৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং , ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ১৮ই রবিউস-সানি, ১৪৪২ হিজরী

সড়কে ১০ জন নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক ● সড়ক দুর্ঘটনায় দেশের সাত জেলায় ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার দিনের বিভিন্ন সময় এ ঘটনাগুলো ঘটেছে। এরমধ্যে জামালপুরে মাইক্রোবাস চাপায় ২জন, গাজীপুরে গাড়ির ধাক্কায় ড্রেনে পড়ে এক কিশোরী, ফরিদপুরে পিকনিক বাস খাদে পড়ে ১জন, কুষ্টিয়ায় ওয়াজ মাহফিলগামী বাস খাদে পড়ে ২জন, কিশোরগঞ্জে ২ অটোরিকশার সংঘর্ষে এক নারী, গোপালগঞ্জে বাসচাপায় ১ জন, ও মুন্সীগঞ্জে ইজিবাইক-অটোরিকশার সংঘর্ষে ১জন প্রাণ হারিয়েছেন। এসব ঘটনায় কমপক্ষে ৮৭জন আহত হয়েছেন। প্রতিনিধিদের পাঠানো সংবাদ:

জামালপুর : সদর উপজেলায় মাইক্রোবাস চাপায় দুইজনের মৃত্যু হয়েছে; আহত হয়েছেন আরও তিনজন। নারায়ণপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পরিদর্শক একেএম মহব্বত কবীর জানান, শনিবার ভোর ৬টার বামনজি ব্রিজের কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন – দিগপাইত এলাকার ফজল ম-লের ছেলে মোস্তফা (৪৫) ও বাঁশচড়া গ্রামের হুরমুজ আলীর ছেলে জহুরুল (২৮)। পরিদর্শক মহব্বত বলেন, ঢাকা থেকে একটি মাইক্রোবাস জামালপুর যাচ্ছিল। পথে বামনজি ব্রিজের কাছে দাঁড়িয়ে থাকা কয়েকজনকে ধাক্কা ও চাপা দিয়ে খাদে পড়ে যায়। এ সময় পাঁচজন আহত হয়। তাদের হাসপাতালে নেওয়ার সময় দুইজন মারা যান। অন্য তিনজনকে জামালপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে তিনি জানান। নিহতরা দুইজনই ছিলেন পরিবহন শ্রমিক। মোস্তফা ছিলেন একটি পিকআপের চালক আল জহুরুল ছিলেন তার সহকারী।

গাজীপুর : নগরীর সদরে বাসের ধাক্কায় ঢাকনা সরে যাওয়ায় ফুটপাতে দাঁড়িয়ে থাকা এক কিশোরী ড্রেনের ভেতর পড়ে মারা গেছে। শনিবার সকালে সিটি করপোরেশনের ভোগড়া বাইপাস মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিকভাবে ১৪/১৫ বছর বয়সী মেয়েটির পরিচয়র জানা যায়নি। তার পরনে কালো বোরকা ছিল। স্থানীয়দের বরাত দিয়ে জয়দেবপুর থানার এসআই জাকির হোসেন জানান, সকাল সোয়া ৯টার দিকে ওই কিশোরী বাইপাস মোড়ে একটি ড্রেনের মুখে থাকা ঢাকনার উপর দাঁড়িয়ে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছিল। এ সময় ঢাকাগামী বলাকা সার্ভিসের একটি বাসের ধাক্কায় ঢাকনাটি ড্রেনের মুখ থেকে সরে গেলে মেয়েটি ভেতর পড়ে যায় এবং মহাসড়কের নীচ দিয়ে পানির স্রোত প্রায় একশ ফুট দূরে গিয়ে আটকে যায়। এসআই জাকির বলেন, পুলিশ ও এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক প্রণয়ভূষণ দাস বলেন, তাকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছে।

ফরিদপুর : সদর উপজেলায় একটি পিকনিক বাস খাদে পড়ে এক এনজিওকর্মী নিহত হয়েছেন; আহত হন অন্তত ৩৭ জন। শনিবার ভোরে উপজেলার বাইপাস সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার ওসি নাজিম উদ্দিন জানান। নিহত মফিজুর রহমানের বাড়ি যশোরের মহেশপুর গ্রামে। তিনি ‘জাগরণী চক্র ফাউন্ডেশন’ নামের একটি বেসরকারি সংস্থার কুষ্টিয়া জোনাল অফিসের ম্যানেজমেন্ট ইনফমেশন সিস্টেম বিভাগে কর্মরত ছিলেন। ওসি নাজিম উদ্দিন জানান, জাগরণী চক্র ফাউন্ডেশনের কুষ্টিয়া অঞ্চলের বিভিন্ন অফিসে কর্মরত দেড় শতাধিক কর্মকর্তা-কর্মচারী চারটি বাস নিয়ে কুয়াকাটায় আনন্দভ্রমণে যান। গত শুক্রবার রাতে রওনা হয়ে চারটি বাস কুষ্টিয়ায় ফিরছিল। ভোরে গড়াই পরিবহন নামের বাসটি ফরিদপুরের বাইপাস সড়কের ব্রাহ্মণকান্দায় একটি ট্রাককে ওভারটেকিং করতে গিয়ে উল্টে রাস্তার পাশে খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই মফিজুরের মৃত্যু হয়। ওসি বলেন, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস হতাহতদের উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। আহতদের মধ্যে ৩৭ জনকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। নিহতের সহযাত্রী সিদ্দিকুর রহমান আহতদের বরাত দিয়ে বলেন, বেপরোয়া গতির কারণেই এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। দুর্ঘটনার আগেও বাসটি একাধিকবার দুর্ঘটনায় পড়তে পড়তে বেঁচে যায়।

কুষ্টিয়া : মিরপুর উপজেলার সাতমাইল এলাকায় ওয়াজ মাহফিলগামী একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে গেছে। এতে দুজন নিহত এবং ৪৭ জন আহত হয়েছে। শনিবার ভোররাত ৪টার দিকে কুষ্টিয়া-পাবনা মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত দুজন হলেন আবদুল মজিদ খলিফা ও উমেদ আলী। তাঁদের লাশ কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। আহত ব্যক্তিদের পরিচয় জানা যায়নি। তাঁদের বাড়ি কুড়িগ্রামে। তাঁদের সবাইকে একই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। চিকিৎসাধীন কয়েকজনের যাত্রীর ধারণা, ঘটনার সময় বাসচালক ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। ফলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাসটি দ্রুতগতিতে পাশের খাদে পড়ে যায়। কুষ্টিয়া হাইওয়ে পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুল জব্বার জানান, কুড়িগ্রাম থেকে একটি ৫২ সিটের বাসে করে অর্ধশতাধিক যাত্রী পিরোজপুরে একটি মাহফিলে যাচ্ছিলেন। শনিবার ভোরে বাসটি কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার সাত মাইল এলাকায় পৌঁছালে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পাশের খাদে পড়ে যায়। সে সময় স্থানীয় লোকজন বাসের ভেতর থেকে আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। হাসপাতালে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক আনুমানিক ৬০ বছর বয়সী উমেদ আলী ও আবদুল মজিদকে মৃত ঘোষণা করেন। হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, আহত ৪৭ জনকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর। এত রোগী একবারে আসায় সেবা দিতে কিছুটা হিমশিম খাচ্ছেন চিকিৎসকরা।

কিশোরগঞ্জ : শহরের গাইটাল এলাকায় দুই অটোরিকশার সংঘর্ষে সুলতানা খাতুন (৫৫) নামে এক যাত্রী নিহত হয়েছেন। শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত সুলতানা একই এলাকার মৃত ইউসুফ খন্দকারের স্ত্রী। কিশোরগঞ্জ মডেল থানার এসআই শফিকুল ইসলাম জানান, দুপুরে সিএনজি চালিত অটোরিকশায় করে কিশোরগঞ্জ শহর থেকে বাড়ি ফিরছিলেন সুলতানা। পথে গাইটাল এলাকায় ব্যাটারি চালিত একটি অটোরিকশার সঙ্গে ওই অটোরিকশাটির সংঘর্ষ হয়। এতে গুরুতর আহত হন সুলতানা। এ অবস্থায় স্থানীয়রা সুলতানাকে উদ্ধার করে কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

গোপালগঞ্জ : সদর উপজেলার শহরতলির পাথালিয়া এলাকায় বাসচাপায় অজ্ঞাতপরিচয় (৩৫) এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। শনিবার সকালে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। সদর থানার ওসি মো. সেলিম রেজা জানান, সকালে স্থানীয়রা শহরতলির পাথালিয়া এলাকায় মৃতদেহটি পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

মুন্সীগঞ্জ : সদর উপজেলার সুখবাসপুর এলাকায় সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও ব্যাটারিচালিক ইজিবাইকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। এতে সিএনজিচালিত অটোরিকশার চালক মো. আকমদ আলী (৩৫) নিহত হয়েছেন। শনিবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত আকমদ আলী কিশোরগঞ্জ জেলা সদরের চরপাড়া গ্রামের শাহবুদ্দিন বেপারীর ছেলে। হাতিমারা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই হাফিজ জানান, সকাল সোয়া ১০টার দিকে প্রচ- বৃষ্টির সময় সুখবাসপুর এলাকায় ইজিবাইক ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এতে অটোরিকশার চালক আকমদ আলী নিহত হন। দুটি যানবাহন আটক করা হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

patheo24/mr

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com