৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং , ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ১৮ই রবিউস-সানি, ১৪৪২ হিজরী

নবীজীকে অবমাননায় ম্যাক্রোকে আরব খ্রিস্টানদের নিন্দা

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে অপমান করতে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট অ্যামানুয়েল ম্যাক্রোর মন্তব্যে ফুঁসে ওঠেছে মুসলিম উম্মাহ। অনেক আরব খ্রিস্টানদের তোপের মুখে পড়েছে প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রো। তার এ বক্তব্যের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে তারা। খবর আনাদোলু এজেন্সি।

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট অ্যামানুয়েল ম্যাক্রো গত বুধবার এক বক্তব্যে বলেন, মুহাম্মাদকে (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) অবমাননা করে প্রকাশিত কার্টুন প্রকাশে বাধা দেবেন না তিনি। কেননা এটি বাক-স্বাধীনতার উপর হস্তক্ষেপ। বাক স্বাধীনতার অজুহাতে ম্যাক্রোঁর এমন বক্তব্যের পর আরবের খ্রিস্টান কমিউনিটিসহ ও মুসলিম বিশ্বে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে।

বিশ্বব্যাপী গণমাধ্যমগুলো ম্যাক্রোর এমন বিবেকহীন মন্তব্যের বিষয়ে প্রতিবাদ ও সমালোচনার প্রতিবেদন তুলে ধরেন। কাতারভিত্তিক নিউজ চ্যানেল আলজাজিরা (আরবির) একজন সিনিয়র অ্যাংকর জালাল চাহদা তার ফেসবুক, টুইটার ও ইন্সটাগ্রামে এ ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান-

‘আমি জালাল চাহদা একজন আরব লেভান্তিন খ্রিস্টান। আমি ইসলামের নবি, বার্তাবাহক মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে অবমাননার বিষয়টি জোরালোভাবে প্রত্যাখ্যান করছি। সা. এর অবমাননাকে জোরালোভাবে প্রত্যাখ্যান করছি এবং নিন্দা জানাচ্ছি।

জালাল চাহদা একটি ছবি সংযুক্ত করে আরও লিখেছেন- ‘মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের প্রতি আল্লাহ মঙ্গল করুন এবং তাকে শান্তি দান করুন। তার এমন টুইটের পর চাহদার মুসলিম সহকর্মীরা তার প্রশংসা করেও টুইট করেছেন।

ঘাদা ওয়াইস নামে আল-জাজিরার আরেকজন খ্রিস্টান প্রেজেন্টার চাহদার ‘টুইট’কে রি-টুইট করেছেন। তিনি লিখেছেন- ‘আমি মুসলমানদের অনুভূতিতে আঘাত করতে বা সন্ত্রাসবাদকে সাধারণীকরণ ও ইসলামের সঙ্গে সংযুক্ত করতে অস্বীকার করি।’

এ ছাড়াও মুসলিমদের আরব খ্রিস্টান বন্ধু ও শুভাকাঙ্খীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফ্রান্স ও ম্যাক্রোর প্রতি জানিয়েছেন প্রতিবাদ ও নিন্দা। তাহলো-
জর্দানের আইমান দাবাবনেহ এক টুইট বার্তায় জানান, যে মুসলিম ভাইদের অপমান করে এবং তাকে সম্মান করে না; জর্ডানের একজ খ্রিস্টান হিসেবে তারা আমাকেও সম্মান করে না। তিনি টুইটারে আরো লিখেন- ইসলাম বিদ্বেষীদের বিরুদ্ধে আমি একজন খ্রিস্টান।

মাইকেল আইয়ুব টুইটারে বলেছিলেন: ‘আমি সেই ব্যক্তিকে সত্যিই ঘৃণা করি যিনি অন্যের ধর্মের অবমাননা করে বা তাকে বা তার রাসুলদের উপহাস করে। ফ্রান্সে যা ঘটছে তা একটি অবক্ষয়। আর এ অবক্ষয়ের মাধ্যমে বুঝা যায় যে, তারা বাইবেলের শিক্ষা থেকেও অনেক দূরে অবস্থান করছে।’

মিসরের রেমন্ড মাহের তার টুইটার অ্যাকাউন্টে লিখেছেন- ‘গতকাল থেকে আমি আমার ফেসবুক নিউজফিডে যা দেখছি তা হল খ্রিস্টানরা হজরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে অপমান করায় নিন্দা ও প্রতিবাদে পোস্ট করছে। আর তাতে সুস্পষ্ট যে, মিসরে আমাদের প্রকৃতি কেমন। মিসরে আমরা (মুসলিম ও খ্রিস্টান) এক।’

নেভিন মালাক নামে মিসরের এক আইনজীবীও নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের অবমাননার বিরুদ্ধে হ্যাশট্যাগ ‘(#Against insulting the prophet’) ব্যবহার করে টুইট করেছেন। তিনি বাইবেলের কথা তুলে ধরে অন্য ধর্মের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের কথা বলেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ফাথি ড্যানিয়েল ও ওয়েল এলব্যাটলসহ ডজনেরও বেশি খ্রিস্টান শুভাকাঙ্খী মুসলিমদের প্রশংসা করেছেন।

উল্লেখ্য, বিগত কয়েকদিন ধরে ফ্রান্সের কয়েকটি সরকারি ভবনের সামনে সম্মুখভাগে ইসলামের নবি হজরত মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের ব্যঙ্গচিত্র টানিয়ে রাখা হয়েছে। আর তাতে সাহস ও সম্মতি দিয়েছে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট অ্যামানুয়েল ম্যাক্রো। ম্যাক্রোর প্রতি আরব খ্রিস্টানরা জানিয়েছে নিন্দা ও প্রতিবাদ।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com