২৮শে অক্টোবর, ২০২০ ইং , ১২ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ১০ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২ হিজরী

ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন শুরু

শিশুরা রাতকানা রোগ থেকে রক্ষা পায়

ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন শুরু

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : সারা দেশে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন রোববার ৪ অক্টোবর থেকে ১৭ অক্টোবর পর্যন্ত উদযাপন হবে। দেশব্যাপী ছয় মাস থেকে ৫৯ মাস বয়সের সব শিশুকেই ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। রোববার সকাল ১১ টায় রাজধানীর শিশু হাসপাতালে ভিটামিন-এ প্লাস ক্যাম্পেইনের শুভ উদ্বোধন করার কথা স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক,এমপির। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. মাইদুল ইসলাম প্রধান এ তথ্য জানিয়েছেন।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাম্পেইনের সার্বিক বিষয় তুলে ধরেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যানমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানান, এই ক্যাম্পেইনে দুই কোটি ২০ লাখ শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে। এরমধ্যে ছয় থেকে ১১ মাস বয়সী শিশুর সংখ্যা প্রায় ২৭ লাখ এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী শিশুর সংখ্যা এক কোটি ৯৩ লাখ। ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানোর জন্য এক লাখ ২০ হাজার কেন্দ্রে প্রায় দুই লাখ ৪০ হাজার স্বাস্থ্যসেবী এবং প্রায় ৪০ হাজার স্বাস্থ্যকর্মী প্রস্তুত রয়েছে। দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে জাহিদ মালেক বলেন, কোভিড-১৯ প্রেক্ষাপটে অভিভাবকরা অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিশুদের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানোর জন্য কেন্দ্রে নিয়ে আসবেন। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এই ক্যাম্পেইন উদযাপন করা হবে। আশা করি, কোনো শিশু টিকা থেকে বাদ পড়বে না। বাদ পড়লেও তাদের পরে খাওয়ানো হবে। তবে কোনো শিশু অসুস্থ থাকলে ক্যাপসুল খাওয়ানো যাবে না। শিশু সুস্থ হলে ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

গতবারের ক্যাপসুলে সমস্যা দেখা দিয়েছিল উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরো বলেন, তবে তা আর ব্যবহার করা হয়নি। এ কারণে গতবার এ ক্যাম্পেইন স্থগিত করা হয়েছিল। তখন একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছিল এবং সে বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তবে এবারের ক্যাপসুলে কোনো সমস্যা নেই।
ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের বিশেষজ্ঞ ডাক্তার হাবিবুর রহমান ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানোর উপকারিতা সম্পর্কে আমার বার্তাকে বলেন, ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ালে শিশুরা রাতকানা রোগ থেকে রক্ষা পায়। এছাড়াও শিশুদের ইমিউনিটি ক্ষমতা বৃদ্ধিসহ আরও অনেক উপকারিতা আছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের জাতীয় পুষ্টি সেবা বিভাগের ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার ডা. গাজী আহমেদ হাসান বলেন, প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত এ কর্মসূচি চলবে। তিনি শিশুদের অভিভাবকদের উদ্দেশে বলেন, আপনারা অবহেলা করে আপনাদের শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো থেকে দূওে রাখবেন না।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com