১৪ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ৩০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৭ই রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী

সফরে মেহনত মোজাহাদা ও ইখলাস গঠন হয় : আল্লামা মাসঊদ

নোয়াখালী যাত্রার আগে  আল্লামা মাসঊদ

সফরে মেহনত মোজাহাদা ও ইখলাস গঠন হয়

পাথেয় রিপোর্ট : সাধারণ মানুষের মধ্যে দ্বীনের বার্তা ছড়িয়ে দেয়ার লক্ষ্যে বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামা নোয়াখালীর জেলা শাখা আয়োজিত দুই দিনব্যাপী ইসলামী ইজতেমায় অংশগ্রহণ করার লক্ষ্যে মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) দুপুর ১২টায় নোয়াখালীর উদ্দেশ্যে যাত্রা করেছেন বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার চেয়ারম্যান, শোলাকিয়া ঈদগাহের গ্র্যান্ড ইমাম, আওলাদে রাসূল, ফিদায়ে মিল্লাত মাওলানা সাইয়্যিদ আসআদ মাদানী রহ.-এর খলিফা শাইখুল হাদীস আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ।

যাত্র শুরু আগে জামিআ ইকরা বাংলাদেশ মিলনায়তনে আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ বলেন, আমাদের এই ইসলাহী সফর কিয়ামতের দিন হাশরের ময়দানে আম্বিয়া কেরাম আ. এবং সাহাবায়ে কেরামের কাতারে দাঁড় করিয়ে দিবে ইনশাআল্লাহ। তিনি বলেন, আমাদের এই সফর জান-মাল কুরবানীর সফর। উম্মতকে আল্লাহর রাহে ফিরিয়ে নিয়ে আসার সফর। জনসাধারণকে উলামায়ে কেরামের সাথে জুড়িয়ে দেওয়ার সফর।

বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার চেয়ারম্যান বলেন, আমরা যদি এই সফরে তিনটি বিষয়ের দিকে লক্ষ্য রাখি, তাহলে আমাদের এই সফর সফল হবে। আমাদের উপর উম্মতের যে দায়িত্ব আছে, তা কিছুটা হলেও পালন করতে পারবো। তিনটি বিষয় হলো- ১. মেহনত। ২. মুজাহিদা। ৩. ইখলাস। এই তিনটি বিষয়ের দিকে আমরা বিশেষ লক্ষ্য রাখবো।

বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার মহাসচিব মাওলানা আবদুর রহিম কাসেমী বলেন, শাইখুল হাদীস আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদের নেতৃত্বে আমরা নোয়াখালি যাচ্ছি। ইনশাআল্লাহ সেখানে তিন দিনব্যাপী ইসলাহী ইজতেমা হবে। এ ইজতেমা ইতিমধ্যে আমরা খুলনাতে করে এসেছি আলহামদুলিল্লাহ। এখন নোয়াখালী করছি। আমরা সারা দেশে এই ইসলামী ইজতেমা করতে চাই। সে তালিকাও প্রস্তুত করা হয়েছে। আপনারা আসুন নোয়াখালীতে। আমরা কিছুটা সময় আত্মশুদ্ধির জন্য কাটাই।

শাইখুল হাদীস আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ-এর বহরের সঙ্গে শীর্ষ আলেমদের মধ্যে রয়েছেন, রংপুরের পীর মাওলানা হোসাইন আহমদ, মাওলানা দেলোয়ার হোসাইন সাইফী, মাওলানা আবদুর রহিম কাসেমী, মুফতি ইবরাহীম শিলাস্থানী, মুফতী তাজুল ইসলাম কাসেমী, মাওলানা সদরুদ্দীন মাকনুন প্রমুখ।

এদিকে বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামা ঢাকা মহানগরীর সভাপতি ও ইজতেমা পরিচালক মাওলানাদেলোয়ার হোসাইন সাইফী পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, আল্লাহর অশেষ মেহেরবানীতে ২৩ ও ২৪ জুলাই (মঙ্গলবার ও বুধবার) থেকে শুরু হচ্ছে নোয়াখালীর দুই দিনব্যাপী ইসলাহী ইজতেমা। এই ইজতেমায় নোয়াখালীর আলেম উলামাসহ দেশের বরেণ্য অসংখ্য উলামায়ে কেরাম উপস্থিত থাকবেন ইনশাআল্লাহ।
তিনি জানান, নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ চৌরাস্তা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে এ ইসলামী ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবে।

মাওলানা দেলোয়ার হোসাইন সাইফী পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ তিন দিনের এই সংক্ষিপ্ত ইসলাহী সফরে কুমিল্লা, নোয়াখালী ও ফেনি আসবেন। দাওয়াত, তালীম, তাযকিয়া ও ইলায়ে কালিমাতুল্লাহর নানামুখী কর্মসূচীর এক মহান মিশন নিয়ে তাঁর এই সংক্ষিপ্ত সফর।

কী কী থাকছে এই ইজতেমায় জানতে চাইলে মাওলানা দেলোয়ার হোসাইন সাইফী জানান, বাদ ফজর সূরায়ে ইয়াসিন ও ৬ তাসবীহের আমল, ইশরাক, নয়টা থেকে দশটা পর্যন্ত তালীম, দশটা থেকে বারটা পর্যন্ত শিক্ষা বিষয়ক পরামর্শ।

এছাড়াও বাদ জোহর খতমে খাজেগান, তারপর আম বয়ান, সুধি সম্মেলন, বাদ মাগরিব সূরায়ে ওয়াকিয়া পাঠ, ৬ তাসবীহের আমল, ইসলাহী বয়ান ও বাইয়াত, উলামা মাশায়েখ সম্মেলন, বাদ ইশা দরূদ ও সালাম, আম বয়ান ও প্রশ্নোত্তর পর্ব। রাত তিনটায় তাহাজ্জুদের আমল, ১২ তাসবীহের আমলসহ আরও অসংখ্য আমল দিয়ে সাজানো হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com