৪ঠা আগস্ট, ২০২০ ইং , ২০শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ১৩ই জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী

দ্বীনের কাজে অগ্রগামীতার সওয়াব বিপুল : তাড়াইলের ইজতেমায় আল্লামা মাসঊদ

দ্বীনের কাজে অগ্রগামীতার সওয়াব বিপুল : তাড়াইলের ইজতেমায় আল্লামা মাসঊদ

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : কিশোরগঞ্জের তাড়াইলের বেলঙ্কা জামিয়াতুল ইসলাহ ময়দানে আয়োজিত ইসলাহী ইজতেমায় সময়ের আগেই উপস্থিতি মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহের গ্র্যান্ড ইমাম, বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামা চেয়ারম্যান ও আওলাদে রাসূল হজরত আসাদ মাদানি (রহ.)-এর খলিফা আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ বলেন, দ্বীনের কাজে অগ্রগামীতার সওয়াব বিপুল হয়ে থাকে। আপনার যারা আল্লাহ সন্তুষ্টি অর্জনের লক্ষ্যে সময়ের আগেই এ ইসলাহী ইজতেমায় এসে উপস্থিত হয়েছেন, আল্লাহ আপনাদেরকে অন্যদের তুলনায় অনেক বেশি সওয়াব দান করবেন।

‘দ্বীনের কাজে অগ্রগামীতার সওয়াব বিপুল হয়ে থাকে’ এর একটি উদাহরণ টেনে ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহের গ্র্যান্ড ইমাম বলেন, মুতার যুদ্ধে যাওয়ার আগে হযরত আবদুল্লাহ ইবনে রাওয়াহা (রা.)-যখন নবীজী মুহাম্মদ (সা.)-এর পিছনে শেষ নামাজ আদায় করলেন, আর নামাজের সালাম ফিরে নবীজী (সা.) যখন দেখলেন তিনি এখনো যুদ্ধে রওয়ানা দেননি, তখন নবীজী (সা.) বললেন, ‘তুমি এখনো কেন রওয়ানা করলে না’? তখন হজরত আবদুল্লাহ ইবনে রাওয়াহা (রা.) বলেন, ‘আমি তো বুঝেই গেছে এই যুদ্ধে আমি শহীদ হয়ে যাবো, তাই আপনার পিছনে শেষ নামাজ পড়ে নিলাম’। একথা শুনে নবীজী (সা.) বলেন, ‘তোমার এখন কি মনে হয়, তোমার যুদ্ধগামী সাথীরা তোমার থেকে এতটুকু এগিয়েছে’? আবদুল্লাহ ইবনে রাওয়াহা (রা.) বলেন, ‘এক সকাল কিংবা এক বিকালের দূরত্ব’। তখন নবীজী (সা.) বললেন, ‘তারা তোমার থেকে পাঁচশো বছর এগিয়ে আছে’।

আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ বলেন, আমারা যারা এ ইসলাহী ইজতেমায় আগেই চলে এসেছি, আমরা আশা করি, আল্লাহ তাআলা আমাদেরকে অন্যদের তুলনায় অনেক বেশি সওয়ার দান করবেন।

বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বাদ এশা কিশোরগঞ্জের তাড়াইলের বেলঙ্কা জামিয়াতুল ইসলাহ ময়দানে ইসলাহী ইজতেমার কিতাবি তালিমে আওলাদে রাসূল হজরত আসাদ মাদানি (রহ.)-এর খলিফা আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ এসব কথা বলেন।

মেহনত করলে তার ফল অবশ্যই পাবে জানিয়ে বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামা চেয়ারম্যান বলেন, যে কোন কাজে মেহনাতের সাথে মন থেকে করলে আল্লাহ তাআলা তার ফল অবশ্যই দেবে। আপনি যখন ইসলাম ও দ্বীনের জন্য কাজ করবেন, তখন তার প্রতিদান অবশ্যই আল্লাহ তাআলা আপনাকে দুনিয়া ও আখেরাতে দেবেন।

তিনি বলেন, হজরত সালমান ফারসী (রা.) ৩০০ বছর হায়াত পেয়েছিলেন। তিনি সত্যের সন্ধান করেছেন, ইসলামকে খুঁজেছেন, তাই হেদায়ত পেছেন। ইসলামের জন্য তিনি অনেক মুজাহাদা করেছেন, এজন্য আল্লাহ তাঁকে গোলামির জিন্দেগী থেকে মুক্তি দিয়েছন। সাহাবী হওয়ার সৌভাগ্য দান করেছন।

আল্লামা মাসঊদ বলেন, আমরা এখানে যে কষ্ট মুজাহাদা করবো, তার প্রতিদান অবশ্যই আল্লাহর কাছ থেকে পাবো, বিপুল পরিমানে পাবো।

জুমআর দিনের আমলের ফজিলত বর্ণানা করে শোলাকিয়া ঈদগাহের গ্র্যান্ড ইমাম বলেন, আজ শুক্রবার রাত। পবিত্র জুমআর দিন। সূর্য উদিত হওয়ার দিনগুলোর মধ্যে জুমআর দিন সর্বোত্তম। তাই একসাথে আমালের মধ্য দিয়ে আজকের রাত কাটাই। তওবা করি পিছনের সব গুনাহ থেকে।

আল্লামা মাসঊদ বলেন, আমাদের এ ময়দান এখন মসজিদের হুকুমে আছে। মসজিদের যেসব আদায় আছে, আমরা সেসব আদব রক্ষা করে এখানে থাকবো। বিশেষ করে অনর্থক কথা বলা থেকে বিরত থাকবো।

প্রসঙ্গত, ১৪ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার থেকে ইসলাহী ইজতেমা শুরু হওয়ার কথা থাকলেও কয়েক হাজার ধর্মপ্রাণ মুসল্লির উপস্থিতিতে বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বাদ আসর ইসলাহী বয়ানের মধ্য দিয়ে সময়ের আগেই শুরু হয়ে গেছে আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদের আহ্বানে আয়োজিত কিশোরগঞ্জের তাড়াইলের ইসলাহী ইজতেমা।

ইসলাহী ইজতেমার আখেরী মোনাজাত হবে ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ রোববার সকালে।

ইজতেমা কর্তৃপক্ষের সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার বেলঙ্কা জামিয়াতুল ইসলাহ ময়দানে জুমার বয়ান ও নামাজ পড়াবেন ভারতের জমিয়তে উলামা হিন্দের জাদরেল নেতা, ভারতের প্রাচীন মাদ্রাসা ‘আমরুহামাদ্রাসার’ সদরুল মুদাররিস ও মুহাদ্দিস মাওলানা কারী আফ্ফান মনসুরপুরী।

প্রসঙ্গত, প্রতিবছরই শীতের সৃজনে কিশোরগঞ্জের তাড়াইলের বেলঙ্কা জামিয়াতুল ইসলাহ ময়দানে আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদের আহ্বানে মানুষের আধ্যাত্মিক পরিবর্তনের প্রত্যাশায় ভাটির মানুষের দ্বীনী উন্নয়নে এই ইসলাহী ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়। ইতোমধ্যেই ব্যাপক সাড়া পড়েছে এই ইজতেমার। এখানে বিশেষ ব্যবস্থায় নারীদের জন্যও পৃথক ভাবে আলোচনা শোনার সুযোগ আছে। এছাড়া শিক্ষার্থী, শিক্ষক, যুবক–তরুণদের জন্যও আলাদা আলাদা বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিদিনই বাইয়াতেরও সুযোগ থাকে। প্রতিবছরই কেউ না কেউ হযরতের খেলাফত লাভেও ধন্য হন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com