছেন অতঃপর তোমরা তাঁর অনুগ্রহে ভাই ভাই হয়ে গেলে।’ {সুরা আলে ইমরান, আয়াত নং ১০৩}

প্রিয় পাঠক! আপনি জানেন কি! ইসলামের বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ার অন্যতম মূল রহস্য ছিল মুসলমানদের একতা। আবার আজকে বিশ্বব্যাপী মুসলমানদের পরাজয়ের মূল কারণ কিন্তু তাদের বিভক্তি! যেভাবে হয় বিভক্তি! এ দেশে এক শ্রেণির মানুষ আলেম-উলামা, মসজিদ, মাদ্রাসা নিয়ে কটাক্ষ করে। আবার অন্য শ্রেণী কালেমাওয়ালাদেরই কাফের নাস্তিক মুরতাদ ফতোয়া দিয়ে দেয়! এক গ্রুপ সমালোচনা করে তাবলিগ জামাতের অপর গ্রুপ পীর মুরিদির! কেউ বলে আলিয়া খালিয়া আবার কেউ বলে কওমিরা ওয়াহাবি! ধর্মের নামে কেউ মাজারে সেজদা দিচ্ছে কেউবা আবার গাঁজা খাচ্ছে!

আজ বিশ বছর যাবত এই ছোট্ট একটি রাষ্ট্রের মুসলমানদের ভিতরকার এসব বিভক্তি দেখে আসছি
আরো দেখছি তুচ্ছ তুচ্ছ বিষয়ে দিন দিন ঐক্যের তসবিহ থেকে একটা একটা করে দানা কিভাবে খসে পড়ে। বর্তমানে আমাদের ঈমানের যে দশা তাতে আমি আপন মনে ভাবি বারো মাসের বারো মাসই যদি রমজান হয় আর ত্রিশ দিন তিনভাগ না হয়ে যদি সব দিন রহমতেরই হয় তারপরও তো আমরা আল্লাহর রহমত থেকে বঞ্চিত হব; যদি না আমরা সবাই ঐক্যের মিছিলে শামিল না হই। মতের অমিল থাকবেই এটা দোষের কিছু না তবে এই অমিলই যদি মুখ দেখাদেখি বন্ধ করে দেয়, হাত পা আর রগ কাটা যায়, জীবন নাশ হয়ে যায় তাহলে এটা মারাত্মক দোষের, চরম লজ্জার।

সাহাবায়ে কেরামের মাঝেও মতপার্থক্য ছিল তবে তাঁদের পারস্পরিক ভালোবাসা, সহমর্মিতা আর সম্প্রীতির মাঝে কোন ফাটল ছিলনা। তাই তাঁরা দুনিয়া, আখেরাত উভয় জাহানে হয়েছেন সফল আর আমরা সবখানেই ফেল আর ফেল! অথচ তাঁরাও ছিলেন মুসলিম আর আমরাও মুসলিম! তবে ঐ সেকালের মুসলিম আর একালের মুসলিমের মাঝে আকাশ পাতাল ব্যবধান।

প্রিয় পাঠক! আল্লাহর রহমতের দরিয়ায় হাবুডুবু খেতে দরকার মুসলমানদের হারিয়ে যাওয়া ঐক্য ফিরেয়ে আনা। সুতরাং করোনাকে গুডবাই জানাতে, আল্লাহর রহমত ঘরে আনতে আসুন আমরা আমাদের মাঝে ফিরিয়ে আনি সাহাবায়ে কেরামের ঐক্য আর ভালবাসা। আল্লাহ পাক আমাদেরকে তাওফিক দান করুন। আমিন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com