মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০৭:৫৮ অপরাহ্ন

মুসলিম জাতির শ্রেষ্ঠ মারকাজ দেওবন্দ : মসজিদে নববীর দায়িত্বশীল

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : ভারতের প্রখ‌্যাত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দারুল উলূম দেওবন্দ মুসলিম জাতির অন্যতম শ্রেষ্ঠ মারকাজ বলে মন্তব্য করেছেন পবিত্র মসজিদে নববীর প্রধান দায়িত্বশীল শায়েখ ওয়ালিদ বিন সাঈদ।

তিনি বলেন, দারুল উলুম দেওবন্দ এবং আকাবিরীনে দেওবন্দের ইতিহাস আমি অনেক কিছুই পড়েছি এবং শুনেছি। সব সময়ই এখানে আসার প্রচন্ড ইচ্ছে ছিলো, আমার জন্য খুবই খুশির ব্যাপার হলো দারুল উলুম দেওবন্দের মতো এতবড় এদারায় আমার আসার সুযোগ হয়েছে। অবশ্যই দারুল উলূম দেওবন্দ মুসলিম জাতির অন্যতম শ্রেষ্ঠ মারকাজ, যে মারকাজের ইলমী ফয়েজ পুরো দুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়ছে।

মঙ্গলবার (১ অক্টোবর) পবিত্র হারাম শরিফের দায়িত্বশীল শায়েখ জামাল মুহাম্মদ ইউসুফ এবং পবিত্র মসজিদে নববীর প্রধান দায়িত্বশীল শায়েখ ওয়ালিদ বিন সাঈদ দারুল উলূম দেওবন্দ পরিদর্শনে এসে অভিভূত হয়েছেন। এসময় শায়েখ ওয়ালিদ বিন সাঈদ এসব কথা বলেন।

পরিদর্শনকালে মেহমানদ্বয় দারুল উলূম দেওবন্দের মুহতামিম মুফতি আবুল কাসেম নোমানীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। তিনি তাদের অভ্যর্থনা জানান। সাক্ষাৎকালে মুফতি আবুল কাসেম নোমানী আরব শায়েখদের সামনে দারুল উলূম দেওবন্দের ইতিহাস এবং ইলমী ময়দানে আকাবিরে দেওবন্দের নজিরবিহীন খেদমতের কথা তুলে ধরেন।

তারা মুফতি আবুল কাসেম নোমানীর কাছে দারুল উলূমের খরচ কীভাবে নির্বাহ করা হয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখানে কোন সরকারি অনুদান নেয়া হয় না,সাধারণ মুসলমানদের দানেই দারুল উলুমের যাবতীয় খরচ নির্বাহ করা হয়। তখন মেহমানদ্বয় আশ্চর্য হয়ে যান যে, এতবড় এদারা সরকারি অনুদান ছাড়া কিভাবে চলে!

বৈঠক শেষে মেহমানদের দারুল উলূম দেওবন্দের তাখাসসুস ফিল আদবের সিনিয়র শিক্ষক মাওলানা আরিফ জামিল দারুল উলূমের ঐতিহ্যবাহী প্রাচীন লাইব্রেরি, মসজিদে রশীদ, মাতবাখ এবং জাদীদ শাইখুল হিন্দ লাইব্রেরি ভবন পরিদর্শন করান।

এদিকে ভারতের প্রখ‌্যাত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দারুল উলূম দেওবন্দ পরিদর্শন করেছেন দিল্লী হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি তলুনাথ সিং। তিনি দেওবন্দে ইতিহাস-ঐতিহ্য, শিক্ষ-সংস্কৃতি নিয়ে শিক্ষকদের সঙ্গে আলাপ করেন। ঘুরে দেখেন মাদরাসার শ্রেণি কক্ষ, আবাসিক ভবন, লাইব্রেরী ও দারুল উলূম দেওবন্দের অন্যান্য ভবন।

পরিদর্শনের পর বিচারপতি তলুনাথ সিং বলেন, এ ধরনের শিক্ষা ব্যবস্থা সমাজের জন্য খুবই জরুরি। ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ রোববার বিচারপতি তলুনাথ সিং তার স্ত্রীসহ দারুল উলূম দেওবন্দে পৌঁছলে প্রতিষ্ঠানটির প্রিন্সিপাল মুফতি আবুল কাসেম নোমানী, ভাইস প্রিন্সিপাল মাওলানা আবদুল খালেক মাদ্রাজী তাদেরকে স্বাগত জানান। তারা বিচারপতির সামনে দারুল উলূম দেওবন্দের ঐতিহাসিক খেদমাত, শিক্ষাব্যবস্থা, এখানকার ছাত্রদের অবস্থান, খাওয়া দাওয়ার ব্যবস্থাপনা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন।

প্রিন্সিপাল মুফতি আবুল কাসেম নোমানী বলেন, দারুল উলূম দেওবন্দে প্রায় পাঁচ হাজার শিক্ষার্থী পড়াশোনা করছে। এসব শিক্ষার্থীদের অবস্থান, ভরণপোষণের সব দায়দায়িত্ব পালন করে চলেছে এ প্রতিষ্ঠান। দারুল উলূম দেওবন্দ এবং এখানকার আকাবিরীনদের দেশের স্বাধীনতাযুদ্ধে অবদানের কথাও তুলে ধরেন। আজও এখানকার শিক্ষার্থীরা দেশের উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির জন্য কাজ করে চলেছেন।

দিল্লী হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি তলুনাথ সিং দেওবন্দ পরিদর্শন নিজের সন্তুষ্টি প্রকাশ করে বলেন, আমি দারুল উলূম দেওবন্দ সম্পর্কে অনেক পড়েছি এবং শুনেছি। এখানে আসার জন্য আমার মন উদগ্রীব হয়ে অপেক্ষা করছিল। আজকে আসতে পেরে এবং আপনাদের ভালোবাসা পেয়ে আমার খুবই ভালো লাগছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com