২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং , ৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ৫ই সফর, ১৪৪২ হিজরী

বঙ্গোপসাগরে মাস্টার-ক্রুসহ ১৪ জনকে জীবিত উদ্ধার

বঙ্গোপসাগরে মাস্টার-ক্রুসহ ১৪ জনকে জীবিত উদ্ধার

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : নোয়াখালীর হাতিয়া-সন্দ্বীপ বঙ্গোপসাগর চ্যানেলে ডুবে যাওয়া গমবোঝাই কার্গো জাহাজ ‘এমবি আক্তার বানু-১’ এর মাস্টার-ক্রুসহ ১৪ জনকে জীবিত উদ্ধার করেছে স্থানীয় জেলেরা।

রোববার (১৬ আগস্ট) দুপুর ১টার দিকে হাতিয়ার ভাসানচর এলাকার বঙ্গোপসাগর থেকে তাদেরকে উদ্ধার করা হয়।

হাতিয়া কোস্টগার্ড স্টেশন কমান্ডার লেফটেন্যান্ট বিশ্বজিত বড়ুয়া এ তথ্য নিশ্চিত জানান, দুপুরের দিকে বঙ্গোপসাগরে লাইফজ্যাকেট পরিহিত মাস্টার-ক্রুসহ ১৪ জনকে ভাসমান অবস্থায় দেখতে পেয়ে উদ্ধার করেন স্থানীয় জেলেরা। তারা সবাই শনিবার বঙ্গোপসাগরের মোহনায় ডুবে যাওয়া গমবোঝাই মালবাহী কার্গো জাহাজ এমবি আক্তার বানু-১ এর মাস্টার ও ক্রু।

তাদেরকে উদ্ধার করে স্থানীয় জেলেরা হাতিয়া উপজেলার বুড়ির চর ইউনিয়নের সূর্যমুখী বাজারে নিয়ে এসে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়। বর্তমানে তাদের হাতিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রাখা হয়েছে।

লাইটার শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. রহিম বলেন, জাহাজটির স্থানীয় এজেন্ট মাঝিরঘাটের শাহ আমানত শিপিং। পরিবহন করছিল আবুুল খায়ের গ্রুপের গম।

তিনি বলেন, মালিকপক্ষকে বারবার বলেছি নাবিকদের উদ্ধারে জাহাজ পাঠাতে। কিন্তু তখন তারা কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। পরে কাছাকাছি থাকা একটি ফিশিং ট্রলারকে অনুরোধ জানাই। ট্রলারটি নাবিকদের উদ্ধার করে হাতিয়ার সূর্যমুখী খালের কিনারে নামিয়ে দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, এর আগে শনিবার (১৫ আগস্ট) চট্টগ্রামের বহিঃনগরে অবস্থানরত বড় জাহাজ থেকে আমদানি করা গম খালাস করে নারায়াণগঞ্জে দিয়ে যাওয়ার পথে শনিবার সকালের দিকে ১৮শ মেট্রিক টন গম নিয়ে মেঘনা-বঙ্গোপসাগরের মোহনায় বৈরি আবহাওয়ায় প্রবল স্রোত ও ঢেউয়ের কারণে জাহাজটির তলদেশ ফেটে ডুবে যায়।

দুর্ঘটনার খবর পেয়ে স্থানীয় কোস্টর্গাড উদ্ধার অভিযানে নামে। কিন্তু সাগর উত্তাল থাকায় উদ্বার কাজ করতে তাদের চরম বেগ পেতে হয়।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com