২০শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৬ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ৯ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

রবীন্দ্র সরোবরে দ্বীনের দাওয়াত নিয়ে অনন্ত জলিল

পাথেয়২৪ ডেস্ক ● অসম্ভবকে সম্ভব করাই আমার কাজ- এরকম একটা ডায়ালগে বেশ জনপ্রিয়তা আছে অনন্ত জলিলের। ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেতা অনন্ত জলিল। বেশ কিছু সিনেমা উপহার দিয়ে ভক্তদের নজর কেড়েছেন তিনি। তবে অনেক দিন ধরে চলচ্চিত্রে দেখা যাচ্ছে না ‘খোঁজ-দ্য সার্চ’ সিনেমা দিয়ে চলচ্চিত্রে অভিষেক হওয়া এই নায়ককে। তবে নতুন সিনেমা ‘স্পাই’ নিয়ে শিগগিরই পর্দায় হাজির হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন কিছু দিন আগে। এ ঘোষণার কিছু দিন পরই ওমরা করতে পবিত্র মক্কায় যান তিনি।

ওমরা করে এসে আজ তার ফেসবুক ফ্যানপেজে দেন আরেক ঘোষণা। জানান, রাজধানীর ধানমণ্ডি রবীন্দ্র সরোবরে সন্ধ্যা ৬টা ৪৫ মিনিটে ভক্তদের সঙ্গে মিলিত হবেন। কিন্তু কেন মিলিত হতে যাচ্ছেন তা চমক হিসেবেই রাখেন এ তারকা। কিছুই বুঝা যায়নি।

প্রিয় তারকার এ ঘোষণায় কৌতূহলী হন তার ভক্তগোষ্ঠী। সন্ধ্যা নামতেই জমায়েত হতে থাকেন হাজার হাজার ভক্ত। অনন্ত জলিল আসবেন এ জন্যই তাদের এ জমায়েত। যদিও কেউ জানতেন না কেন ভক্তদের সঙ্গে দেখা করতে আসছেন এ নায়ক।

অবশেষে আয়োজক কমিটির একজনের কাছ থেকে পাওয়া গেল অনন্ত জলিলের আগমনের তথ্য। ওমরা থেকে এসে ধানমন্ডির মসজিদে ইসলামের বাণী ছড়াতে তাবলিগ জামাতে এসেছেন তিনি। সেখান থেকেই দাওয়াতি এক টিম নিয়েই রবীন্দ্র সরোবরে ধর্মের কথা শোনাতেই আসছেন অনন্ত। ফেসবুকে পোস্টের মাধ্যমে ভক্তদের জানালেও রবীন্দ্র সরোবরে এ কার্যক্রম চালানোর ব্যাপারে কোনো অনুমতি নেননি এ তারকা। তাই আয়োজকরা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বাঁধার সম্মুখীন হন।

এ ব্যাপারে সেখানকার দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশের এসআই মু. মামুন গণমাধ্যমকে জানান, ‘অনন্ত সাহেব ফেসবুকে ঘোষণা দিয়েছেন। কিন্তু আমাদের কিছু জানাননি। এখানে যে কোনো ধরনের অনুষ্ঠান করতে অনুমতি লাগে। নিরাপত্তাজনিত কারণেই তাকে আসতে নিষেধ করেছি আমরা। তবে তিনি যদি এখনও ওসি ও ডিসির অনুমতি নিয়ে আসেন আমরা নিরাপত্তা দিয়ে তাকে অনুষ্ঠান করতে সহায়তা করব।’

অবশেষে অনন্ত জলিলের মিডিয়া ম্যানেজার বাবু পুলিশের সঙ্গে কথা বলিয়ে দেন অনন্তকে। কথা বলার কিছুক্ষণ পরই ডিসির অনুমতি নিয়ে অনন্ত জলিল জুব্বা আর মাথায় পাগড়ি পরে হাজির হন রবীন্দ্র সরোবরে। এসেই জানান, ‘এখানে যে কোনো অনুষ্ঠান করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অনুমতির প্রয়োজন হয়। বিষয়টি আমাদের মাথায় ছিল না। তবে যেহেতু সবাইকে কথা দিয়েছি তাই কথা রক্ষার্থেই এসেছি আমি। শুধু এতটুকু বলব, ইসলাম শান্তির ধর্ম। ইসলামের প্রতিটি নিয়ম কানুনই মানুষের শান্তির জন্য। তাই আসুন আমরা ইসলামের পথে চলি। ইসলামের বিধিবিধানগুলো মেনে চলি।’ কথাগুলো বলেই বিদায় দেন অনন্ত জলিল।

শনিবার ফেসবুকে লেখেন, ‘বন্ধুগণ, আমি আজ সন্ধ্যা ৬টা ৪৫ মিনিটে আসছি ধানমণ্ডি রবীন্দ্র সরোবরে, আপনাদের/তোমাদের সঙ্গে কিছু গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপারে আলোচনা করতে। সবার উপস্থিতি একান্তভাবে কাম্য। এখানে উল্লেখ থাকে যে, আমার সঙ্গে আরও কিছু ইমপর্টেন্ট (গুরুত্বপূর্ণ) ব্যক্তিও থাকবেন। যাদের কথা শুনলে আমাদের জীবনে উপকারে আসবে। সুতরাং দেখা হবে সবার সঙ্গে রবীন্দ্র সরোবরে।

আরবিতে একটা প্রবাদ আছে, কুল্লু সাইয়িন ইয়ারজিই ইলা আসলিহি অর্থাৎ প্রত্যেক জিনিসই তার মূলের দিকে ফিরে আসে। একজন মুসলমানের তো ইসলাম হলো আসল। মূল। অনন্ত জলিলের এই ফিরে আসায় অন্য রকম আলোচনা শুরু হয়েছে দেশজুড়ে।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২১ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com