৩০শে মার্চ, ২০২০ ইং , ১৬ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ৫ই শাবান, ১৪৪১ হিজরী

দিল্লিতে ভরাডুবি বিজেপির; আপ-এর ৭০ এ ৬৩

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : এই নিয়ে তিনবার দিল্লিতে ভরাডুবির শিকার বিজেপি। দিল্লির মসনদে ফের বসতে চলেছে কেজরিওয়ালের আপ সরকার। অন্যদিকে টানা তিন দফা মসনদে থেকে হ্যাটট্রিক গড়ল আম আদমি পার্টি (আপ)।

এবারের বিধানসভা নির্বাচনে অনেকেই বুঝতে পারছিলেন না কোনদিকে ঝুঁকবে দিল্লিবাসী। ধর্ম না উন্নয়ন এই দোটানায় আটকে গিয়েছিলেন অনেকেই। অবশেষে জল্পনার অবসান ঘটিয়ে বুথ ফেরত সমীক্ষাই সত্যি হল। ৩৬-এর ম্যাজিক ফিগার টপকে ৭০ আসনের ৬৩ আসন দখল করল আম আদমি পার্টি। বিজেপির ধর্মীয় মেরুকরণের রাজনীতিকে হেলায় সরিয়ে আপকেই বিপুল ভোটে জয়ী করল আমজনতা।

শেষবারের নির্বাচনে ৩২ শতাংশ ভোট পেয়েছিল বিজেপি। এবারে তা ৩৮.৭২ শতাংশ। আপ ভোট পেয়েছে ৫৩.১৪ শতাংশ ভোট। অদ্ভূতভাবেই এবারেও কংগ্রেসে আস্থা রাখেনি সাধারণ মানুষ। কার্যত ধুয়েমুছে সাফ হয়ে গিয়েছে তাঁরা। দিল্লিতে তিনবার সরকার গড়া কংগ্রেস পেয়েছে মাত্র ৪.৩০ শতাংশ ভোট। ঝুলিতে এল না একটি আসনও।

মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকালে আটটা থেকে গণনা শুরু হতেই ঝড় তোলে আপ। প্রথম থেকেই বিজেপিকে পিছনে ফেলে এগিয়ে যেতে থাকে। সকাল থেকেই নিজের কেন্দ্রে এগিয়ে ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। পটপরগঞ্জে উপমুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিশোদিয়া প্রথমদিকে কিছুটা পিছিয়ে পড়লেও পরে তিনিও বাজিমাত করেন। বিকাল ৪ টার মধ্যে আপের আসন সংখ্যা যেখানে ৬৩-তে গিয়ে ঠেকে। সেখানে কমতে কমতে বিজেপির আসন সংখ্যা এসে ঠেকে সাতে। ফলস্বরূপ গত ৫ বছরে সাধারণ মানুষের জন্য যে জনকল্যাণমুখী প্রকল্প তৈরি করেছিল আপ তার রূপায়ণের উপরেই আস্থা রাখল দিল্লিবাসী। জয় নিশ্চিত বুঝতে পেরে দিল্লিতে আপের দলীয় কর্মী-সমর্থকরা আনন্দে মেতে ওঠেন। শুরু হয়ে যায় উৎসব।

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, রাজধানীতে বসবাসকারীদের জন্য বিদ্যুতের বিলে ২০০ ইউনিট পর্যন্ত ছাড়, মহিলাদের জন্য সরকারি বাসে বিনামূল্যে যাতায়াত, নারী সুরক্ষায় জোর, বিনামূল্যে প্রতিদিন ৭০০ লিটার পর্যন্ত জল পরিষেবা, স্বাস্থ্য পরিষেবা এবং পঠনপাঠনে উন্নতির মতো একাধিক প্রকল্প বাস্তবায়িত করেছে আপ সরকার। এর সামনে ধাক্কা খেয়েছে বিজেপির সিএএ, এনপিআর, এনআরসি নীতি।

মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে পর দিল্লিতে জয় যখন একপ্রকার নিশ্চিত, তখনই দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে শুভেচ্ছা জানান পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বলেন, ‘দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে আপের জয় একপ্রকার নিশ্চিত।’ দিল্লিবাসীকেও অভিনন্দন জানিয়ে তিনি বলেন, ‘বিজেপি ঘৃণ্য রাজনীতি করা সত্ত্বেও সেখানে জয় হয়েছে মানুষের। বিজেপি তার সর্বস্ব দিয়েছিল দিল্লি জেতার জন্য। কিন্তু জিততে পারেনি। যেখানেই নির্বাচন হচ্ছে, সেখানেই বিজেপির হার অব্যাহত। মানুষ এই ঘৃণ্য রাজনীতি পছন্দ করছে না। মানুষ উন্নয়ন চায়। রাজনীতি হোক শুধুমাত্র উন্নয়ন এবং শান্তির জন্য।’

এদিকে বিকেলের পর যখন প্রায় ৬৩টি আসন দখলের পথে আপ তখনই দিল্লিবাসীর উদ্দেশ্যে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন কেজরিওয়ালও। বলেন, ‘এই জয় দিল্লির মানুষের জয়। উন্নয়নের পক্ষেই ভোট দিয়েছে দিল্লিবাসী।’ কিন্তু বিপুল ভোটে জয়ী হওয়ার পর একবারও প্রতিপক্ষ বিজেপির নাম শোনা যায়নি তার মুখে। বরং কাজ দেখেই মানুষ তাদের ভোট দিয়েছেন, বার বার এমনটাই বলতে শোনা গেছে তাকে।

অন্যদিকে, ফল ঘোষণার পর দিল্লি বিজেপির সভাপতি মনোজ তেওয়ারি হারের দায় স্বীকার করে নিয়ে অভিনন্দন জানিয়েছেন কেজরিওয়ালকে।

 

সূত্র : বর্তমান নিউয

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com