১৩ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ২রা জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

সৌদি নারীরা একা থাকতে পারবেন, লাগবে না কারও অনুমতি

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : এখন থেকে সৌদি আরবে প্রাপ্তবয়স্কা যেকোন নারী তাদের পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি ছাড়াই একা বসবাস করতে পারবেন। বিবাহিত, অবিবাহিত ও সেপারেটেড যেকোন নারী চাইলে একা একাই নিজের পছন্দের বাড়িতে থাকতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে তাদের প্রয়োজন হবে না স্বামী, বাবা ও অন্যকোন পুরুষের অনুমতি।

সম্প্রতি সৌদি আরব কর্তৃপক্ষ দেশটির শরিয়াহ আইনের আর্টিকেল ১৬৯ এর বি ধারাটি বাতিল করে। যেখানে লেখা ছিল বিবাহিত, অবিবাহিত ও সেপারেটেড নারীদের তাদের পুরুষ অভিভাবকের অধীনস্থ থাকতে হবে। নতুন আইন অনুযায়ী যেকোন প্রাপ্তবয়স্ক নারীর আলাদা থাকার অধিকার রয়েছে। এক্ষেত্রে পুরুষ অভিভাবক তার বিরুদ্ধে কোন ধরনের অভিযোগ করতে পারবেন না। শুধু তখনই অভিযোগ করতে পারবেন যখন উক্ত নারী কোন অপরাধ করবেন।

আইনটিতে আরও বলা হয়েছে, যদি কোনো নারী দণ্ডপ্রাপ্ত হয় এবং সাজার মেয়াদ শেষ হলে কারাগার থেকে তাকে অভিভাবকের হাতে সোপর্দ করা হবে না। যদি উক্ত নারী না চান। নাঈফ আল মানসি নামের এক আইনজীবী বলেন, একজন প্রাপ্তবয়স্ক নারী কোথায় থাকবেন সে ব্যপারে সিদ্ধান্ত নেয়ার অধিকার তার রয়েছে। কেউ যদি একা থাকতে চায় পরিবারও তার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ দায়ের করতে পারবে না।

দীর্ঘদিন ধরে সৌদি আরবের প্রচলিত নিয়ম ছিল, প্রত্যেক নারীকে একজন পুরুষের অধীনে থাকতে হত। যিনি হবেন তার স্বামী, ভাই, ছেলে, বাবা অথবা চাচা। সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের পরামর্শে দেশটি ভিশন ২০৩০ বাস্তবায়ন নিয়ে কাজ করছে। সেই লক্ষ্যে এসব বাধা তুলে দিচ্ছে সৌদি আরব।

এর আগে ২০১৯ সালের আগস্ট মাসে সৌদি আরব নারীদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়। পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি ছাড়াই ২১ বছরের বেশি হলেই তারা পাসপোর্টের জন্য আবেদন করতে পারছেন। ভ্রমণ করতে পারছেন ইচ্ছে মতো পছন্দের জায়গায়।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২১ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com