৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ৩রা রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

ফোন ধরে ‘হ্যালো’র পরিবর্তে ‘বন্দে মাতরম’ বলতে হবে

ফাইল ছবি

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : ফোন ধরে ‘হ্যালো’ বলা যাবে না। বলতে হবে ‘বন্দে মাতরম’। ভারতের মহারাষ্ট্রের নতুন সংস্কৃতিমন্ত্রী সুধীর মুঙ্গানতিওয়ার রাজ্যের সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের এমন নির্দেশনা দিয়েছেন।

গতকাল রোববার এ নির্দেশনা দেন বিজেপি নেতা সুধীর। বার্তা সংস্থা এএনআইয়ের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। রাজ্যের নতুন মুখ্যমন্ত্রী একনাথ শিন্ডে মন্ত্রীদের মধ্যে দপ্তর বণ্টন করেন। সুধীর পেয়েছেন রাজ্যের সংস্কৃতিবিষয়ক দপ্তরের দায়িত্ব।

দপ্তর পাওয়ার পর টুইট করেন সুধীর। তিনি বলেন, সংস্কৃতিমন্ত্রী হিসেবে রাজ্যের প্রত্যেক অধিবাসী ও সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রতি তাঁর প্রথম আহ্বান হলো, ‘হ্যালো’র পরিবর্তে ‘বন্দে মাতরম’ দিয়ে কথা বলা শুরু করা।

সুধীর বলেন, ভারতের স্বাধীনতার অমৃত মহোৎসব উপলক্ষে এখন থেকে মহারাষ্ট্র সরকারের সব কর্মকর্তা-কর্মচারী ফোনে ‘হ্যালো’র বদলে ‘বন্দে মাতরম’ দিয়ে কথা বলা শুরু করবেন।

‘হ্যালো’র পরিবর্তে ‘বন্দে মাতরম’ দিয়ে কথা বলা শুরু করার বিষয়টি বাধ্যতামূলক করা হবে বলে জানিয়েছেন সুধীর। এ বিষয়ে রাজ্য সরকার শিগগির নির্দেশনা জারি করবে।

সুধীর বলেন, ‘হ্যালো’ একটি বিদেশি শব্দ। এ শব্দ পরিত্যাগ করা উচিত। অন্যদিকে ‘বন্দে মাতরম’ কোনো শব্দ নয়, এটি প্রত্যেক ভারতীয়র অনুভূতি।

সম্প্রতি শিবসেনায় বিদ্রোহ হয়। বিদ্রোহে নেতৃত্ব দেন একনাথ শিন্ডে। এই বিদ্রোহের জেরে উদ্ধব ঠাকরের নেতৃত্বাধীন মহারাষ্ট্রের জোট সরকারের পতন হয়।

গত ৩০ জুন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন শিবসেনার বিদ্রোহ নেতা একনাথ শিন্ডে। উপমুখ্যমন্ত্রী হন বিজেপি নেতা দেবেন্দ্র ফডনবিশ।

জোটসঙ্গী বিজেপির সঙ্গে টানাপোড়েনের কারণে রাজ্যে নতুন মন্ত্রিসভা গঠন নিয়ে বিলম্ব হচ্ছিল। শপথের ৪০ দিন পর গত মঙ্গলবার একনাথ শিন্ডে তাঁর সরকারের মন্ত্রিসভা ঘোষণা করেন। নতুন মন্ত্রীদের মধ্যে গতকাল দপ্তর বণ্টন করা হয়।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২২ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com