শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯, ০৭:২৩ অপরাহ্ন

বিজয় আখেরে মাওলানারই

বিজয় আখেরে মাওলানারই

সগীর আহমদ চৌধুরী : মার্চের জলসায় এক খেতাবে মাওলানা ফজলুর রহমান বলেছেন, “ইসলামে উগ্রবাদী, উদারপন্থী ও মডারেট বলতে কিছু নেই। এসব পশ্চিমা প্রচারণা, দাড়ি-টুপি ও আলেম-ওলামা দেখলেই পশ্চিমারা তাদেরকে উগ্রবাদী ও জঙ্গিবাদী বলে প্রচার করে। ইসলামাবাদে লাখ-লাখ আলেম-ওলামা ও দাড়ি-টুপিঅলা সমবেত হয়েছেন, গাছের একটি পাতাও আমরা ছিঁড়িনি, জান-মালের কোনো ক্ষতি করিনি।

আমরা শান্তিপূর্ণ, আমাদের আন্দোলন অসহিংস, বিশ্ব আমাদের থেকে সবক নিতে পারে। মাওলানা আরও বলেছেন, “আমরা চাইলে খানকে গ্রেফতার করতে পারি, কিন্তু অগণতান্ত্রিক ও বেআইনি পদ্ধতি আমরা গ্রহণ করবো না। আমরা সারা পাকিস্তান ছড়িয়ে পড়ব, জনমত সৃষ্টি করবো এবং সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করবো।

আমি মাওলানা বিষয়ক সাম্প্রতিক পোস্টগুলোর প্রথমটিতেই ইঙ্গিত করেছিলাম, মাওলানা একজন ঝানু রাজনীতিক ব্যক্তিত্ব। তাঁর এই আজাদী মার্চের আসল উদ্দেশ্য আগামী নির্বাচন। নাওয়াজ ও জারদারীদের অনুপস্থিতিতে মাওলানা একাই রাজনীতির মাঠ দখলে নিতে চলেছেন। এবার মাওলানাই মুসলিম লীগ ও পিপিপিকে ব্যবহার করছেন নিজের উদ্দেশ্যের জন্য। আরও মজার ব্যাপার হচ্ছে, বিগত মোশাররফ সরকার থেকে শুরু করে পালাক্রমে প্রত্যেকটি সরকারেই মাওলানার প্রতিনিধিত্ব ছিল। কিন্তু সরকার গঠনের আগে তাদের কারো সাথেই তাঁর নির্বাচনী জোট ছিল না, তিনি বরং অন্যান্য ইসলামপন্থিদের দলগুলোকে একত্র করে নির্বাচন করতেন। এর মধ্য দিয়ে তিনি ইসলামপন্থিদের একক শক্তিকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন মূলত।

আমাদের মতো না, বিএনপি বা আওয়ামী লীগের সাথে জোট করে নিজের স্বাতন্ত্র্য বিলীন করেননি, বরং স্বকীয়তা বজায় রেখে স্বতন্ত্রভাবে নির্বাচন করেছেন, তারপরই সরকারের সাথে সমঝোতা কিংবা সরকারে যোগ দিয়েছেন।

একটি বিষয় পরিষ্কার, মাওলানা ফজলুর রহমান বিভিন্ন সরকারে যোগ দিয়ে ক্ষমতার অংশীদার হয়েছিলেন ঠিক, কিন্তু তিনি দুর্নীতি করেননি। না হয় খানের সরকার এতো দিনে তাঁর বিরুদ্ধেও কঠিন পদক্ষেপ নিতেন। আর মাওলানা সাহেবও দুর্নীতিবাজদের পক্ষে লড়ছেন বলেও মনে হচ্ছে না, আমার বরং মনে হচ্ছে, তিনি অন্যান্য বিরোধী দলীয় নেতাদের দুর্বলতা ও অসহায়ত্বের সুযোগকে সদ্ব্যবহার করে বিরোধী দলীয় প্রধান নেতায় পরিণত হতে চলেছেন। যা ইতোমধ্যে অনেকটা বাস্তবে পরিণত হয়েছে। এই পর্যায়ে মাওলানা যদি সংঘাতমূলক কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেন তা হতো তার জন্য আত্মঘাতমূলক। তা না করলে তিনি আরও শক্তিশালী হবেন এবং আগামী নির্বাচনে তিনি একটা বড় ধরনের সাফল্য পাবেন।

লেখক : রাজনীতিক

ফেসবক থেকে নেয়া

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com