১৮ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ৩রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ১৯শে মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

বিতর্ক উসকে দিচ্ছেন মুশফিক?

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : মাঠের সঙ্গে মাঠের বাইরের নানান ঘটনায় একাধিকবার আলোচনার জন্ম দিয়েছেন মুশফিকুর রহিম। কিছুদিন আগে হজ থেকে দেশে ফিরেও একের পর এক আলোচনায় জড়াচ্ছেন নিজের নাম। আসন্ন জিম্বাবুয়ে সফরের টি-টোয়েন্টি স্কোয়াড থেকে ‘বিশ্রামের’ নামে বাদ পড়ে নিজের ফেসবুক পেজে এমন একটি ছবি শেয়ার করেছেন, তা থেকে বিতর্ক ডালপালা মেলেছে কয়েকগুণ।

জিম্বাবুয়ে সফরের দল ঘোষণার আগে তাকে বোর্ড থেকে বলা হয়েছিল, টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট না খেলতে। তবে এমন সিদ্ধান্তে রাজি ছিলেন না এই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। যদিও পরে তাকে অনেকটা জোর করেই ‘বিশ্রাম’ দেওয়া হয়েছে। টি-টোয়েন্টি দল থেকে বাদ পড়া মুশফিক অবশ্য ওয়ানডে দলে আছেন।

‘বিশ্রামের’ নামে বাদ পড়ে নিজের ফেসবুক পেজে এমন একটি ছবি শেয়ার করেছেন। তা থেকে বিতর্ক ডালপালা মেলেছে কয়েকগুণ। যেখানে আজ শনিবার (২৩ জুলাই) শেয়ার করা ছবিতে দেখা যায়, অনুশীলনের পর ড্রেসিংরুমে গা এলিয়ে বসে আছেন তিনি। চোখ দুটি বন্ধ। সঙ্গে যে ইমোজি ব্যবহার করেছেন, তাতে বার্তা দিচ্ছেন ‘বিশ্রাম’ নিচ্ছেন তিনি। মনে হতেই পারে টিম ম্যানেজমেন্টের চাপিয়ে দেওয়া দেওয়া ‘বিশ্রামের’ সিদ্ধান্তকে রীতিমত কটাক্ষ করেন।

সেখানে তার সমর্থকরা মন্তব্য করেছেন। যেখানে হাসান আহমেদ নামের একজন লিখেছেন, ‘আহারে, মুশি ভাই! এভাবে নিজের সম্মানটা নষ্ট করছেন কেন?’ আরেক ভক্ত লিখেছেন, ‘বিসিবির বিশ্রাম!’ শহিদুল ইসলাম নামের আরেকজন লিখেছেন, ‘উঠেন আয়না ভাই, জীবন যুদ্ধে পিছিয়ে যাবেন নইলে।’

এর আগে গত মঙ্গলবার নিজের অনুশীলনের একটি ভিডিও শেয়ার করে মুশফিক তার ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘খুশি তখনই হয় যখন অধিকাংশ মানুষ ঘুমিয়ে থাকে এবং আপনি কঠোর পরিশ্রম করেন।’

মুশফিকের এই পোস্ট দুটি যেন বিতর্ক আরো উস্কে দিয়েছে। বিসিবির এক পরিচালক বলেন, ‘যাদের আইডল হিসেবে সাধারণ মানুষ ফলো করে, আমার মনে হয় তাদের এমন কিছু করা উচিৎ নয় যা থেকে বিতর্ক জন্ম দেয়।’

তিনি আরো বলেন, ‘এমন কাজ আমাদের করা ঠিক না। সে কেন বা কী জন্য এমন ছবি আর ক্যাপশন দিচ্ছে সেটা সেই ভালো বলতে পারবে। তবে তাকে অনেকেই ফলো করে, আইডল মানে। সেই জায়গা থেকে এমন কিছু করা উচিৎ না বলেই আমি মনি করি।’

এর আগে ২০০৮ সালের পর থেকে কখনো জাতীয় দল থেকে বাদ পড়েননি মুশফিক। ১৩ বছর টানা খেলার পর গতবছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর ঘরের মাঠে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজের দল থেকে বাদ পড়েন। যদিও তখন নির্বাচকরা সরাসরি ‘বাদ’ শব্দটি ব্যবহার না করে সিনিয়র খেলোয়াড় হিসেবে সম্মান ধরে রাখতে ‘বিশ্রাম’ দেন। পরে মুশফিক নিজে অবশ্য জানান, তিনি বিশ্রাম চাননি, বাদই দেওয়া হয়েছে তাকে।

এরপর একাধিকবার বিতর্কে জড়িয়েছেন নিজের নাম। কখনো তার সমালোচকদের দাঁড়াতে বলেছেন আয়নার সামনে, কখনো মন্তব্য করেছেন, ‘আমি যখন উঠে অনুশীলন করি, তখন আপনাদের অনেকেই ঘুমিয়ে থাকেন।’ মুশফিক যে কথার লড়াইয়ে শুধু একাই লড়েছেন তেমনও নয়, তাকে যোগ্য সঙ্গ দিয়েছে তার সহধর্মিণী।

টি-টোয়েন্টিতে মুশফিকের ব্যাট কথা বলে না অনেকদিন হলো। এই ফরম্যাটটার সঙ্গে ঠিক যেন মানিয়ে নিতে পারছেন না তিনি। এজন্য খোদ বোর্ড সভাপতি ইঙ্গিত দেন, মুশফিককে তার সিদ্ধান্ত নিজেকেই নিতে হবে। এরপর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্টে শতক হাঁকান এই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান। তারপর তার স্ত্রী জান্নাতুল কিফায়াত মন্ডি কটি পোস্ট শেয়ার করেন।

যেখানে মন্ডি লেখেন, ‘আমরা হাসিমুখেই বিদায় নেব ইনশাআল্লাহ্‌! তবে আপনাদের বদলি আছে তো? সেদিকেও একটু নজর দিলে বাংলাদেশ ক্রিকেটের উন্নয়ন হতো!’

এই কথা সূত্র ধরে পরে আরেকটি প্রেস কনফারেন্সে নাজমুল হাসান পাপনের স্পষ্ট জবাব, ‘সাকিব বাদে সবারই বিকল্প রয়েছে।’

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্টে সেঞ্চুরি করা মুশফিক হজের কারণে উইন্ডিজ সফরে যাননি। এর আগে টি-টোয়েন্টি থেকে বাদ পড়ে জানিয়েছিলেন কোনো ফরম্যাট থেকেই অবসর নেওয়ার ইচ্ছে নেই তার। খেলতে চান তিন ফরম্যাটেই। তবে চাওয়ার সঙ্গে পাওয়া মেলাতে পারছেন না বলেই কী বিতর্কে নিজের নাম জড়াচ্ছেন মুশফিক!

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২২ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com