৪ঠা মার্চ, ২০২১ ইং , ১৯শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ২০শে রজব, ১৪৪২ হিজরী

নিয়ন্ত্রণে সেরাম ইনস্টিটিউটের নির্মাণাধীন ভবনের আগুন; নিহত ৫

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় এবং ব্রিটিশ-সুইডিশ ফার্ম অ্যাস্ট্রাজেনেকার সঙ্গে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে কভিড ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের নির্মাণাধীন ভবনে অগ্নিকাণ্ডে ৫ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। আরো কয়েকজন ভেতরে আটকা পড়েছেন বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। তবে আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে।

বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) সেরাম ইনস্টিটিউটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আদর পুনেওয়ালা এক টুইটে বলেছেন, আমরা এইমাত্র কিছু দুঃখজনক হালনাগাদ পেলাম। খোঁজখবর নিয়ে দেখেছি দুঃখজনকভাবে এই ঘটনায় কয়েকজনের প্রাণহানি ঘটেছে। আমরা গভীরভাবে শোকাহত এবং নিহতদের পরিবারের সদস্যদের প্রতি আমাদের সমবেদনা।

ফায়ার সার্ভিসের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, তিন ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে।

বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) দুপুরের দিকে ভারতে পুনেতে সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়ায় একটি নির্মাণাধীন ভবনে আগুন লাগে। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় এবং ব্রিটিশ-সুইডিশ ফার্ম অ্যাস্ট্রাজেনেকার সঙ্গে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে কভিড ভ্যাকসিন উৎপাদন করছে এই কোম্পানি। কর্তৃপক্ষ বলেছে, এই অগ্নিকাণ্ডে ভ্যাকসিন উৎপাদন ব্যাহত হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই।

সূত্র জানায়, কোম্পানির যে স্থাপনায় কভিড ভ্যাকসিন উৎপাদন করা হচ্ছে সেখান থেকে কয়েক মিনিটের পথ দূরেই নির্মাণাধীন মনজারি কমপ্লেক্সে আগুন লাগে। কমপ্লেক্সটি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলের (এসইজেড) অংশ বলে মনে করা হচ্ছে।

ভবিষ্যতে সেরামের ভ্যাকসিন উৎপাদনের সক্ষমতা বাড়াতে মানজারি কমপ্লেক্সে আট-নয়টি ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। আগুন সেখানেই লাগে।

ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান। তাদের উৎপাদন কারখানাটি পুনেতে একশ একর জায়গাজুড়ে বিস্তৃত।

গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত ছবি ও ভিডিওতে ভবন থেকে প্রচুর ধোঁয়া বের হতে দেখা যায়। তবে কীভাবে আগুনের সূত্রপাত সে সম্পর্কে এখনো নিশ্চিত নয় ফায়ার সার্ভিস। ওই এলাকায় বড় আকারের নির্মাণকাজ চলছে, এর সঙ্গে অগ্নিকাণ্ডের যোগ থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, দেশব্যাপী ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরুর আগে গত নভেম্বরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি করোনভাইরাস ভ্যাকসিনের উৎপাদন সম্পর্কে খোঁজখবর নিতে সেরাম ইনস্টিটিউট পরিদর্শন করেছিলেন।

কভিশিল্ড এবং হায়দ্রাবাদভিত্তিক ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিন জরুরিভিত্তিতে প্রয়োগের অনুমতি দিয়েছে ভারতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ডিসিজিআই। গত সপ্তাহ থেকে দেশব্যাপী শুরু হয়েছে টিকাদান কর্মসূচি। বিশ্বের বৃহত্তম কভিড টিকা কর্মসূচি এটি। প্রথম পর্যায়ে তিন কোটি ডোজ টিকা করোনা মোকাবেলায় স্বাস্থ্যসেবা ও সম্মুখসারির কর্মীদের দেয়া হবে বলে জানিয়েছে ভারত সরকার।

এদিকে বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) বাংলাদেশকে প্রায় ১৮ লাখ কভিশিল্ড টিকা হস্তান্তর করেছে ভারত। এই টিকাও উৎপাদন করেছে সেরাম ইনস্টিটিউট।

সেরাম ইনস্টিটিউট উৎপাদন করে পোলিও, ডিপথেরিয়া, ধনুষ্টংকার, হেপাটাইটিস বি, হাম, মাম্পস এবং রুবেলার ভ্যাকসিন। এই ভ্যাকসিন ১৭০টির বেশি দেশে রফতানি করে তারা।

সাম্প্রতিক সময়ে পুনের বিশাল ক্যাম্পাসে অবকাঠামো উন্নয়ন ও সম্প্রসারণে প্রায় একশ কোটি ডলার ব্যয় করেছে সেরাম ইনস্টিটিউট।

/এএ

নিউজটি শেয়ার করুন

সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২১ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com