১৪ই জুলাই, ২০২০ ইং , ৩০শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ২২শে জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী

শামসুদ্দিন আযহারীর অনুবাদে ‘কাসাসুল হাদিস’ এখন বাজারে

শামসুদ্দিন আযহারীর অনুবাদে ‘কাসাসুল হাদিস’ এখন বাজারে

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : মিসেরর প্রখ্যাত আলেম ও আল-আযহার বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক শাইখ ড. মুস্তফা মুরাদ আযহারী রচিত ‘কাসাসুল হাদিস’ গ্রন্থটি এখন বাজারে। সৃজনশীল প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান মাকতাবাতুস সুন্নাহ প্রকাশ করেছে বইটি। বাংলায় ভাষান্তর করেছেন মুফতি আবুল ওয়াফা শামসুদ্দিন আযহারী। সম্পাদনা করেছেন খালিদ সাইফুল্লাহ কাসেমী।

বইটিতে রয়েছে বিশুদ্ধ হাদিসের গল্প ও উপদেশ, যা পাঠকদের আত্ম-উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে। বইটির প্রচ্ছদ মূল্য ৭৯৮ টাকা। মাকতাবাতুস সুন্নাহ থেকে পেতে পারেন বইটি। বইটি পেতে যোগাযোগ করুন মাকতাবাতুস সুন্নাহর প্রধান বিক্রয় কেন্দ্র- ইসলামি টাওয়ার, ১১/১ বাংলাবাজার, দোকান নং১১, ১ম তলা (গ্রাউন্ডফ্লোর) ঢাকা ১১০০। মোবাইল: ০১৯১১৫০২৯০৭। এছাড়াও বইটি রকমারিসহ আপনার পছন্দের যেকোন অনলাইন শপে অর্ডার করতে পারেন।

বইটি সম্পর্কে মাকতাবাতুস সুন্নাহর কর্নধার ও বইটির সম্পাদক খালিদ সাইফুল্লাহ কাসেমী বলেন, ‘কাসাস। গল্প শুধু গল্প নয়। হৃদয় গলে, জীবন গড়ে এবং পথ দেখায় অনন্দের অফুরন্ত হায়াতের দিকে। এটি-ই সত্যিকারের কাসাস-গল্প। আর এই গল্প যদি হয় সহিহ হাদিসের শব্দে, বহুল নির্বাচিত ও বিশ্বনবি হজরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর মুখ-নিঃসৃত তাহলে পাঠক মাত্রই উপকৃত হবেন -এটি একেবারে সোজা কথায় বলা যায়।

পৃথিবীর সূচনা থেকে মানুষ গল্প-কাহিনি বলতে ও শুনতে ভালবাসে। এর প্রধান কারণ হল, গল্প থেকে সহজে উপদেশ গ্রহণ ও বাস্তব জীবনে তা সহজে প্রয়োগ করা যায় । তাই প্রত্যেক জাতি, ধর্ম, সমাজ ও ইতিহাস-ঐতিহ্যকে নির্ভর করে নানা গল্প-কাহিনি সৃষ্টি হয়েছে। রোমান, পারসিক, হিন্দি ও আরবিসহ নানা সভ্যতার গল্পের সমৃদ্ধ বই রয়েছে।

তেমনি ইসলামি সভ্যতার মাঝে রয়েছে গল্প-কাহিনির সম্ভার। এগুলো ব্যক্তি গঠনে, সমাজ বিনির্মাণে ও রাষ্ট্র গঠনে এবং পরিচালনায় বিশেষ ভূমিকা রাখতে সক্ষম। কিন্তু পরিতাপের বিষয় হল কালের আবর্তনে ও বিভ্রান্তির বেড়াজালে সেই গল্প-কাহিনি আজ কোন দিক-দর্শন দেয় না, বরং অন্ধকারের দিকে ঠেলে দেয়। কুসংস্কারের পাহাড় তৈরি করে, সত্যকে আড়াল করে এবং প্রকৃত আকিদা-বিশ্বাসে ভ্রান্তির প্রলেপ দেয়।

রেফারেন্সহীন অশংখ্য বানোয়াট কেস্সা-কাহিনি এখন ওয়াজ-মাহফিল ও জুমার খুৎবায় সরব রয়েছে।মুসলিম সমাজের সমাজিক প্রেক্ষপটে ও বাংলা ভাষাভাষিদের জন্য বিশুদ্ধ হাদিসের বর্ণনায়, কাহিনি থেকে প্রয়োজনীয় শিক্ষা-শিষ্টাচার সংগ্রহ করে এবং প্রয়োজনীয় যথাযথ বিশ্লেষণ করে একটি গল্প-কাহিনির নির্ভরযোগ্য গ্রন্থ ইসলামি পাঠাগারে সংযোজন করা খুবই জরুরি ছিল।

এমন পরিবেশ ও পরিস্থিতিতে ‘কাসাসুল হাদিস’ গ্রন্থটি একটি সংস্কারমূলক ভূমিকা পালন করবে। বিশেষ করে দ্বিনের দাঈ, ওয়ায়েজ-বক্তা ও ইমাম-খতিবগণের ইসলামি আদর্শ প্রচারে বইটি সহায়ক ভূমিকা পালন করবে বলে আমি আশা করি।

সহিহ আকিদা-বিশ্বাসের প্রচারের ক্ষেত্রে এবং আখেরাতে অনন্ত জীবন লাভের জন্য কুরআনুল কারিম-হাদিস শরিফের বিকল্প নেই। আর এই বইটি গল্পে-গল্পে আপনাকে সেই পথের দিকে অগ্রসর করবে-এমনটি আমরা প্রত্যাশা করছি। ইসলামি কেস্সা-কাহিনির নামে মিথ্যা-বানোয়াট, কুসংস্কারাচ্ছন্ন ও বিভ্রান্তির থেকে আমরা বেরিয়ে আসব। আমাদের বর্তমান ও ভবিষ্যত প্রজন্মকে ‘কাসাসুল হাদিস’ পাঠের মাধ্যমে সঠিক পথের দিশা প্রদান করব। ইনশাআল্লাহ।’

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com