২১শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ৭ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১৭ই জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

চীনের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে উইঘুরদের ফৌজদারি মামলা

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : তুরস্কে বসবাসরত উইঘুর মুসলিমরা চীনের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা করেছেন। জানা গেছে, ১৯ সদস্যের মুসলিম উইঘুরদের একটি দল মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারি) তুরস্কের চিফ প্রসিকিউটর অফিসে মামলাটি করেন।

চীনের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে গণহত্যা, নির্যাতন, ধর্ষণ ও মানবতাবিরোধী অভিযোগ আনা হয়েছে। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

উইঘুরদের আইনজীবী গুলডেন সোনমেজ জানান, এটা খুবই প্রয়োজন ছিল। কারণ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় চীনের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থাই গ্রহণ করছেন না। এসব কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে লাখ লাখ উইঘুর মুসলিমদের জোরপূর্বক কাজ করানো ও অনেককে ২০১৬ সাল থেকে ক্যাম্পে বন্ধি করে রাখার অভিযোগ রয়েছে।

তুর্কিদের সঙ্গে উইঘুরদের জাতিগত, ধর্মীয় ও ভাষাগত সংযোগ রয়েছে। মধ্য এশিয়ার বাইরে বৃহত্তম উইঘুর প্রবাসী তুরস্কে বসবাস করে বলে মনে করা হয়।

এদিকে চীনের উইঘুর অধ্যুষিত অঞ্চল থেকে থেকে পণ্য আমদানির ওপর একটি নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। নিষেধাজ্ঞায় বলা হয়, কোম্পানিগুলোকে প্রমাণ দেখাতে হবে যে চীনের জিনজিয়াং অঞ্চল থেকে আমদানি করা পণ্যগুলো জোরপূর্বক শ্রম দিয়ে তৈরি করা হয়নি। অর্থাৎ পণ্য উৎপাদনে চীন সেখানকার শ্রমিকদের ওপর কোনো বাধ্যবাধকতা আরোপ করেনি এরকম প্রমাণ দেখাতে হবে।

তাছাড়া চীনের উইঘুর মুসলিম অধ্যুষিত জিনজিয়াং প্রদেশে শোরুম চালু করার পর যুক্তরাষ্ট্রে ব্যাপক সমালোচিত হচ্ছেন বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টেসলার মালিক ইলন মাস্ক। চীনের ক্ষমতাসীন সরকারের বিরুদ্ধে উইঘুর মুসলিমদের ওপর নিপীড়ন ও গণহত্যার অভিযোগ করে আসছে যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশ।

সুত্র: জাগো নিউজ

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২২ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com