২৫শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ২৪শে জিলকদ, ১৪৪৩ হিজরি

আদিল মাহমুদের ‘আবাবিল’ বৃত্তান্ত

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২২ উপলক্ষে চৈতন্য প্রকাশন থেকে প্রকাশিত হয়েছে তরুণ কবি ও অনুবাদক আদিল মাহমুদের কবিতার বই ‘আবাবিল’। বইয়ের প্রচ্ছদ করেছেন ‘নির্ঝর নৈঃশব্দ’। মুদ্রিত মূল্য ১৬০ টাকা।

কাব্যগ্রন্থ সম্পর্কে আদিল মাহমুদ বলেন, ‘এখনে সমৃদ্ধ সাহিত্য কিংবা অজস্র জ্ঞানের কিছু নেই। আমার আগের কাব্যগ্রন্থগুলো যেমন এই বইও তার ব্যতিক্রম নয়। আমাদের সমাজচিত্র, মানুষের সাথে আলাপ, পরিচয়, ঘনিষ্ঠতা, স্মৃতিকথা ও দিনলিপি মাত্র। এছাড়াও কিছু কবিতায় মাঝে মাঝেই ছায়া ফেলেছে ধর্ম, দেশের ঐতিহ্য, পরিবার, প্রেম, জীবনবোধ, সুখ ও শোককাতর অনুভবমালার চিহ্ন। সব নয়, কিছু, বাকিগুলো আমার কাছে থাক। অন্য কোনো কাব্যগ্রন্থে ইচ্ছে হলে লিখবো।’

কবি ও কবিতার বই সম্পর্কে কবি তমিজ উদ্দীন লোদী জানান, ‘তারুণ্যের স্বতস্ফূর্ত সৃষ্টিশীলতার প্রতি আমি সবসময়ই আস্থাবান। এদের মধ্যেই আমি অন্বেষণ করি নতুন সৃষ্টির প্রণোদনা। তাদের এষণা ও প্রতীতি আমাকে আশান্বিত করে। জানি অনেক ক্ষত্রেই এটি দুরূহ সাধনার বিষয়। তবে এদের মধ্যে কেউ কেউ এমন আছেন, যাদের প্রাণোচ্ছল মনস্বিতা দেখে চমকে যেতে হয়। এরকম এক তরুণ ‘আদিল মাহমুদ’ এর কবিতাগুচ্ছ দেখে আমার এই বিশ্বাস দৃঢ় হয়েছে। তার কবিতা চিত্রকল্প, বুনন, উপমা ও রূপকের অভিনবত্ব আমাকে মুগ্ধ করেছে। একইসাথে প্রতিকাশ্রয়ী ও নিহিতার্থনিষ্ঠ তার কবিতায় জড়িয়ে আছে আভ্যন্তর অভিজ্ঞান।

‘আমাদের প্রেমের ঐশ্বর্য/যেনো সুরা বাকারার বৈচিত্রের মতো সুন্দর।’ এই উপমা নতুন ও নিজস্বতায় ভাস্বর কিংবা যখন ভলোবাসার বিরহের তুলনা করে কবি লিখেন ‘যেভাবে কুরআন ভুলে যায়/তারাবি না পড়ানো হাফেজ।’ তখন বুঝতে অসুবিধা হয় না এ কবির স্বাতন্ত্র্য। তিনি নৈরাশবাদী নন, আশাবাদে উজ্জ্বল তার কবিতা । ‘আমার কোনো নি:সঙ্গতার ভয় নেই/হে জীবন, তুমি জানো না?’ এরকম অনেক উজ্জ্বল পঙ্তির উদাহরণ দেয়া যেতে পারে। তবে পাঠকের অনুসন্ধিৎসার উপর বাকিটা ছেড়ে দেয়া হলো।’

তিনি আরও বলেন, ‘বইটির নাম ‘আবাবিল’। নামের মধ্যেও তাৎপর্যতা জড়িয়ে আছে। অপশক্তির ধ্বংসের মধ্য দিয়ে সত্য ও সুন্দরের যে উদ্ভাস আভাসিত হয়েছে তা বিস্তারিত তার কাব্যগ্রন্থে। বইটির প্রতিটি কবিতায়ই তার কমবেশি স্বাক্ষর রয়েছে। এটি কবির তৃতীয় কাব্যগ্রন্থ। তার যাত্রা সবে শুরু হয়েছে বলা চলে। আমি তার মধ্যে অমিত শক্তির আভাস ও দ্রুতি লক্ষ করেছি। আগামি দিন হোক আদিলের আরো দাঢ্য ও রক্তমনির মতো দীপ্যমান।’

সিলেটের কানাইঘাট থানার ভাটিদিহি গ্রামে ২০ জুন ১৯৯৮ সালে আদিল মাহমুদের জন্ম। কৈশোর থেকে ঢাকা শহরে, খিলগাঁওয়ে। নিজেকে প্রকাশের মাধ্যম কবিতার পাশাপাশি গদ্য ও প্রবন্ধ লিখছেন অবিরাম। অনুবাদ সাহিত্যেও আছে বিরাট দখল।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২২ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com