১লা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ৬ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

বিএনপিকে আর আগুন নিয়ে খেলতে দেওয়া হবে না : সেতুমন্ত্রী

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপিকে আর আগুন নিয়ে খেলতে দেওয়া হবে না। আগুন নিয়ে খেলতে চাইলে জনগণ তাদের প্রতিহত করবে। বুধবার বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের অষ্টম ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

দেবনাথ শম্ভুর সভাপতিত্বে সম্মেলনে বরগুনা সার্কিট হাউস ময়দানে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর সভাপতিত্বে সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ডিসেম্বর মাসজুড়ে আমাদের মাঠে থাকতে হবে।

তাই সব নেতাকর্মীকে এখনই প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে হবে। ডিসেম্বর মাসজুড়ে ভোটচোর, দুর্নীতিবাজ ও জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষকতা প্রদানকারীদের বিরুদ্ধে এবং দুর্নীতির বিরুদ্ধে খেলা হবে। বিএনপির ফাঁকা বুলিতে আওয়ামী লীগ ভয় পায় না।’

ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, ‘বিএনপির কাজই অন্যের সমালোচনা করা। পদ্মা সেতু নিয়ে তারা কী ধরনের বিদ্ঘুটে মন্তব্য করেছে, তা সবারই জানা। আজ তো পদ্মা সেতু হয়েই গেল, এই পদ্মা সেতু পার হয়েই বিএনপির নেতারা বরিশাল গিয়েছিলেন। আপনাদের কি কোনো লজ্জা নাই? ঘরের কোনে বসে সমালোচনা না করে মাঠে আসুন, খেলা হবে। ডিসেম্বরের পর খেলা হবে।’

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে উদ্দেশ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘টাকার বস্তার ওপর বসে ছিলেন মির্জা ফখরুল, এখন টাকা ফুরিয়ে গেছে, তাই তাঁর কণ্ঠস্বর নরম হয়েছে। বিএনপি কাপুরুষের দল। ফখরুল সাহেব দেখে যান, আজকের এই সম্মেলনে বঙ্গোপসাগরের ঢেউ আছড়ে পড়ছে। খেলা তো হবেই।’

নেতাকর্মীদের প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘শেখ হাসিনা আপনাদের ডাক দেবেন। পুরো ডিসেম্বর মাস আপনাদের মাঠে থাকতে হবে সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে, জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে।

বামপন্থীদের উদ্দেশ করে কাদের বলেন, ‘তারা আদর্শের কথা বলে, এরা আবার হাওয়া ভবনের যুবরাজের সঙ্গে। কোথায় গেল তাদের আদর্শ—ঢাল নাই, তলোয়ার নাই, নিধিরাম সর্দার; তারাও এখন বিএনপির সঙ্গে, জিরোর সঙ্গে জিরো যোগ করলে কিছুই হয় না।’

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, ’৭৫ সালের পর শেখ হাসিনার মতো আর কোনো নেতা এত জনপ্রিয় হয়নি। এর অন্যতম কারণ হচ্ছে তাঁর সততা। কিন্তু এখন দলের মধ্যে কর্মীর চেয়ে নেতা বেশি। মশারির মধ্যে মশারি খাটাবেন না। দলে কোনোভাবেই দুর্নীতিবাজ, চাঁদাবাজ, মাদকসেবী এবং বিএনপি-জামায়াতের লোক যাতে ঢুকতে না পারে, সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে।

সেতুমন্ত্রী এ সময় জানান, শিগগিরই ফরিদপুর-কুয়াকাটা সড়কের ছয় লেনের কাজ শুরু হবে। এর আগে জেলা আওয়ামী লীগের অষ্টম ত্রিবার্ষিক সম্মেলন উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সিনিয়র সদস্য ও পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া পরিবীক্ষণ কমিটির আহ্বায়ক আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এমপি।

এ সময় বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আফজাল হোসেন, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক সিদ্দিকুর রহমান, সদস্য আনিসুর রহমান, গোলাম রাব্বানী চিনু, শওকত হাচানুর রহমান রিমন এমপি ও নাদিরা সুলতানা এমপি।

সম্মেলনে জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাসহ বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। সম্মেলন সঞ্চালনা করেন বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২২ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com