১২ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৭শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৫ই রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী

হাজিদের খেদমতে সৌদি সরকারের সাফল্য

হাজিদের খেদমতে সৌদি সরকারের সাফল্য

মাওলানা আমিনুল ইসলাম : এই প্রথম শুনলাম সৌদি পুলিশের মুখে ইংরেজী শব্দ। সৌদি আরবের মানুষ এবং এ্যারাবিয়্যান পুলিশ, তারা সাধারণত আরবী ভাষায় কথা বলে। ইংরেজী শব্দের ব্যবহার একদম কম। হজ্জের সময় ইতিপুর্বে রাস্তার কোন পুলিশ সদস্যকে ইংরেজী বা উর্দু শব্দ ব্যবহার করতে দেখি নাই। এবারই দেখছি, পুলিশ সদসগণ ইংরেজী এবং উর্দু, হিন্দি শব্দ ব্যবহার করছেন।

আজ সকালে মিনার তাবুর বাইরে হাঁটাহাঁটি করছিলাম। হঠাৎ এক জায়গায় থমকে দাঁড়ালাম। আর সঙ্গে সঙ্গে সেখানে এ্যারাবিয়ান এক পুলিশ এসে হাজির হলো।

পুলিশ বলতে লাগল, ” প্লিজ, নো স্টপ” প্লিজ, প্লিজ, প্লিজ!!

আবার একটু সামনে গেলাম, আরেক পুলিশ বলে উঠল, “নো ওয়েট”

আবার কোন পুলিশ হাজি সাহেবদের বলছে, ” উদ হার যাঁও” ( ঐদিকে যাও)

আগে এ্যারাবিয়্যান পুলিশের মুখে শুনতাম, তারা আরবীতে বলত, “হার রিক” ” হার রিক” মানে রাস্তায় কেউ দাঁড়িয়ে থাকবেন না। চলমান থাকবেন।

আবার কেউ বলতেন, ” ইমশি” “ইমশি” চলুন! চলুন! কেননা, লক্ষ লক্ষ লোকের সমাগম। কেউ রাস্তায় দু মিনিট দাঁড়িয়ে থাকলে বিশাল জট বেঁধে যায়। একারণে তারা মানুষকে আরবী ভাষায় অনুরোধ করত, “হার রিক” “হার রিক” চলমান থাকুন, চলমান থাকুন। ” ইমশি” “ইমশি” চলুন! চলুন! ইত্যাদি আরবী শব্দ তারা ব্যবহার করত।

কিন্তু এবার ভিন্ন এক দৃশ্য, পুলিশ বলছে, ” নো স্টপ” “গো” “গো” অর্থাৎ থামবেন না, যান, যান,।

আসলে সৌদি সরকার হাজি সাহেবদের খেদমতে আরো এক ধাপ সামনে এগিয়ে গেল। এমনিতে তারা হাজিদের প্রাণ-পণ খেদমত করেন। যাবতীয় বিষয়ের খোঁজ খবর তারা নেন। এবার তারা হাজিদের ভাষাগত খেদমত, বিভিন্ন দেশের মানুষের ভাষা রপ্ত করে, হাজিদের দিক নির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছেন। হাজি সাহেবদের পথ চলা সহজ করছেন তারা।

বহু পুলিশ এবং বিভিন্ন হজ্জ কর্মিগণ বিভিন্ন দেশের ভাষা শিখে হাজিদের সাথে কথা বলছেন। হাজিদের বিভিন্ন ভাবে সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। সৌদি সরকারের এই প্রশংসনীয় উদ্যোগ কে স্বাগত জানাই। আল্লাহ তায়ালা তাদের এই খেদমতকে কবুল করুন। আমিন।

লেখক : শিক্ষক ও সমাজ বিশ্লেষক

নিউজটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
Design & Developed BY ThemesBazar.Com