প্রথমবারের মতো রুশবাহিনীর পারমাণবিক মহড়া শুরু

প্রথমবারের মতো রুশবাহিনীর পারমাণবিক মহড়া শুরু

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : রুশ বাহিনী প্রথমবারের মতো পারমাণবিক মহড়া শুরু করেছে। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, কৌশলগত পারমাণবিক অস্ত্র উৎক্ষেপণ প্রস্তুতির অনুকরণে প্রথম পর্যায়ের মহড়া শুরু করেছে রুশ বাহিনী। প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এ মাসের শুরুতে এ মহড়ার নির্দেশ দেন। রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ফরাসি প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ ও ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের মন্তব্যের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেছে, ‘পশ্চিমা’ হুমকির জবাবে ইউক্রেনের নিকটবর্তী অঞ্চলে পরমাণু সামরিক মহড়া শুরু করা হয়েছে। আলজাজিরা।

উল্লেখ্য, ফরাসি প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ ইউক্রেনে রাশিয়ার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য ইউরোপীয় সেনা পাঠানোর সম্ভাবনার কথা বলেছিলেন। আর ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন বলেছিলেন, রাশিয়ার অভ্যন্তরে লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানার জন্য লন্ডনের সরবরাহ করা অস্ত্র ব্যবহার করার অধিকার ইউক্রেনের রয়েছে। পারমাণবিক বিশ্লেষকরা বলছেন, ইউক্রেনের যুদ্ধে পশ্চিমাদের বিরত রাখতে পুতিনের সতর্ক সঙ্কেত হিসেবে এই মহড়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে। ইউক্রেনকে অস্ত্র ও গোয়েন্দা তথ্য দিয়ে সহায়তা করছে পশ্চিমা দেশগুলো। কিন্তু সেনা পাঠায়নি তারা।

রুশ মন্ত্রণালয় বলেছে, রুশ ফেডারেশনের বিরুদ্ধে পশ্চিমা কর্মকর্তাদের উসকানিমূলক বিবৃতি ও হুমকির জবাবে রুশ রাষ্ট্রের আঞ্চলিক অখণ্ডতা ও সার্বভৌমত্ব নিঃশর্তভাবে নিশ্চিত করার জন্য অকৌশলগত পারমাণবিক অস্ত্রের যুদ্ধ ব্যবহারের জন্য ইউনিট ও সরঞ্জাম যে প্রস্তুত রয়েছে, তা নিশ্চিত করাই এই মহড়ার লক্ষ্য। ইউক্রেন সংলগ্ন রাশিয়ার সাউদার্ন মিলিটারি ডিস্ট্রিক্ট ক্ষেপণাস্ত্র বাহিনী এই মহড়ায় অংশ নিয়েছে। ইউক্রেনের কাছ থেকে দখল করা অঞ্চলেও মহড়া চলছে।

রাশিয়া গত বছর বলেছিল, বেলারুশ পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন করেছে। সেই বেলারুশও মহড়ায় অংশ নেবে। কৌশলগত বা অকৌশলগত পারমাণবিক অস্ত্রগুলো পুরো শত্রু শহর নিশ্চিহ্ন করার জন্য নকশা করা। কিন্তু কৌশলগত অস্ত্রের চেয়ে অকৌশলগত অস্ত্র কম শক্তিশালী। তবুও এগুলোর বিশাল ধ্বংসাত্মক সম্ভাবনা রয়েছে।

Related Articles