৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং , ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ১৭ই রবিউস-সানি, ১৪৪২ হিজরী

বন্ধ হচ্ছে প্রশিক্ষণের নামে কর্মকর্তাদের বিদেশ ভ্রমণ

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : বিশ্বব্যাপী মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সারাবিশ্বেই চলছে অর্থনৈতিক মন্দা। এসময় অপ্রয়োজনীয় ব্যয় কমাতে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার। সব ধরনের উন্নয়ন প্রকল্পে ২৫ শতাংশ ব্যয় কমানো হয়েছে। এ বিষয়ে অর্থ মন্ত্রণালয় কঠোর অবস্থান নিয়েছে। অন্যদিকে সরকারি চাকুরেদের হরহামেশা বিদেশ ভ্রমণ বন্ধের নির্দেশনা আসছে। বিদেশ ভ্রমণ ব্যয় কমাতে প্রশিক্ষণের দেশ, বিষয় ও প্রশিক্ষণার্থীদের বিবরণ সুস্পষ্ট ও সুনির্দিষ্টভাবে ডিপিপিতে উল্লেখ করার নির্দেশনা দিয়েছে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটি।

জানা গেছে, সরকারি চাকুরেদের হুটহাট বিদেশ ভ্রমণ বন্ধ করতে যাচ্ছে সরকার। সাম্প্রতিক সময়ে যথেচ্ছ বিদেশ ভ্রমণ নিয়ে তীব্র সমালোচনার পর এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে। এখন থেকে যে কোনো উন্নয়ন প্রকল্পের বাস্তব অভিজ্ঞতা অর্জনে বিদেশে যেতে হলে ওই প্রকল্পের প্রকল্প উন্নয়ন প্রস্তাবে (ডিপিপি) সুনির্দিষ্টভাবে উল্লেখ করতে হবে। এমনকি বিদেশ ভ্রমণসংক্রান্ত সম্ভাব্য খরচ, সম্ভাব্য দেশের নামও ডিপিপিতে উল্লেখ করতে হবে। পরিকল্পনা কমিশন সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। গত ১০ অক্টোবর প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির পাঠানো এক চিঠিতে এসব নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

করোনা মহামারীতে সরকারের আয় কমেছে আশঙ্কাজনক হারে। গত অর্থবছরের রাজস্ব ঘাটতি নিয়ে শুরু হয় নতুন অর্থবছর। এ ঘাটতি প্রায় প্রতি মাসেই বাড়ছে। ফলে ব্যয় সংকোচন নীতি অনুসরণ করছে সরকার। আয়-ব্যয়ের ভারসাম্য ঠিক রাখতে চলতি অর্থবছরের শুরুতে করোনা সম্পর্কিত জরুরি ব্যতীত অন্যসব উন্নয়ন প্রকল্পের অর্থছাড় বন্ধ রাখা হয়। যদিও পরবর্তী সময়ে তা শিথিল করা হয়। তবে ব্যয় সংকোচন নীতি থেকে বেরিয়ে আসেনি সরকার।

গত ১৭ সেপ্টেম্বর ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাকাশ অবলোকন কেন্দ্র নির্মাণ’ শীর্ষক একটি প্রস্তাব পরিকল্পনা কমিশনে পাঠিয়েছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়। ওই প্রস্তাবেও বৈদেশিক প্রশিক্ষণের জন্য নির্দিষ্ট অঙ্কের ব্যয় পরিকল্পনা করা হয়। অবশ্য প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটি বলেছে, প্রয়োজন না হলে তা বাদ দিতে হবে। এমনকি প্রয়োজন হলেও সেখানে প্রশিক্ষণ ও ভ্রমণ ব্যয় যৌক্তিকভাবে হ্রাস করতে হবে। বৈদেশিক ভ্রমণ ব্যয় কমাতে প্রশিক্ষণের দেশ, বিষয় ও প্রশিক্ষণার্থীদের বিবরণ সুস্পষ্ট ও সুনির্দিষ্টভাবে প্রকল্প উন্নয়ন পরিকল্পনায় (ডিপিপি) উল্লেখ করার নির্দেশনা দিয়েছে প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটি।

পুকুর খনন, খিচুড়ি রান্না শেখা, ছাগল পালন, ধান চাষসহ বিভিন্ন রকম হাস্যকর বিষয়ে সরকারি কর্মকর্তাদের হুটহাট বিদেশ সফরের ব্যাপারে গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংশ্লিষ্টদের সতর্ক করেন। গত ১১ ডিসেম্বর একনেক সভায় তিনি বৈদেশিক প্রশিক্ষণ ব্যয় কমানোর বিষয়ে নির্দেশনা দেন। সে সময় বিরক্তি প্রকাশ করে তিনি বলেন, সব ধরনের প্রকল্পে বিদেশ ভ্রমণ বা অভিজ্ঞতা অর্জনের প্রয়োজন পড়ে না। পরিকল্পনা কমিশন মনে করে, যেসব উন্নয়ন প্রকল্পের কাজের অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য বিদেশে যাওয়ার দরকার নেই, সেসব প্রকল্পের ডিপিপি থেকে বিদেশ ভ্রমণ বাদ দিতে হবে।

/এএ

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com