অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে খেলছেন না ফেদেরার

অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে খেলছেন না ফেদেরার

অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে খেলছেন না ফেদেরার

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : দীর্ঘ ২২ বছরের পেশাদার ক্যারিয়ারে এই প্রথমবারের অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে খেলছেন না ২০ বারের গ্র্যান্ড স্ল্যাম বিজয়ী রজার ফেদেরার। দুই দফা হাঁটুর অস্ত্রোপচার থেকে এখনো নিজেকে পুরোপুরি সুস্থ করে তুলতে পারেননি এই সুইস তারকা। সে কারণেই বছরের প্রথম এই গ্র্যান্ড স্ল্যাম থেকে তিনি নাম প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে আয়োজক সূত্র নিশ্চিত করেছে। করোনার কারণে স্টেডিয়ামে ৫০ শতাংশ দর্শক প্রবেশের অনুমতি আছে।

এই সুযোগে টুর্নামেন্টে খেলার জন্য ওয়াইল্ড কার্ড পেয়েছেন স্কটিশ তারকা এন্ডি মারে। ৫ বারের অস্ট্রেলিয়ান ওপেন সেমিফাইনালিস্ট ৩৩ বছর বয়সী মারে সর্বশেষ ২০১৯ সালে মেলবোর্নে খেলেছিলেন। ঐ টুর্নামেন্টেই তিনি দীর্ঘদিনের কোমরের ইনজুরিতে আক্রান্ত হন, যে কারণে তার ক্যারিয়ার হুমকির মুখে পড়েছিল। এমনকি তিনি অবসরের কথাও চিন্তা করেছিলেন। যদিও দুইবার কোমরের অস্ত্রোপচারের পর আবারো নতুন করে ক্যারিয়ার গড়ার দিকে মনোযোগী হয়েছেন মারে। বর্তমানে র‌্যাংকিংয়ের ১২২তম স্থানে রয়েছেন মারে।

৩৯ বছর বয়সী ফেদেরার এ বছর ফেব্রুয়ারি থেকেই কোর্টের বাইরে ছিলেন। কিন্তু সম্প্রতি তিনি অনুশীলনে ফিরেছেন এবং অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের এন্ট্রি লিস্টেও তার নাম ছিল। করোনাভাইরাসের কারণে আগামী বছর অস্ট্রেলিয়ান ওপেন তিন সপ্তাহ পিছিয়ে ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হছে। মেলবোর্নের দর্শকদের কাছে দারুন জনপ্রিয় ফেদেরার। ২০০০ সালে অভিষেক হওয়ার পর এই প্রথম খেলতে পারছেন না ৬ বারের চ্যাম্পিয়ন।
এ সম্পর্কে টুর্নামেন্ট প্রধান ক্রেইগ টিলে বলেছেন, শেষ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে খেলার জন্য নিজেকে পুরোপুরি প্রস্তুত মনে করছেন না ফেদেরার। ২০২১ সালে মেলবোর্নে আসতে না পারায় সে ভীষণ হতাশ। তার দ্রুত সুস্থতার জন্য আমরা শুভ কামনা জানাছি। আশা করছি ২০২২ মেলবোর্নে আমরা তাকে পুরনায় কোর্টে দেখতে পাব।

জানুয়ারিতে নোভাক জকোভিচের কাছে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের সেমিফাইনালে পরাজিত হওয়ার পর থেকে ফেদেরারকে আর কোর্টে দেখা যায়নি। করোনা বিঘ্নিত পুরো মৌসুমই তিনি বিশ্রামে ছিলেন। ফ্রেঞ্চ ওপেনে ১৩তম শিরোপা জয়ের মাধ্যমে সম্প্রতি রাফায়েল নাদাল তার গড়া সর্বকালের সর্বোচ ২০ গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের রেকর্ড স্পর্শ করেছেন। বছরের প্রথম এই গ্র্যান্ড স্ল্যামে ইতোমধ্যেই পুরুষ ও নারী বিভাগের দুই শীর্ষ খেলোয়াড় নোভাক জকোভিচ ও অ্যাশলে বার্টি তাদের এন্ট্রি নিশ্চিত করেছেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *