৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ৩রা রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

নাজিরপুরে পানিবন্দি মানুষের দুর্ভোগ

ফাইল ছবি

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : নাজিরপুরের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়ে তলিয়ে গেছে রাস্তাঘাট, হাট-বাজার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মসজিদ, মন্দির, ফসলি জমি, মাছের ঘেরসহ বিস্তীর্ণ এলাকা। প্লাবিত হয়েছে বঙ্গোপসাগরের উপকূলবর্তী পিরোজপুর জেলার নাজিরপুর উপজেলার বৈঠাকাটা, মনোহরপুর, দেউলবাড়ি, কলারদোয়ানিয়া, গাওখালী, পদ্মডুবি, সোনাপুর, হকেরবাজার, তুরুকখালী, সাচিয়া, মালিখালীসহ অন্তত ২০টি নিচু এলাকা। পানিবন্দি হয়ে দুর্ভোগে রয়েছে হাজার হাজার মানুষ।

সরেজমিন ঘুরে দেখা হয় দেউলবাড়ি ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওর্য়াডের মেম্বার সাইফুল ইসলাম হাওলাদারের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘বর্ষা এলে আমাদের দুর্ভোগের শেষ থাকে না। বর্ষায় জোয়ারের পানি বেড়ে রাস্তাঘাট ডুবে যায়। পানির কারণে আমরা ঘর থেকে বের হতে পারি না। বর্ষায় গ্রামে কেউ অসুস্থ হলে তাকে হাসপাতালে নেওয়ার অবস্থাও থাকে না। ঘরের চুলা পর্যন্ত ডুবে যায়। রান্না, খাওয়া সব বন্ধ হয়ে যায়। সরকার যদি কোনো সহযোগিতা করতো, তাহলে একটু দুর্ভোগ কমতো।’

সোনাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. ছরোয়ার হোসেন বলেন, ‘বিদ্যালয়টি উপজেলার দুর্গম এলাকায় অবস্থিত। আশানুরূপ রাস্তা-ঘাটের উন্নয়ন না হওয়াতে বিদ্যালয়টি অধিকাংশ সময় জোয়ার ও বন্যার পানিতে নিমজ্জিত থাকে। শিক্ষার্থীদের নৌকা ছাড়া বিদ্যালয়ে আসার কোনো ব্যবস্থা নেই। ফলে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর সংখ্যা দিন দিন কমে যাচ্ছে।’

উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ আব্দুল্লাহ সাদীদ বলেন, ‘বন্যায় উপজেলার বিস্তীর্ণ এলাকা পানিতে নিমজ্জিত। তবে এখনো পর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্তদের কোনো সরকারি সহযোগিতা করা হয়নি।’

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২২ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com