২৫শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ২৪শে জিলকদ, ১৪৪৩ হিজরি

আল্লাহ তাআলা যাদের ভালোবাসেন

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : মহান আল্লাহর ভালোবাসা ও তার সন্তুষ্টি অর্জন মুমিন জীবনের পরম লক্ষ্য। আল্লাহ তাআলা কোরআনে কারিমের বিভিন্ন স্থানে এমন কিছু গুণের কথা উল্লেখ করেছেন, যেগুলোর কারণে ওই বান্দাদের তিনি ভালোবাসেন। আল্লাহ তাআলার ভালোবাসার মানুষদের সম্পর্কে পবিত্র কোরআনে বলা হয়েছে-

১. ‘আল্লাহ সৎকর্মশীলদের ভালোবাসেন।’ -সুরা বাকারা : ১৯৫
২. ‘আল্লাহ পবিত্র মানুষদের ভালোবাসেন।’ -সুরা তওবা : ১০৮
৩. ‘আল্লাহ তওবাকারীদের ভালোবাসেন।’ –সুরা বাকারা : ২২২
৪. ‘আল্লাহ মুত্তাকিদের ভালোবাসেন।’ -সুরা আলে ইমরান : ৭৬
৫. ‘আল্লাহ ধৈর্যশীলদের ভালোবাসেন।’ -সুরা আলে ইমরান : ১৪৬
৬. ‘আল্লাহ (তার ওপর) নির্ভরকারীদের ভালোবাসেন।’ -সুরা আলে ইমরান : ১৫৯
৭. ‘আল্লাহ ন্যায়নিষ্ঠদের ভালোবাসেন।’ -সুরা মায়িদা : ৪২

বুজুর্গ আলেমরা বলেছেন, আল্লাহতায়ালা ও বান্দার সম্পর্ক পারস্পরিক। মূলত বান্দা যখন আল্লাহমুখী হয়, তখন আল্লাহতায়ালা তাকে ভালোবাসার ছায়ায় আশ্রয় দেন। হজরত রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘যে ব্যক্তি আল্লাহর সঙ্গে সাক্ষাৎ হওয়াকে ভালোবাসে, আল্লাহও তার সঙ্গে সাক্ষাৎ হওয়াকে ভালোবাসেন; আর যে ব্যক্তি আল্লাহর সঙ্গে সাক্ষাৎ হওয়াকে অপছন্দ করে, আল্লাহও তার সঙ্গে সাক্ষাৎ হওয়াকে অপছন্দ করেন।’ –সহিহ বোখারি : ৬৫০৮

  • যেভাবে আল্লাহর ভালোবাসা পাওয়া যায়

আল্লাহতায়ালার ভালোবাসা লাভে প্রথম কাজ হলো- জাগতিক সম্পর্কগুলোকে ছিন্ন করা। অর্থাৎ গায়রুল্লাহর ভালোবাসাকে মন থেকে বের করে দেওয়া। কেননা দুই জিনিসের ভালোবাসা এক অন্তরে জমা হতে পারে না। পাশাপাশি আল্লাহর শ্রেষ্ঠত্ব, তার গুণাবলি ও নেয়ামতগুলোর কথা স্মরণ করা এবং তা নিয়ে চিন্তা-গবেষণা করা।

  • আল্লাহর প্রতি অনুরাগ

যেহেতু মুমিন আল্লাহকে সবচেয়ে বেশি ভালোবাসে, তাই মুমিন তার অন্তরে সবসময় আল্লাহর প্রতি অনুরাগ অনুভব করবে। অনুরাগ হলো এমন প্রিয় ও কাঙ্ক্ষিত বস্তু, যার কিছুটা জানা ও কিছুটা অজানা, তাকে পরিপূর্ণ জানা ও দেখার সহজাত আগ্রহ। অনুরাগ ভালোবাসার জন্য অপরিহার্য। হজরত রাসুলুল্লাহ (সা.) দোয়া করতেন, ‘হে আল্লাহ! আমি আপনার কাছে আপনার পবিত্র চেহারার দর্শন এবং আপনার সাক্ষাতের প্রতি অনুরাগ ও আগ্রহ প্রার্থনা করছি।’ -সুনানে নাসায়ি : ১৩০৫

  • অনুরাগীর প্রতি আল্লাহর অঙ্গীকার

যারা আল্লাহর প্রতি অনুরাগ পোষণ করে, তাদের ব্যাপারে আল্লাহর অঙ্গীকার হলো, ‘যে আল্লাহর সাক্ষাতের আশা পোষণ করে, তার জন্য আল্লাহর নির্ধারিত সময় অবশ্যই আছে।’ -সুরা আনকাবুত : ৫

  • ভালোবাসার পুরস্কার সন্তুষ্টি

যারা আল্লাহকে ভালোবাসে এবং তার ওপর সন্তুষ্ট থাকে, তাদের জন্য আল্লাহর পুরস্কার হলো তার সন্তুষ্টি। আল্লাহতায়ালা বলেন, ‘আল্লাহ তাদের প্রতি সন্তুষ্ট হয়েছেন এবং তারা আল্লাহর প্রতি সন্তুষ্ট হয়েছে।’ -সুরা তওবা : ১০০

  • আল্লাহর ওপর সন্তুষ্টিতেই সৌভাগ্য

বান্দার জন্য সবচেয়ে বড় সৌভাগ্যের বিষয় হলো, আল্লাহর সিদ্ধান্তে সন্তুষ্ট হতে পারা। হজরত রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘মানুষের সৌভাগ্যের অন্যতম হলো- আল্লাহ তার জন্য যে ফায়সালা করেছেন তার ওপর সন্তুষ্ট থাকা।’ -তিরমিজি : ২১৫১

আল্লাহর সিদ্ধান্তের ওপর সন্তুষ্ট থাকার অর্থ হলো- অন্তরে কোনো দ্বিধা ও আপত্তি না থাকা এবং মুখে অসন্তোষ প্রকাশ না করা। যখন বান্দা আল্লাহর সিদ্ধান্তে পুরোপুরি সন্তুষ্ট থাকে, তখন তার মনের ভেতর কোনো কষ্ট অনুভব করে না।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২২ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com