২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং , ৯ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ৬ই সফর, ১৪৪২ হিজরী

বিশ্বজনীন সমস্যা নিরসনে শক্তি জোগাবে

বিমসটেক প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

বিশ্বজনীন সমস্যা নিরসনে শক্তি জোগাবে

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : বিশ্বনেতাদের একসঙ্গে বসা, পরামর্শ করা, সবাইকে নিয়ে পথচলার চিন্তা সত্যিই বিশ^কে শান্ত ও সুন্দর করবে। এটা আমরা বিশ্বাস করি। করোনাভাইরাস বা কভিড-১৯ একটি বিশ্বজনীন সমস্যা। মানব জাতিকে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলেছে এই ভাইরাস। ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র এই দৈত্যের বিরুদ্ধে সব মানব জাতিকে একসঙ্গে লড়তে হবে। সার্ক ও আসিয়ানভুক্ত ৭টি দেশের জোট বিমসটেকের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সরকার ও রাষ্ট্র প্রধানদের বক্তব্যে কভিড-১৯ সংকট মোকাবিলায় অঙ্গীকার ঘোষণা করা হয়েছে।

করোনা ভাইরাস মহামারীর প্রভাব মোকাবিলায় একসঙ্গে কাজ করতে নিজেদের মধ্যে সহযোগিতা বৃদ্ধির প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেছেন বিমসটেকের সদস্য দেশগুলোর রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানরা। শনিবার সাত দেশের এই জোটের ২৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে দেওয়া বাণীতে নেতাদের এমন ঐক্যের আহ্বান আসে। বাংলাদেশ, ভারত, মিয়ানমার, নেপাল, শ্রীলঙ্কা ও থাইল্যান্ডের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানরা বাণীতে একসঙ্গে কাজ করা এবং এই অঞ্চলের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

কভিড-১৯ মহামারীর কারণে এবার বিমসটেকের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে কোনো অনুষ্ঠান হচ্ছে না। বাণীতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কভিড-১৯ মহামারী বিশ্বের সামনে এক বিরাট চ্যালেঞ্জ হিসেবে হাজির হয়েছে। অর্থনৈতিক ও সামাজিক অগ্রগতিতে বড় রকমের ধাক্কা দিয়ে এটা এই অঞ্চলের মানুষের জীবন-জীবিকার ওপর দীর্ঘমেয়াদি নানামুখী প্রভাব রেখে যাবে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও একসঙ্গে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করে বলেছেন, ভারত তার বিশেষায়িত জ্ঞান, সম্পদ ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধায় প্রস্তুত রয়েছে। শ্রীলঙ্কা, নেপাল, মিয়ানমারের পক্ষ থেকেও অভিন্ন প্রত্যয় ব্যক্ত করা হয়েছে। স্মর্তব্য, এর ভয়াবহ প্রভাব মোকাবিলায় প্লাটফর্ম হিসেবে কাজ করতে পারে বিমসটেক। মহামারী-পরবর্তী চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় এই প্লাটফর্মকে কাজে লাগাতে কোনো প্রচেষ্টাই আমাদের বাদ রাখা উচিত হবে না। ১৯৯৭ সালের ৬ জুন ব্যাংককে ঘোষণার মধ্য দিয়ে বিমসটেকের যাত্রা শুরু হয়। শুরুতে কেবল বাংলাদেশ, ভারত, শ্রীলঙ্কা ও থাইল্যান্ড এর সদস্য হলেও পরে মিয়ানমার, নেপাল ও ভুটান বিমসটেকে যোগ দেয়।

বিমসটেক সার্ক ও আসিয়ানভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে আন্তআঞ্চলিক সহযোগিতার একটি সেতুবন্ধ। বিমসটেকের ২৩তম বার্ষিকী উপলক্ষে সদস্যভুক্ত দেশগুলোর সরকার বা রাষ্ট্রপ্রধানদের সংহতিসূচক বক্তব্য নানা কারণে তাৎপর্যপূর্ণ। প্রতিবেশী দেশগুলোর সুসম্পর্ক শুধু মহামারীজনিত সংকট রোধ নয়, অন্যান্য ক্ষেত্রেও সহযোগিতার পরিবেশ সৃষ্টি করবে বলে বিশ্বাস। এই এলাকার শান্তি ও উন্নয়নে যা প্রাসঙ্গিকতার দাবিদার।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com