২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং , ৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ৩রা সফর, ১৪৪২ হিজরী

‘বাস্তবতাবর্জিত কল্পনানির্ভর বাজেট জাতিকে হতাশ করেছে’

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম বলেছেন, মানব সভ্যতার এই চরম ক্রান্তিকালে ২০২০-২১ অর্থবছরের জন্য সরকার ঘোষিত বাজেটের পর্যালোচনা করতে গিয়ে একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে আমরা খুবই হতাশাবোধ করছি। দেশের অধিকাংশ মানুষ যখন জীবিকা হারিয়ে জীবন হারানোর ভয় নিয়ে দিন কাটাচ্ছে তখন অর্থমন্ত্রী ‘অর্থনৈতিক উত্তরণ ও ভবিষ্যত পরিক্রমা’ শ্লোগানে একটি বাস্তবতাবর্জিত, কল্পনানির্ভর বাজেট উপস্থাপন করে জাতিকে হতাশ করেছে। জীবন ও অর্থনীতিকে হুমকির মধ্যে ফেলে দেয়া করোনা ভাইরাসের ছবি অর্থমন্ত্রীর উপস্থাপিত বাজেট বক্তৃতার প্রেজেন্টেশনে থাকলেও বাজেটে করোনা পরিস্থিতিকে মোটেও আমলে নেয়া হয়নি।

চরমোনাই পীর বলেন, বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী স্বীকার করেছেন যে, তিনি আইএমএফ এবং থিংক ট্যাংকের পরামর্শের ভিত্তিতে বাজেট প্রস্তাব তৈরি করেছেন। করোনার আক্রমন ঘটেছে গত অর্থবছরের শেষের দুই মাসে। এতেই অর্থমন্ত্রণালয় এতোটাই পর্যুদস্থ হয়ে পড়েছে যে, বাস্তব তথ্যভিত্তিক বাজেট তৈরীতে তারা ব্যর্থ হয়েছে এবং বাজেট তৈরিতে আইএমএফের মতো একটি সাম্রাজ্যবাদী প্রতিষ্ঠানের ওপরে নির্ভর করতে হয়েছে, এটা ৫০ বছরের একটি দেশের জন্য লজ্জাজনক ঘটনা।

তিনি বলেন, বাজেট সম্পর্কিত আলোচনায় অর্থমন্ত্রী বলেছেন, এবার আর আবেগ ও উচ্চবিলাসি হয়ে বাজেট তৈরী করা হচ্ছে না। এর অর্থ হলো, তিনি স্বীকার করে নিচ্ছেন যে, অতিতে আবেগের বশবর্তী হয়ে বাজেট তৈরী করা হয়েছিল। এটিও একটি বিপদজনক তথ্য। এটা মন্ত্রীদের শপথ ভঙ্গের শামিল। কারণ তারা সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে আবেগের বশবর্তী না হতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

করোনার এই সময়ে মানুষের প্রধান উৎকন্ঠা যেখানে জীবন ও জীবিকা সেখানে বাজেটে মানুষের জীবন-জীবিকা রক্ষার কোন সুনির্দিষ্ট দিক নির্দেশনা নাই। বরং কল্পনার ফানুশ উড়িয়ে ঋণনির্ভর একটি অসম ঘাটতি বাজেট প্রস্তাব করে মানুষের জীবন-জীবিকার বিষয়টি প্রকারান্তরে উপেক্ষা করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com