১৭ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ৩রা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১৩ই জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

বিশ্বের ক্ষমতাধর নারীর তালিকায় প্রধানমন্ত্রী, গর্ব বাংলাদেশের

বিশ্বের ক্ষমতাধর নারীর তালিকায় প্রধানমন্ত্রী, গর্ব বাংলাদেশের

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : বাংলাদেশ নতুনভাবে জানান দিয়েছে অনেকটা সক্ষমতার সঙ্গেই। দেশ পালন যুক্ত হয়েছে দেশের সঙ্গে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী ফোর্বস সাময়িকীর ২০২০ সালে বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর নারীর তালিকায় আছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি এর আগেও একাধিকবার ফোর্বস সাময়িকীর বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর নারীর তালিকায় স্থান পেয়েছেন।

নিজের বিচক্ষণতা, ধৈর্য ও বুদ্ধিমত্তার বলে শেখ হাসিনা ধীরে ধীরে দলের অবিসংবাদিত নেতায় পরিণত হয়েছেন। দীর্ঘ ২১ বছর পর ১৯৯৬ সালে আবারও আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত করেন। শেখ হাসিনা প্রথমবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হন। মাঝে একবার বিরতি দিয়ে ২০০৯ সালে আবারও প্রধানমন্ত্রী হন তিনি। তখন থেকে এখন পর্যন্ত টানা তিনি প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বে। এ দেশে এখন পর্যন্ত তিনিই সবচেয়ে বেশি সময় ধরে এই পদে রয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্পর্কে ফোর্বস সাময়িকী লিখেছে, তিনি বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ধরে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বে আছেন। তিনি বর্তমানে চতুর্থ মেয়াদে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন। তাঁর চতুর্থ দফায় ক্ষমতায় আসার ক্ষেত্রে তাঁর দল আওয়ামী লীগ সংসদের ৩০০ আসনের মধ্যে ২৮৮টিতে জয় পায়। ফোর্বস আরো লিখেছে, শেখ হাসিনার চলমান সংগ্রামে বাংলাদেশে একটি দৃঢ় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে।

একজন শেখ হাসিনা শত প্রতিকূলতার মাঝেও তাঁর দেশকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেন। শেখ হাসিনার সাহস দেশের মানুষ নানা সময়ে দেখেছে। আন্তর্জাতিক অনেক চাপ থাকা সত্ত্বেও শেখ হাসিনার সাহসের কারণে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে একাত্তরের ঘাতকদের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে তাদের বিচার হয়েছে। দেশীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের কারণে পদ্মা সেতু প্রকল্প অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল। সেই সেতু এখন দৃশ্যমান। একজন সফল রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে শেখ হাসিনার অবদান আজ আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। এরই মধ্যে তিনি শান্তি, গণতন্ত্র, স্বাস্থ্য ও শিশুমৃত্যুর হার হ্রাস, তথ্য-প্রযুক্তির ব্যবহার, দারিদ্র্য বিমোচন, উন্নয়ন এবং দেশে দেশে, জাতিতে জাতিতে সৌভ্রাতৃত্ব ও সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠার জন্য ভূষিত হয়েছেন মর্যাদাপূর্ণ অসংখ্য পদক, পুরস্কার আর স্বীকৃতিতে। নিখাদ দেশপ্রেম, দূরদর্শিতা, দৃঢ়চেতা মানসিকতা ও মানবিক গুণাবলি তাঁকে আসীন করেছে বিশ্বনেতৃত্বের আসনে। বর্তমান বিশ্বে ক্ষমতা ও দুর্নীতি শব্দ দুটি ক্রমেই একাকার হয়ে যাচ্ছে। অনেক সরকার বা রাষ্ট্রপ্রধানের নামেই উঠছে দুর্নীতির অভিযোগ। কয়েক বছর আগে পিপলস অ্যান্ড পলিটিকস নামের একটি আন্তর্জাতিক সংগঠন ১৭৩টি দেশের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানদের কর্মকা- বিশ্লেষণ করে সৎ নেতৃত্বের একটি তালিকা তৈরি করে। তাতে তিন নম্বরে আছেন শেখ হাসিনা।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেত্রী শেখ হাসিনা সবচেয়ে বেশি সময় ধরে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। বর্তমানে তিনি চতুর্থবারের মতো এবং টানা তৃতীয় মেয়াদে দায়িত্বে আছেন। শেখ হাসিনা তাঁর চতুর্থ মেয়াদে দায়িত্ব পালনকালে জাতীয় খাদ্য নিরাপত্তা, শিক্ষায় প্রবেশাধিকার এবং স্বাস্থ্যসেবা উন্নয়নের বিষয়ে কাজ করছেন। ফোর্বস লিখেছে, ‘শেখ হাসিনার অবিরাম সংগ্রাম বাংলাদেশে গণতন্ত্রকে একটি শক্ত ভিত্তি দিয়ে যাচ্ছে।’ আমরা গর্বিত জাতি হিসেবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এই অর্জনে।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২২ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com