খুলনায় বেড়িবাঁধ ভেঙে ৫ হাজার চিংড়ি ঘের প্লাবিত

খুলনায় বেড়িবাঁধ ভেঙে ৫ হাজার চিংড়ি ঘের প্লাবিত

খুলনায় বেড়িবাঁধ ভেঙে ৫ হাজার চিংড়ি ঘের প্লাবিত

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : ভেঙে গেছে খুলনার পাইকগাছার বেড়িবাঁধ। কান্না মাছবাষীদের। প্লাবিত হয়েছে বাড়িঘর। ডুবে গেছে চিংড়ি ঘের। অমাবস্যার প্রবল জোয়ারে বয়ারঝাপায় ঝুঁকিপূর্ণ হাড়িয়া ওয়াপদার বেড়িবাঁধ আবারও ভেঙে যাওয়ায় এমন প্লাবনের শিকার হয়েছেন সাধারণ মানুষ। এতে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত ও ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে। চতুর্থ দফায় এই বাঁধ ভেঙেছে বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় জোয়ারের পানির তোড়ে বেড়িবাঁধ ভেঙে ৫ হাজার চিংড়ি ঘের, ৫টি গ্রাম প্লাবিত হয়। এতে কয়েক কোটি টাকার মাছ ও ফসলের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে স্থানীয় চিংড়ি চাষিরা জানান।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী মো. ফরিদউদ্দীন জানান, ইতোপূর্বে ৪ বার সরকারি ও স্থানীয়ভাবে বাঁধ মেরামত করা হলেও টেকসই মেরামতের অভাবে বারবার এলাকাটি জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হচ্ছে।

এদিকে ওই স্থানে স্থায়ী বাঁধ মেরামতের জন্য ৩ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হলেও কাজের দায়িত্বপ্রাপ্ত স্থানীয় ওয়ার্ড সদস্য বিএম আরেফিন জানান, ওয়ার্ক অর্ডার পাওয়ার পর কাজের অপরাগতা জানিয়ে ছেড়ে দিয়েছি।

ইউপি চেয়ারম্যান এসএম এনামুল হক জানান, ভাঙন কবলিত এলাকাটি খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। কয়েকবার ভেঙেছে, যা স্থানীয়ভাবে স্বেচ্ছাশ্রমে মেরামত করেছি। সম্প্রতি ঝুঁকিপূর্ণ বাঁধটি মেরামত করতে গেলে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের বাধা আসায় তা করা সম্ভব হয়নি। ফলে আমাবস্যার জোয়ারের পানির তোড়ে তা ভেঙে কোটি কোটি টাকার ফসলের ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে। তলিয়ে গেছে ৫টি গ্রামের অসংখ্য বাড়িঘর।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে বলেন, ভাঙন কবলিত স্থানে যাতে দ্রুত টেকসই বাধ দেয়া যায় সে ব্যাপারে জরুরি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *