১৫ই আগস্ট, ২০২০ ইং , ৩১শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ২৫শে জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী

মুসলিম উম্মাহ ও দেশবাসীকে ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা : আল্লামা মাসঊদ

মুসলিম উম্মাহ ও দেশবাসীকে ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা : আল্লামা মাসঊদ

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : পবিত্র ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার চেয়ারম্যান, ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহের গ্র্যান্ড ইমাম, শাইখুল হাদীস আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ।

তিনি বিশ্ব মুসলিম উম্মাহ ও দেশের সর্বস্তরের মানুষকে পবিত্র ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানান।

আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ বলেন, একদিকে এখন করোনা ভাইরাসে মানুষের স্বাভাবিক জীবন বিপন্ন আরেকদিকে বন্যায় দেশের মানুষের দুর্ভোগ চরমে। এ মুহূর্তে বিত্তবানদের উচিত তাদের পাশে দাঁড়ানো। আল্লাহ তাআলা আমাদের সবাইকে বিপন্ন মানুষের পাশে দাঁড়ানোর তাওফিক দিন।

আল্লামা মাসঊদ বলেন, সর্বক্ষেত্রে আল্লাহ তাআলার মর্জির উপর সন্তুষ্ট থাকা মুমিনের কাজ। এজন্য আল্লাহ আমাদের যেভাবে রাখছেন, যেভাবে ঈদ উদযাপন করাবেন তার উপর রাজি-খুশি থাকবো। এখন বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত সমগ্র বিশ্বের মানবসমাজ। তাই জনসমাগম এড়িয়ে, রাষ্ট্রীয় বিধিনিষেধ মেনে ঈদ উদযাপন করাই হবে বুদ্ধিমানের কাজ।

শুক্রবার (৩১ জুলাই ২০) রাজধানীর বারিধারা নিজ বাসভবন থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে আওলাদে রাসূল, ফিদায়ে মিল্লাত মাওলানা সাইয়্যিদ আসআদ মাদানী রহ.-এর এই খলিফা এসব কথা বলেন।

ঈদ সব শ্রেণী-পেশার মানুষের মধ্যে গড়ে তোলে সৌহার্দ্য, সম্প্রীতি ও ঐক্যের বন্ধন উল্লেখ করে বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার চেয়ারম্যান বলেন, ‘ঈদ মানে কেবল আনন্দ একথা নয়, বরং ঈদ সৌহার্দ্য, সম্প্রীতি ও ঐক্যের বন্ধন গড়ে তোলার মাধ্যমে। এবছর আমরা অনেক বড় বড় উলামায়ে কেরাম এবং করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত আপনজনকে হারিয়েছি, তাদের সবার মাগফিরাতের জন্য দুআ করবো।’

আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ বলেন, ‘করোনার এই মহাদুর্যোগ মোকাবেলায় ডাক্তার, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, সেনাবাহিনীর প্রত্যেকটা স্তরের লোকেরা যে সাহস ও সতর্কতার সাথে আল্লাহর উপর ভরসা রেখে কাজ করেছেন এবং করছেন এজন্য তাদের সবাইকে শুভেচ্ছা জানাই। সেই সাথে যারা মানবিক সহায়তা ও জনসচেতনতা সৃষ্টির কাজ করছেন, তাদেরকেও অভিনন্দন।’

তিনি বলেন, করোনাকালে দেশের উলামায়ে কেরাম ও ইমাম-মুয়াজ্জিনদের বিশেষ সহযোগিতা প্রদান করায় সরকারকে আমি অভিনন্দন জানাই। আমি আশা করবো, ইমাম, মুয়াজ্জিন ও আলেম উলামাদের প্রতি সরকারের মনোভাব আরও বন্ধুত্বপূর্ণ হবে। বিশেষত ধর্মীয় অনেক ক্ষেত্রে এবং মসজিদগুলোকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন, স্বাস্থ্য সুরক্ষায় তাদের অবদান অনস্বীকার্য। এজন্য করোনা জয়ী জাতীয় বীরদের মধ্যেও উলামায়ে কেরাম ও ইমাম-মুয়াজ্জিনদের গণ্য করা হবে বলে আমার বিশ্বাস।

আল্লামা মাসঊদ বলেন, করোনার মতো দুর্যোগের সময়ে বন্যায়ও ক্ষতির পরিমাণ বাড়ছে। কোনো ধরনের অবহেলা যাতে না হয় সেদিকে সতর্ক থাকতে হবে।

বিপদগ্রস্ত মানুষ যেনো শেষ আশ্রয়টুকু পায় এবং মানুষের দুর্দিনের সবাইকে পাশে থাকার আহ্বান জানান ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com