১৭ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৩রা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ৬ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

মানব উন্নয়ন সূচকে ৩ ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক ● উন্নয়ন সূচকের ক্ষেত্রে সাফল্য ধরে রেখেছে বাংলাদেশ। জাতিসংঘ উন্নয়ন সংস্থার (ইউএনডিপি) বার্ষিক মানব উন্নয়ন সূচকে এগিয়েছে তিন ধাপ। বর্তমানে (২০১৫) মানবসম্পদ উন্নয়নে বিশ্বের ১৮৮টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১৩৯তম, যা গতবার ছিলো (২০১৪) ১৪২তম। ২০১৩ সালে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ১৪৩তম। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, গড় আয়ুতে দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে ভালো করছে বাংলাদেশ। বুধবার শেরেবাংলা নগরের জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সম্মেলন কক্ষে মানব উন্নয়ন প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচির (ইউএনডিপি) পরিচালক ড. সেলিম জাহান।

পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল প্রধান অতিথি হিসেবে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। পরিকল্পনা মন্ত্রী বলেন, মানব সূচক উন্নয়নের পথ্যে অন্যতম বাধা ক্লাইমেট চেঞ্জ। সারা বিশ্ব এগিয়ে না এলে কারোর একার পক্ষে এটা মোকাবেলা করা সম্ভব না। বিশ্বের মধ্যে চীন, যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল, ভারত ও রাশিয়া জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য ৫৫ শতাংশ দায়ী। অথচ আমরা এর জন্য সাফারার। তারপরও সব সূচকে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি আরও বলেন, গত দুই দশকে মানব সূচকের সব মাপকাঠিতেই এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও জীবনের সকল প্রত্যাশিত খাতে আমরা ভালো করছি। যখন থেকে আমাদের মাথাপিছু আয় বেড়েছে। মানব উন্নয়ন সূচকে দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশের অবস্থান মাত্র পঞ্চম। সূচকে এবারও পাকিস্তানকে পেছনে ফেলেছে বাংলাদেশ। যেখানে বাংলাদেশের অবস্থান ১৩৯, সেখানে পাকিস্তানের  ১৪৭।

দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে সব থেকে ভালো অবস্থানে রয়েছে শ্রীলঙ্কা।  দেশটির অবস্থান ৭৩তম। এর পরেই মালদ্বীপের অবস্থান। ১০৫তব অবস্থানে রয়েছে মালদ্বীপ। এর পরে ভারত ১৩১ এবং ভুটান রয়েছে ১৩২তম অবস্থানে। রিপোর্ট প্রকাশ অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার (এসডিজি) প্রধান সমন্বয়ক আবুল কালাম বৃহস্পতিবারাদ, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী, ইউএনডিপির কান্ট্রি ডিরেক্টর সুদীপ্ত মুখার্জি, জিইডির (সাধারণ অর্থনীতি বিভাগ) সদস্য ড. শামসুল আলম, জিইডি প্রধান নাকিব মাহবুব বক্তব্য রাখেন। ভারত ও পাকিস্তানের তুলনায় বাংলাদেশের নারীরা অনেক উন্নতি করছে। এ প্রসঙ্গে রাশেদা কে চৌধুরি বলেন, শিক্ষায় নারীদের অংশগ্রহণ বেড়েছে, কিন্তু অংশীদারিত্ব বাড়েনি। শিশুরাও বৃহস্পতিবার বিশ্বে নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। বড়দের কারণেই মূলত শিশুরা নিপীড়ন ও নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। বড়দের কারণে শিশুদের রক্তও ঝরছে। আমরা বৃহস্পতিবারকে ফিলিস্তিন ও রোহিঙ্গাদের দিকে তাকালে দেখতে পাই বড়দের কারণে শিশুদের প্রাণ যাচ্ছে। এটা আমরা এড়িয়ে যেতে পারি না।

মানবসম্পদ উন্নয়ন সূচক উন্নয়নে প্রথম স্থান অর্জন করে নিয়েছে  নরওয়ে। দ্বিতীয় স্থানে অস্ট্রেলিয়া,  তৃতীয় স্থানে  সুইজারল্যান্ড, চতুর্থ স্থানে নেদারল্যান্ডস এবং পঞ্চম স্থানে রয়েছে সিঙ্গাপুর।

মানব উন্নয়ন সূচকে সব থেকে খারাপ অবস্থানে সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক। এটি রয়েছে ১৮৮তম অবস্থানে। তবে আফ্রিকা মহাদেশের অনেক দেশই খারাপ অবস্থানে রয়েছে। যেমন উগান্ডা ১৬৩, টোগো ১৬৬, দক্ষিণ সুদান ১৮১, কঙ্গো ১৭৬, চাদ ১৮৬। তবে এসব দেশের তুলনায় সার্বিক খাতে ভালো অর্জন করছে বাংলাদেশ। নেপালও ঘুরে দাঁড়াচ্ছে। দেশটি মানব উন্নয়ন সূচকে ১৪৪তম অবস্থানে। তবে বাংলাদেশে অসমতা বেড়েই চলেছে। এটার লাগাম টেনে ধরার জন্য মত দেন বক্তারা। লিঙ্গ সমতা সূচকে ১৫৯টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১১৯।

দক্ষিণ এশিয়ায় এই সূচকে ভারত, পাকিস্তান ও নেপালকে পেছনে ফেলেছে বাংলাদেশ। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেন, বিশ্বে উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ একটি রোল মডেল। আমরা আমাদের উন্নয়ন অব্যাহত রাখবো যাতে করে দেশের মানুষ সুফল পাই। সবার মধ্যে সমন্বয় করে বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে। আমরা এমডিজি সফলভাবে অর্জন করেছি। একইভাবে এসডিজির সকল গোল অর্জন করবো। এসডিজি অর্জন করতে পারলে মানব উন্নয়ন সূচকের অনেক খাত অর্জন করতে পারবো।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২১ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com