২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং , ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ২৮শে জমাদিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী

শুক্রবার শুরু তাড়াইলের ইসলাহী ইজতেমা

শুক্রবার শুরু তাড়াইলের ইসলাহী ইজতেমা

প্রত্যেক দিন থাকবেন আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম :: মানুষের হৃদয়কে ঈমানের স্বাদে তৃপ্তিময় করে দিতে প্রতি বছরের মতো এবারও শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামা ও বেফাকুল মাদারিসিদ্দীনিয়া বাংলাদেশ-এর চেয়ারম্যান, আওলাদে রাসূল হজরত আসাদ মাদানি (রহ.)-এর খলিফা আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদের আহ্বানে কিশোরগঞ্জের তাড়াইলে ইসলাহী ইজতেমা।

তিনদিনব্যাপী ইজতেমার বিভিন্ন পর্বে ইসলাহী বয়ান, আম বয়ান, বিশেষ বয়ান, কোরআন তালিম ও তেলাওয়াত, জিকির ও দরূদের আমলসহ ধারাবাহিক আত্মোন্নয়নমূলক বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করবেন আগত মুসল্লিরা।

জানা গেছে, এবার শুরু হচ্ছে ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ শুক্রবার। ইতোমধ্যেই ইসলাহী ইজতেমার সবধরনের আয়োজন সম্পন্ন হয়েছে বলে জানা গেছে।
এবারের ইসলাহী ইজতেমা আন্তর্জাতিক-আলমি ইজতেমায় রূপ নিচ্ছে বলে জানিয়েছে ইজতেমা কর্তৃপক্ষ। শুরুতেই পবিত্র জুমার বয়ান ও নামাজ পড়াবেন ভারতের জমিয়তে উলামা হিন্দের জাদরেল নেতা, ভারতের প্রাচীন মাদ্রাসা ‘আমরুহা মাদ্রাসার’ সদরুল মুদাররিস ও মুহাদ্দিস মাওলানা কারী মাওলানা আফ্ফান মনসুরপুরী।

মানুষকে আল্লাহর পথে আসার আহবান ও মানুষের মনে আল্লাহতায়ালার ভালোবাসার উন্মেষ ঘটানোর উপায় এবং মানুষের নৈতিক উন্নয়নের দাওয়াত নিয়ে বৃহস্পতিবার থেকেই তাড়াইলের বেলঙ্কায় আওলাদে রাসূল হজরত আসাআদ মাদানি (রহ.)-এর খলিফা আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ অবস্থান গ্রহণ করবেন বলে জানা গেছে।

ইসলাহী ইজতেমার আখেরী মোনাজাত হবে ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ রোববার সকালে।

এছাড়াও এবারের ইসলাহী ইজতেমায় লন্ডনের মেহমান কাসেম নানুতাবী রহ.-এর বংশধর ইকরা টিভি ও আল খায়ের ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মাওলানা ইমাম কাসেম রশিদ আহম্মদ। সাইয়্যিদ আসআদ মাদানী রহ.-এর সাহেবজাদা মাওলানা সাইয়্যিদ মওদুদ মাদানীও উপস্থিত থাকবেন। দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোঃ আসাদুজ্মান খাঁন কামালও আখেরী মোনাজাতে অংশ নেবেন বলে জানা গেছে।

এ ছাড়াও দেশের বর্ষীয়ান ওয়ায়েজ, আলেম উলামা ইসলাহী মাহফিলে উপস্থিত থাকবেন।

প্রসঙ্গত, প্রতিবছরই শীতের সৃজনে কিশোরগঞ্জের তাড়াইলের বেলঙ্কা জামিয়াতুল ইসলাহ ময়দানে বেফাকুল মাদারিসিদ্দীনিয়া বাংলাদেশ-এর চেয়ারম্যান, আওলাদে রাসূল হজরত আসাদ মাদানি (রহ.)-এর খলিফা আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদের আহ্বানে মানুষের আধ্যাত্মিক পরিবর্তনের প্রত্যাশায় ভাটির মানুষের দ্বীনী উন্নয়নে ইসলাহী মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। ইতোমধ্যেই ব্যাপক সাড়া পড়েছে এই ইজতেমার। এখানে বিশেষ ব্যবস্থায় নারীদের জন্যও আলাদা একবার আলোচনা শোনার সুযোগ আছে। এ ছাড়া শিক্ষার্থী, শিক্ষক, যুবক-তরুণদের জন্যও আলাদা আলাদা বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিদিনই বাইয়াতেরও সুযোগ থাকে। প্রতিবছরই কেউ না কেউ হযরতের খেলাফত লাভেও ধন্য হন।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com