২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং , ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ২৮শে জমাদিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী

সৌদিতে প্রবাসী শ্রমশক্তির ১৩ শতাংশ বাংলাদেশি

সৌদিতে প্রবাসী শ্রমশক্তির ১৩ শতাংশ বাংলাদেশি

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম :: সৌদির শ্রম মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী মাহির আব্দুল রাহমান গাসিম বলেছেন, সৌদি আরবের প্রবাসী শ্রমশক্তির ১৩ শতাংশ বাংলাদেশি। তিনি বলেন, তাদের দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে বাংলাদেশের শ্রবণ শক্তি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। একই সঙ্গে শ্রমিকদের পাঠানো অর্থে তাদের পরিবার স্বচ্ছল হচ্ছে। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন হচ্ছে।

বুধবার সকালে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার লক্ষ্যে যৌথ কমিশনের ১৩তম সভার শুরুতে এ তথ্য জানান তিনি। সভার শুরুতে দুই দেশ সম্পর্ক আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে আগ্রহ প্রকাশ করে।

সৌদি শ্রমমন্ত্রীর নেতৃত্বে এই কমিশন সভায় দেশটির ৪০ সদস্যের প্রতিনিধিদল রয়েছে। এতে দেশটির শীর্ষপর্যায়ের ব্যবসায়ী প্রতিনিধি দলও রয়েছে। দুই দিনব্যাপী এই কমিশন সভা আগামীকালও হবে।

এ কমিশন সভায় বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে দিচ্ছেন অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সচিব মনোয়ার আহমেদ।

সভার শুরুতে মনোয়ার আহমেদ বাংলাদেশের দক্ষ অশিক্ষিত শ্রমশক্তি সম্পর্কে সৌদিকে অবহিত করেন। এই দক্ষ শ্রমশক্তি সৌদি কীভাবে কাজে লাগাতে পারে পাশাপাশি বাংলাদেশে বিনিয়োগের জন্য আহ্বান জানান সচিব।

সৌদির শ্রম উপমন্ত্রী জানান, বাংলাদেশে তাদের বিনিয়োগের আগ্রহ রয়েছে।

বৈঠকে উপস্থিত সৌদির শীর্ষ বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান আরামকোর বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার এক্সপার্ট জুলিও সি হেজেলমেয়ার মোসেস জানান, বাংলাদেশে বিনিয়োগের জন্য সুযোগ খুঁজছি। আশা করছি, বিনিয়োগ করতে পারব বাংলাদেশে। সেই উদ্দেশ্যেই এই সভায় যোগ দিয়েছে। বাংলাদেশ আগেও এসেছি। বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে আরামকো আগ্রহী।

এ ছাড়াও অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক উন্নয়ন, বিনিয়োগ ও শিল্প সংক্রান্ত সহযোগিতা, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে সহযোগিতা, ধর্মবিষয়ক খাতে সহযোগিতা, বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন খাতে সহযোগিতা, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতে সৌদি আরবের সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন ইআরডি সচিব।

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ও সামাজিক অগ্রগতির বিষয়ে তুলে ধরেন ইআরডি সচিব।

ইআরডির তথ্য মতে, বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার লক্ষ্যে ১৯৭৮ সালের ২০ ডিসেম্বর চুক্তি অনুসারে যৌথ কমিশন গঠিত হয়। এরপর দু’দেশের মধ্যে এ পর্যন্ত ১২টি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ সর্বশেষ সভাটি ২০১৮ সালের ১৪ ও ১৫ মার্চ সৌদি আরবের রিয়াদে অনুষ্ঠিত হয়। এরই ধারাবাহিকতায় দু-দেশের মধ্যে ১৩তম সভাটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com