৪ঠা এপ্রিল, ২০২০ ইং , ২১শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১০ই শাবান, ১৪৪১ হিজরী

শায়েখ ইন্দেশ্বরী (রহ.)-এর কন্যার ইন্তেকাল

শায়েখ ইন্দেশ্বরী (রহ.)-এর কন্যার ইন্তেকাল

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : মাওলানা আব্দুন নূর শায়খে ইন্দেশ্বরী (রহ.)-এর বড় কন্যা ও মাওলানা সাইয়্যিদ হুসাইন আহমদ মাদানী (রহ.)-এর আজাল্লে খুলাফাদের অন্যতম মাওলানা শায়খ সিরাজুল হক চৌধুরী (রহ.)-এর সহধর্মিনী বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) সিলেটের মাউন্ট এডোরা হাসপাতালে বার্ধক্যজনিত কারণে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

মরহুমার নাতী ও ইকরা বাংলাদেশের প্রিন্সিপাল মাওলানা সদরুদ্দীন মাকনুন পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম-কে জানান, বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় নিজ পিত্রালয়ে মরহুমার জানাজার নামাজ হবে এবং সেখানেই মরহুমার মায়ের পাশে তাকে দাফন করা হবে।

মাওলানা সদরুদ্দীন মাকনুন জানান, ছোটবেলা থেকেই আমার নানীজান আলেম-ওলামাদের সংস্পর্শে ছিলেন এবং ধর্মীয় পরিবেশে বড় হয়েছেন। এর কারণ হলো, আমার নানীজানের বাবা শায়খ ইন্দেশ্বরী (রহ.)-ছিলেন মাওলানা সাইয়্যিদ হুসাইন আহমদ মাদানী (রহ.)-এর ছাত্র, আর নানীজানের দাদা মাওলানা আহমদ আলী (রহ.) ছিলেন মাওলানা রশীদ আহমদ গাঙ্গুহী (রহ.)-এর খলীফা। এজন্য মাওলানা আহমদ (রহ.)- এর মোলাকাতে নানীজানের বাবার বাড়িতে সবসময় মাওলানা সাইয়্যিদ হুসাইন আহমদ মাদানী (রহ.)- এর ছাত্র ও খলীফাদের নিয়মিত যাতায়াত ছিল। তাই শৈশবে তিনি তাদের খেদমত করেছেন। কৈশোর থেকেই নানীজান খুব আবেদা ছিলেন।

মাওলানা মাকনুন আরও জানান, শায়খ ইন্দেশ্বরী (রহ.)-এর বড় মেয়ে এবং মাওলানা সাইয়্যিদ হুসাইন আহমদ মাদানী (রহ.)-এর খলীফা মাওলানা সিরাজুল হক চৌধুরী (রহ.)-এর সহধর্মিনী হওয়ার সবসময় ওলামায়ে কেরামের সাথে তার হৃদ্যতা ছিল। এজন্যই আমার নানীজানের ৪ জন জামাতাই দেশবরেণ্য আলেম।

তার প্রথম জামাতা হলেন- বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার চেয়ারম্যান, শোলাকিয়া ঈদগাহের গ্র্যান্ড ইমাম, মাওলানা সাইয়্যিদ আসআদ মাদানী (রহ.)-এর খলীফা শাইখুল হাদীস আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ। দ্বিতীয় জামাতা হলেন- মাওলানা তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জী (রহ.)-এর ছোট ভাই স্কোয়াড্রন লিডার (অব.), শায়খুল হাদীস মাওলানা আহমদুল হক। তৃতীয় জামাতা হলেন- কুমিল্লার জামিয়া মাদানিয়া রওজাতুল উলুম মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা প্রিন্সিপাল, হাফেজ মাওলানা উবায়দুল্লাহ (রহ.)। চতুর্থ জামাতা হলেন- ইংল্যান্ড প্রবাসী হাফেজ মাওলানা নিজামুদ্দীন সাহেব।

তিনি বলেন, আমার নানীজানের সব ছেলেই প্রতিষ্ঠিত আলেম। তারা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে দ্বীনের খেদমতে নিয়োজিত আছেন। প্রথম ছেলে মাওলানা মাহফুজুল হক চৌধুরী কাসেমী, ছাত্রাবস্থায় তিনি দারুল উলূম দেওবন্দের সুপরিচিত মুখ ছিলেন। বর্তমানে তিনি ইংল্যান্ডের লিভারপুলে বসবাস করছেন। দ্বিতীয় ছেলে মাওলানা মাহবুবুল হক চৌধুরী কাসেমী, তিনিও ইংল্যান্ড প্রবাসী, বার্মিংহামে বসবাস করছেন। তৃতীয় ছেলে মাওলানা মঞ্জুরুল হক চৌধুরি কাসেমী, তিনি দারুল উলূম মৌলভীবাজার মাদরাসায় সুদীর্ঘকাল প্রিন্সিপাল ছিলেন, তার নেতৃত্বে মাদরাসাটি জাতীয় পর্যায়ে ঈর্ষণীয় ফলাফলের অধিকারী ছিল। বর্তমানে তিনি সিলেটের দারুস সালাম – খাসদবীর মাদরাসায় সিনিয়র মুহাদ্দিস হিসাবে কর্মরত। চতুর্থ ছেলে মাওলানা মইনুল হক চৌধুরী, তিনি মৌলভীবাজারেই দ্বীনের খেদমতে নিয়োজিত আছেন। পঞ্চম ছেলে মাওলানা মাজহারুল হক চৌধুরী, তিনি বর্তমানে কাতারে কর্মরত। ষষ্ঠ ছেলে হাফেজ মুতাহারুল হক চৌধুরী, তিনি সিলেট এক মাদরাসায় খেদমতে নিয়োজিত। আমার নানীজানের ছোট ভাই মাওলানা যোবায়ের আহমদ চৌধুরী, তিনি বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ এর মহাপরিচালক।

মাওলানা সদরুদ্দীন মাকনুন আরো বলেন, আমার নানীজানের বাবা শায়খে ইন্দেশ্বরী (রহ.) মাওলানা সাইয়্যিদ হুসাইন আহমদ মাদানী (রহ.)-এর ছাত্র, এবং  নানীজানের দাদা মাওলানা আহমদ আলী (রহ.) মাওলানা রশিদ আহমদ গাঙ্গুহি (রহ.)-এর খলীফা হওয়ায় সবসময় আমার নানাবাড়ীর সাথে মাদানী খান্দানের এক বিশেষ সম্পর্ক ছিল। মাদানী খান্দানের কোন সদস্য বাংলাদেশে আগমন করলে নানাবাড়ীতে অবস্থান করতেন।

এখন পর্যন্ত আমরা এ সৌভাগ্যের অধিকারী। মাদানী খান্দানের কোন সদস্য আজও বাংলাদেশ এলে আমার নানীজানের কন্যাদের বাসায় নিমন্ত্রণ গ্রহণ  করেন।

আল্লাহ তাআলা মরহুমাকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করুক, আমীন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com