২৭শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১২ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১৬ই জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

চকবাজার অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধদের দেখতে হাসপাতালে ইসলামী আন্দোলন

পাথেয় রিপোর্ট : পুরান ঢাকার চকবাজার চুড়িহাট্টায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মহাসচিব এর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর পীর সাহেব চরমোনাই’র পক্ষ থেকে মহাসচিবের নেতৃত্বে এ দলটি পরিদর্শনে যায়। এ সময় তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ও নিহত- আহত ব্যক্তিদের আত্মীয়-স্বজনের সাথে কথাও বলেন। নিহতদের মাগফিরাত কামনা এবং আহতদের সুস্থতা ও ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য দোয়া করেন।

রবিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১২টায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ-এর নেতৃত্বে এ দলটি য়ায়। প্রতিনিধি দলে ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, সহ-সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুর রহমান, ইসলামী কৃষক-মজুর আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম কবির, ইসলামী যুব আন্দোলনের কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ইলিয়াস হাসান, ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সভাপতি মুহাম্মাদ আল আমিন সিদ্দিকী, সাধারণ সম্পাদক ইমরান হুসাইন নূর, চকবাজার থানা ইসলামী আন্দোলন সভাপতি আলহাজ্ব আহসান উল্লাহ সহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়ানোর নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। সে লক্ষ্যে ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরির কাজ করছেন নগর দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলমসহ চকবাজার থানা নেতৃবৃন্দ। অগ্নিকান্ডে নিহতদের স্মরণে গতকাল চরমোনাই বার্ষিক মাহফিলের আখেরী মুনাজাতে পীর সাহেব চরমোনাই দোয়া করেন।

পীর সাহেব চরমোনাই নিহতদের পরিবারকে যথাযথ ক্ষতিপূরণ এবং আহতদের সুচিকিৎসার দাবি জানান। ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে অগ্নিকান্ডে আহতদের দেখতে এবং চিকিৎসার খোজখবর নিতে যান প্রতিনিধি দল। এসময় রোগীদের অভিভাবকগণ নেতৃবৃন্দের কাছে অভিযোগ করে বলেন, প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন, ‘আহতদের যাবতীয় ঔষধসহ আনুযাঙ্গিক সবকিছু ফ্রি। তারপরও হাসতপাতালের বাহির থেকেও ঔষধ ও চিকিৎসা উপকরণ ক্রয় করতে হচ্ছে যা দুঃখজনক।
মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ বলেন, অব্যবস্থাপনার কারণেই বার বার দুর্ঘটনা ঘঠছে। নিমতলী ট্রাজেডীর পর হাইকোর্টের নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও কেন তা বাস্তবায়ন হচ্ছে না এর দায় সরকার ও সিটি কর্পোরেশন কোনভাবেই এড়াতে পারবে না। হাইকোর্টের নির্দেশ বাস্তবায়ন হলে হয়তো চকবাজার ট্রাজেডীর অবতরণা হতো না। মহাসচিব নিহতদের পরিবারকে কমপেক্ষ এককালীন ১০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ এবং তাদের সন্তানদের লেখাপড়ার দায়িত্ব গ্রহণের দাবি জানান। আহতদের পরিবারকে ২ লাখ টাকা এককালীন ক্ষতিপূরণ এবং উন্নত চিকিৎসার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২১ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com