৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ৩রা রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

প্রবৃদ্ধিতে ইউরোপ-আমেরিকাকে ছাড়িয়ে যাচ্ছে সৌদি

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : প্রায় এক দশকের মধ্যে সর্বোচ্চ অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনের পথে সৌদি আরব। জ্বালানি তেলের চড়া দামে ভর করে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি ২০২২ সাল শেষ করতে চলেছে বিশ্বের অন্যতম দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতি হিসেবে।

গত সপ্তাহে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) নতুন পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, এ বছর সৌদি আরবের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির হার বেড়ে ৭ দশমিক ৬ শতাংশে পৌঁছাতে পারে। মাত্র দুই বছর আগেও করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে দেশটির প্রবৃদ্ধির হার নেমে গিয়েছিল মাত্র ৩ দশমিক ৪ শতাংশে।

গত বুধবার আইএমএফ বলেছে, ব্যাপক ব্যবসায়িক সংস্কার, তেলের মূল্যবৃদ্ধি ও মহামারিজনিত মন্দার প্রভাব থেকে উৎপাদন সক্ষমতা পুনরুদ্ধার হওয়ায় এ বছর সম্ভবত বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতিগুলোর একটি হতে চলেছে সৌদি আরব।

কিন্তু এ বছর সৌদির এমন দুর্দান্ত অর্থনৈতিক গতিশীলতার ধারেকাছে যাওয়ারও অবস্থা নেই যুক্তরাষ্ট্রের। বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনীতিতে এখনো মন্দার শঙ্কা বিরাজমান। মূল্যস্ফীতি ঠেকাতে হিমশিম খাচ্ছে তাদের কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

আইএমএফের মতে, যুক্তরাষ্ট্রে ২০২২ সালে মূল্যস্ফীতির হার গড়ে ৬ দশমিক ৬ শতাংশ থাকতে পারে, যা আগামী বছরে পৌঁছানোরও আশঙ্কা রয়েছে।

সবশেষ পূর্বাভাসে সংস্থাটি জানিয়েছে, এ বছর যুত্তরাষ্ট্রের জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার বড়জোর ২ দশমিক ৩ শতাংশ হতে পারে, যা তাদের গত বছরের প্রবৃদ্ধির অর্ধেকেরও কম এবং সৌদি আরবের তুলনায় অনেক নিচে।

ইউরোপীয় দেশগুলোর অবস্থা তো আরও খারাপ। এনার্জি অ্যাসপেক্টসের এক বিশ্লেষকের মতে, ইউরোপে গভীর জ্বালানি সংকট বেশ কয়েকটি খাড়া অর্থনৈতিক সংকোচনের সূচনা করতে চলেছে। গত বৃহস্পতিবারও ইউরোপীয় প্রাকৃতিক গ্যাসের বেঞ্চমার্কের দাম বেড়েছে এবং তা বর্তমানে স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় প্রায় ১০ গুণ বেশি।

তীব্র দাবদাহ, রাশিয়ার গ্যাস প্রবাহে ঘাটতি এবং খরায় জার্মানির রাইন নদীর পানি শুকিয়ে যাওয়া মহাদেশটির অর্থনীতিতে অন্ধকারাচ্ছন্ন পরিস্থিতি তৈরি করেছে। আর ঠিক সেই সময়ই ইতিহাসের বইয়ে প্রবৃদ্ধির বিশাল মাইলফলক লিখতে চলেছে সৌদি আরব।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২২ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com