১০ই এপ্রিল, ২০২০ ইং , ২৭শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৬ই শাবান, ১৪৪১ হিজরী

ভাষাশহীদদের যথাযথ মর্যাদা দিন : অধ্যক্ষ মোসাদ্দেক বিল্লাহ

ভাষাশহীদদের যথাযথ মর্যাদা দিন : অধ্যক্ষ মোসাদ্দেক বিল্লাহ

পাথেয় রিপোর্ট :: ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর প্রেসিডিয়ামের অন্যতম সদস্য অধ্যক্ষ সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানী বলেছেন, রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের বিনিময়ে অর্জিত সেই অমর একুশে ফেব্রুয়ারি আজ। আমাদের প্রাণপ্রিয় মাতৃভাষা বাংলাকে রাষ্ট্রীয় ভাষার মর্যাদায় প্রতিষ্ঠিত করার জন্য স্বৈরাচারী সরকারের পুলিশের গুলিতে শহীদ হন সালাম, রফিক, জব্বার, বরকত, অলিউল্লাহ ও শফিক প্রমুখ। আজও দেশ জাতি এবং দেশের মানুষের ভাত ও ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠিত হয়নি। বিদেশী ভাষার আগ্রাসনে বাংলা ভাষার মর্যাদা রক্ষা হয়নি। তাই সর্বস্তরে বাংলা ভাষা চালু এবং মহান ২১ ফেব্রুয়ারি ভাষা আন্দোলনের চেতনায় জালিম সরকারের বিরুদ্ধে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে।

সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানী বলেন, একুশ জাতির জন্য একদিকে শোক অন্যদিকে গৌরবের দিন। রক্তের বিনিময়ে প্রতিষ্ঠিত মাতৃভাষা দিবস। যারা মায়ের ভাষাকে প্রতিষ্ঠিত করতে নিজেদের জীবন বিলিয়ে দিয়েছেন তাদেরকে আজ শ্রদ্ধার সাথে আমরা স্মরণ করে তাদের রুহের মাগফিরাত কামনা করনে এবং যারা জীবিত আছেন তাদেরকে যথাযথ মর্যাদার আসনে ভূষিত করার জন্য সরাকারকে আহবান জানান। তারা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান, সকল বাধা বিপত্তিকে অতিক্রম করে বাংলা ভাষাকে এগিয়ে নিতে হবে। বাংলা ভাষার মর্যাদা প্রতিষ্ঠার জন্য এদিনে সালাম, বরকত, রফিকসহ অনেকেই নিজের জীবন বিলিয়ে দিয়েছেন।

প্রিন্সিপাল মাদানী আরও বলেন, ইসলামে মাতৃভাষার গুরুত্ব অপরীসিম। মাতৃভাষা মানব জাতীর অমূল্য সম্পদ, যাহা মানব ইতিহাসের বৈচিত্রময় জীবনধারাকে প্রবহমান রাখে যুগ থেকে যুগান্তরে। দারিদ্র্যতা ,ভাষার উপযুক্ত চর্চারঅভাব, পরিবেশের অবক্ষয়, সংস্কৃতির বিলোপ সাধানের কারণেভাষার অপমৃত হয়।

শুক্রবার বিকেলে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগরীর উদ্যোগে আয়োজিত ‘ইসলামে মাতৃভাষার গুরুত’¡ শীর্ষক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। নগর দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলমের সভাপতিত্বে আইএবি মিলানায়তনে অনুষ্ঠিত আলোচনায় সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন উত্তর সভাপতি প্রিন্সিপাল শেখ ফজলে বারী মাসউদ। বক্তব্য রাখেন-দলের কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক আহমদ আবদুল কাইয়ুম, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম, দক্ষিণ সেক্রেটারী মাওলানা এবিএম জাকারিয়া, আব্দুল আউয়াল, ডা. শহিদুল ইসলাম, মুফতী ফরিদুল ইসলাম, মুহাম্মাদ হুমায়ুন কবির, ইঞ্জি. এতেশামুল হক পাঠান, মাওলানা নজরুল ইসলাম, অধ্যাপক নাসির উদ্দিন খান, মুফতী আনোয়ার হোসাইন, মাওলানা এখলাসুর রহমান প্রমুখ।

সভাপতির বক্তব্যে মাওলানা ইমতিয়াজ আলম বলেন, উন্নয়নশীল দেশেগুলো যেমন জাপান, চায়নায় দিকে তাকালে দেখা যায় তাদের অফিসিয়াল ভাষা জাপানিজ, চায়নিজ। অথচ তারা তাদের মাতৃভাষার জন্য রক্ত দেননি। পক্ষান্তরে বাংলা ভাষার জন্য রক্ত দিলেও বাংলাদেশে বাংলাকে রাষ্ট্রের সর্বস্তরে অফিসিয়াল ভাষা হিসেবে স্বীকৃত দেয়া হচ্ছে না। যা চরম হতাশা ও নিন্দার বিষয়। তিনি বাংলাভাষাকে সর্বস্তরে স্বীকৃতি দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি যথার্থ সম্মান প্রদর্শনের দাবি জানান।

প্রধান বক্তার বক্তব্যে শেখ ফজলে বারী মাসউদ বলেন, ভাষা দিবসে ইসলামবিরোধী কার্যক্রম বন্ধকরে কোরআন খতম ও দেশব্যাপী দোয়া আয়োজনের আহবান জানান।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com