মার্কিন নিষেধাজ্ঞার হুমকিতে কি বলছে নয়াদিল্লি

মার্কিন নিষেধাজ্ঞার হুমকিতে কি বলছে নয়াদিল্লি

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম :  ইরানের চাবাহার বন্দরের উন্নয়নে ভারতের দীর্ঘমেয়াদী চুক্তির পর যুক্তরাষ্ট্রের দেয়া নিষেধাজ্ঞার হুঁশিয়ারির প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে ভারত।

দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বলেছেন, যোগাযোগের সুবিধার্থে ইরানের কৌশলগত বন্দর প্রকল্পে কাজ করবে ভারতীয় কোম্পানি। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রও অতীতে এই বন্দরের বৃহৎ সুবিধার বিষয়ে প্রশংসা করেছিল।

মঙ্গলবার (১৪ মে) সন্ধ্যায় কলকাতায় এক অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার হুঁশিয়ারির বিষয়ে এমন মন্তব্য করেছেন তিনি।

জয়শঙ্কর বলেন, এই চুক্তির ফলে চাবাহার বন্দরে বড় বিনিয়োগের পথ খুলে যাবে। প্রকল্পটি সমগ্র অঞ্চলের জন্য ভালো হবে। বিষয়টিতে কারো সংকীর্ণ দৃষ্টিভঙ্গি থাকা উচিত নয়। যুক্তরাষ্ট্র নিজেই অতীতে চাবাহারের বৃহত্তর প্রাসঙ্গিকতার প্রশংসা করেছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মন্তব্য সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলে জয়শঙ্কর বলেন, ‘আমি কিছু মন্তব্য দেখেছি। তবে আমি মনে করি এটি আসলে সবার সুবিধার জন্য। আমি মনে করিনা কারও এটি সম্পর্কে সংকীর্ণ দৃষ্টিভঙ্গি নেয়া উচিত।

এদিকে, ইরানের চাবাহার বন্দর পরিচালনার জন্য ভারত ১০ বছরের চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছে। এর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই নয়াদিল্লির বিরুদ্ধে সম্ভাব্য নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুমকি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

ওয়াশিংটন বলেছে, কোনো দেশ যদি ইরানের সাথে বাণিজ্যিক সম্পর্ক রাখে, তাহলে তাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা চাপানো হতে পারে।

মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে তেহরান-নয়াদিল্লির চুক্তির বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের উপ-মুখপাত্র বেদান্ত প্যাটেল এই হুঁশিয়ারি উল্লেখ করেন।

প্যাটেল বলেন, ইরানের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা এখনো বহাল রয়েছে। ওয়াশিংটন সেগুলোর প্রয়োগ অব্যাহত রাখবে।

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা চাই, ভারত সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ইরানের সাথে তাদের পররাষ্ট্রনীতি নিয়ে আমাদের বিস্তারিত জানাক। ইরানের সাথে তাদের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক, চাবাহার বন্দর সংক্রান্ত চুক্তি- সবকিছু নিয়েই ভারতের কথা বলা উচিত।’

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের শেষের দিকে ইরানের চাবাহার বন্দরের কার্যক্রম পরিচালনার দায়িত্ব গ্রহণ করে ভারত। বন্দরটি পাকিস্তানের স্থলপথ এড়িয়ে আফগানিস্তান এবং মধ্য-এশিয়ায় ভারতীয় পণ্য পরিবহন ও সরবরাহের একটি নতুন ট্রানজিট রুট খুলে দেয়।